কাদেরের ‘গণতান্ত্রিক মানসিকতায়’ আশ্বস্ত খসরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:১২ | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:৫০

সরকার বিএনপির নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা দেখার অপেক্ষায় বলে ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যে আশ্বস্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সরকারের পক্ষ থেকে ‘প্রথমবার’ ‘গণতান্ত্রিক মানসিকতা দেখানো হয়েছে বলেও মনে করেন তিনি।

সোমবার দুপুরে রাজধানীতে এক ‘প্রতিবাদ সভায়’ বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই নেতা বলেন, বিএনপির নির্বাচনকালীন সরকারের প্রস্তাবনার কাজ শেষের পথে। এটি সহসা উপস্থাপন করা হবে।

গত ১২ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, ২০১৩ সালের শেষ দিকে যেভাবে নির্বাচনকালীন সরকার হয়েছিল, এবারও সেখাবেই ভোট হবে। তবে বিএনপির অনির্বাচিত নির্দলীয় সরকারের দাবির বিষয়টি নাকচ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভোট হবে সংবিধানের বিধান অনুযায়ী।

আর এই ভাষণের এরপর থেকে বিএনপি নেতারা সরকারের সঙ্গে সংলাপের দাবি জানিয়ে আসছেন। তাদের দাবি, নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়টিও সংবিধানে নেই। কাজেই আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানে আসা যাবে।

এর মধ্যে রবিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির নেতারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা চেয়েছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন কোনো রূপরেখা দেবেন না। রূপরেখা দেবে তো বিএনপি। তারা কী রূপরেখা দেয় আমরা সেটা দেখার অপেক্ষায় আছি।’

এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি নেতা আমীর খসরু বলেন, ‘আওয়ামী লীগের বন্ধুরা না কী বলেছেন, বিএনপি নির্বাচনকালীন সরকারের যে প্রস্তাবনা দেবে সেটার অপেক্ষায় আছে। আমি আশ্বস্ত হলাম, এটা তো সুখবর।’

কাদেরের প্রশংসা করে খসরু বলেন, ‘প্রথমবারের মতো শুনলাম তাদের গণতান্ত্রিক মনমানসিকতার পরিচয় পাওয়া যাচ্ছে। তারা যদি বিএনপির সেই প্রস্তাবনার জন্য অপেক্ষা করে থাকে স্বাগত জানাই।’

বিএনপি তার প্রস্তাব দেয়ার মাধ্যমে জাতীয় আলোচনার ক্ষেত্র তৈরি করার চেষ্টা করছে বলেও জানান দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য। বলেন, ‘সেই আলোচনার মাধ্যমে জাতীয় ঐক্যমতের মাধ্যমে একটি নির্বাচনী ব্যবস্থা আমাদের করতে হবে।’

বিএনপির প্রস্তাবে কী থাকছে তারও ইঙ্গিত দেন খসরু। বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকার যেটি হবে সেটি হচ্ছে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। প্রস্তাবনার উদ্দেশ্য হবে সেটা।’

‘প্রতিটি মানুষের প্রত্যাশা হচ্ছে নির্বাচকালীন সময়ে একটি নিরপেক্ষ সরকার থাকবে, একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন থাকবে, একটি নিরপেক্ষ সরকারের নির্বাহী বিভাগ কাজ করবে। যার মাধ্যমে জনগণ নির্ধিদ্বায় নির্বিঘ্নে ভোট দিতে ভোট কেন্দ্রে যাবে।’

স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলের মুক্তি দাবিতে এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে ‘আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল মুক্তি পরিষদ’।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি জাকারিয়া আলম মামুনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু প্রমুখ।

(ঢাকাটাইমস/২২জানুয়ারি/বিইউ/ডব্লিউবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত