‘পদ্মাবত’ মুক্তির শেষ বাধাও কাটল

বিনোদন ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১৫:৩৯

সারা ভারতজুড়ে মুক্তি পাওয়ার পথে ‘পদ্মাবত’। রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশ সরকার তাদের রাজ্য থেকে ‘পদ্মাবত’ ছবির মুক্তিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য সেদেশের হাইকোর্টের কাছে আর্জি জানিয়েছিল। মঙ্গলবার সেই আর্জি খারিজ করে দিয়েছে দেশটির শীর্ষ আদালত। কাজেই, ছবিটির মুক্তিতে আর কোনো বাধাই রইল না।

বহুল বিতর্কিত ‘পদ্মাবত’ ছবি আগামী ২৫ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। সেন্সর বোর্ডের পরামর্শ অনুযায়ী নানা পরিবর্তন আনার পর ছাড়পত্র পেয়েছে এই ছবিটি। এমনকী, নামও পাল্টে ফেলেছেন পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালি। ‘পদ্মাবতী’ থেকে পরিবর্তন করে তিনি তার ছবির নতুন নাম রেখেছেন ‘পদ্মাবত’।

এতকিছু করা সত্ত্বেও ছবি মুক্তিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করে রেখেছিল রাজস্থান, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানা সরকার। গত বৃহস্পতিবার এই চার রাজ্যেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে আদেশ দিয়েছিল ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।  

সোমবার ফের শীর্ষ আদালতের কাছে সেই রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে পিটিশন দাখিল করে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশ সরকার। তারা বলেছিল, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা যেমন রাজ্য সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব, তেমনি কোনো ছবির জন্য আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়ার আশঙ্কা থাকলে সেই ছবিকে নিষিদ্ধ করাও রাজ্যে সরকারের দায়িত্ব।’

মঙ্গলবার সেই আর্জি খারিজ করে দিয়ে সুপ্রিম কোর্ট দুই সরকারের ভূমিকাকে কটাক্ষ করেছে। বলেছে, ‘এই দুই রাজ্য নিজেরাই সমস্যা তৈরি করে ছবিটি নিষিদ্ধ করার জন্য শীর্ষ আদালতে এসেছে।’ পাশাপাশি ফের নিজের নির্দেশের কথা পুনরায় বলে আদালত জানায়, ‘সব রাজ্যই যেন আদালতের নির্দেশ মেনে নির্দিষ্ট দিনে ‘পদ্মাবত’ মুক্তি দেয়।’

সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত বহুল বিতর্কিত ‘পদ্মাবত’ ছবিতে অভিনয় করেছেন দীপিকা পাড়ুকোন, রণবীর সিং ও শহিদ কাপুর। ছবিতে অভিনেত্রী দীপিকা অভিনয় করছেন রাণী পদ্মাবতীর ভূমিকায়। দীপিকার এই চরিত্রটি নিয়েই শুরু থেকে বিরোধিতা করে আসছে রাজস্থানের রাজপুত ও করণী সেনারা। তাদের অভিযোগ, ছবিতে ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে এবং রাণী পদ্মাবতীর চরিত্রকে খাটো করে দেখানো হয়েছে।

কিন্তু শুরু থেকেই এই সব অভিযোগই অস্বীকার করে আসছেন নির্মাতা বানসালি। তিনি দাবি করেন, ছবিতে কোনো ইতিহাস বিকৃত করা হয়নি এবং রাণী পদ্মাবতীর চরিত্রকেও খাটো করে দেখানো হয়নি। কিন্তু বানসালির এসব দাবি কানে তোলেনি রাজস্থানের রাজপুত ও করণী সেনারা। তারা সারা রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ শুরু করে। পরে একে একে তাদের সঙ্গে যোগ দেয় আরও তিন রাজ্য গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানা।

ঢাকাটাইমস/২৩জানুয়ারি/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Close