আইনজীবী নির্বাচনে বিএনপির সমর্থন চাইলেন শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৫১ | প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৫০

নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেলের পক্ষে বিএনপি সমর্থিক আইনজীবীদের সমর্থন চেয়েছেন আলোচিত সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান। তার দাবি, আইনজীবীদের স্বার্থেই এই সমর্থন দেয়া উচিত।

আগামী ৩০ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ভোট হবে। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ প্যানেলের লড়াই করছে। আর বিএনপিপন্থীদের প্যানেলের নাম জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ।  

দুই প্যানেলে ১৭ জন করে প্রার্থী দেয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেলে সভাপতি প্রার্থী করা হয়েছে হাসান ফেরদৌস জুয়েলকে আর সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী করা হয়েছে মোহসীন মিয়াকে।

অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী করা হয়েছে জহিরুল হককে, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী করা হয়েছে আবদুল হামিদ খান ভাসানী ভুঁইয়াকে।

এই নির্বাচনকে ঘিরে আইনজীবীদের একটি দাবি সামনে এসেছে। বর্তমানে জেলা জজ কোর্ট ও ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট ফতুল্লার টানমারী এলাকায় আছে। তবে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের জন্য কালীবাজারে পুরান কোর্ট এলাকায় আলাদা ভবন করা হয়েছে। আইনজীবীরা এর বিরোধিতা করছেন। তারা চাইছেন দুটি আদালত থাকুক একই জায়গায়।

সোমবার দুপুরে জেলা আইনজীবী সমিতির ভবনে সমিতির স্বরস্বতী পূজা উপলক্ষে বক্তব্য রাখছিলেন শামীম ওসমান। তিনি বলেন, আইনজীবীরা যদি চান দুই আদালত একই এলাকায় থাকুক, তাহলে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেলকেই ভোট দিতে হবে। বিএনপি সমর্থিত প্যানেল জিতলে এটা কখনও করা যাবে না।  

বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে শামীম ওসমান বলেন, ‘তাদের অনুরোধ করব যদি আপনারা এ দায়িত্ব নিতে পারেন, আপনারা পাস করলে দুই কোর্ট একসঙ্গে রাখতে পারবেন তাহলে আমাদের প্রার্থীদের বসাই দিব।’

‘বিএনপিতে যারা দাঁড়িয়েছেন তারাও ভালো মানুষ, তারাও আমাদের ভাই, নারায়ণগঞ্জের সন্তান, আমি তাদেরকে খাটো করে দেখছি না। ... তারা আমার চেয়ে অনেক যোগ্য মানুষ।’

‘কিন্তু একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে। আজকে যদি বিএনপি ক্ষমতায় থাকত তাহলে আমার পক্ষে বলা সম্ভব হতো না যে আমি এ মন্ত্রী নিয়ে আসব, এ কাজটা করে দিব। যেহেতু একইভাবে আমরা ক্ষমতায় আছি আমরাই পারব বারের সব সমস্যার সমাধান করতে।’

‘আর বিএনপির যারা প্রার্থী আছেন তারা যদি আইনজীবীদের স্বার্থে জুয়েল-মোহসীনকে সমর্থন দেন তাহলে... আমাদের দায়িত্ব হচ্ছে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে সমাধান করে নিয়ে আসা।’

‘আমরা দায়িত্ব নিচ্ছি যে, জুয়েল মোহসীন পরিষদ পাস করার ১৫ দিনের মধ্যেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নিয়ে আসব এবং এ সমস্যার স্থায়ীভাবে শেষ করব। এরপর আপনারা যাকে ইচ্ছা ভোট দিয়েন কিন্তু এইবারের জন্য জুয়েল-মোহসীন পরিষদকে পাস করান।’
আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেলের প্রার্থীরা ছাড়াও নারায়ণগঞ্জের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হোসনে আরা বেগম বাবলি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সামসুল ইসলাম ভুইয়া, আড়াইহাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ রশিদ, নারায়ণগঞ্জের পাবলিক প্রসিকিউটর এস এম ওয়াজেদ আলী খোকন, মেরিনা বেগমসহ আইনজীবীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের সমালোচনা

শামীম ওসমানের এই বক্তব্যে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘণ হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।
মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘শামীম ওসমান একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে এসে নির্বাচন নিয়ে বক্তব্য রেখে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন।’
‘আওয়ামী লীগ এখন আইনজীবী সমিতির নির্বাচনেও প্রভাব বিস্তার করছে।’

ঢাকাটাইমস/২২জানুয়ারি/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত