বিএনপি না এলেও নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পাবে: এরশাদ

রংপুর ব্যুরো প্রধান, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:০৯

আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপির সঙ্গে জোট না করার ঘোষণা দিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ওই নির্বাচনে বিএনপি না এলেও তা গ্রহণযোগ্য হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন এরশাদ। তিনি বিএনপির সহায়ক সরকারের দাবি গ্রহণযোগ্য নয় বলেও মন্তব্য করেন।

নির্বাচন সঠিক সময়ে না হওয়ার কোনো কারণ নেই উল্লেখ করে ধানমন্ত্রীর এই বিশেষ দূত বলেন, নির্বাচন সঠিক সময়ে হবে এবং সংবিধান মতোই হবে। তার দল ওই নির্বাচনে জোটগতভাবে লড়বে, না একাই করবে সেই সিদ্ধান্ত এখনো নেননি তিনি। তবে সারা দেশে ৩০০ আসনে প্রার্থী প্রস্তুত রেখেছেন।

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার প্রতি ইঙ্গিত করে সাবেক এই স্বৈরশাসক বলেন, ‘আমাকে তো ছয় বছর জেলে রেখেছে। ৪২টি মামলা দিয়েছে। জেলে থেকে নির্বাচন করেছি। তিনি (খালেদা) যদি অপরাধ করেন তাহলে শাস্তি পাবেন। আর না করলে শাস্তি পাবেন না।’
২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রসঙ্গেও কথা বলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। এরশাদ বলেন, ‘গত নির্বাচনে বিএনপি ছিল না। এবার তো আমি আছি। অতএব তারা নির্বাচনে না আসলেও আমি নির্বাচন করব এবং তা গ্রহণযোগ্যতা পাবে।’

৫ জানুয়ারির নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর এরশাদ তার দলের নেতাদের নির্দেশ দিয়েছিলেন তা তুলে নেয়ার। সেই মোতাবেক অনেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু পরে নানা নাটকীয়তায় তার দলকে নির্বাচনে অংশ নিতে দেখা যায়। নির্বাচন থেকে দূরে থাকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনরত বিএনপি ও তার জোট।

বর্তমান পদ্ধতিতে রাষ্ট্রপতি হওয়ার প্রতি নিজের কোনো আগ্রহ নেই বলে জানান সাবেক এই রাষ্ট্রপতি। কেননা তার মতে, এই রাষ্ট্রপতি বন্দিজীবন কাটান। পুলিশের স্যালুটই শুধু তার পাওয়া। নিজের ইচ্ছায় বের হতে চাইলে পারেন না। কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নিতে পারেন না।
এরশাদ বলেন, ‘আমি যদি রাষ্ট্রúতি হই তাহলে জাতীয় পার্টি থেকে বিচ্ছিন্ন হব। সুতরাং রাষ্ট্রপতি হতে চাই না। যত দিন বেঁচে আছি জাতীয় পার্টিতেই থাকতে চাই। এককভাবে দলকে ক্ষমতায় আনতে চাই। না হলে ক্ষমতার পাশাপাশি থাকবে জাতীয় পার্টি।


বর্তমান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের মেয়াদপূর্তির পরিপ্রেক্ষিতে নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি ভোট হবে বলে জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল বাংলাদেশের ২০তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন।  তার পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ হবে ২৩ এপ্রিলে। সংবিধান অনুযায়ী মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের ৬০ থেকে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন হবে। সেই হিসাবে ভোট হতে হবে ২৪ জানুয়ারি থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা, দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্যসচীব এস এম ইয়াসির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/২৩জানুয়ারি/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত