নারায়ণগঞ্জে সংঘর্ষ: জমা পড়েনি তদন্ত প্রতিবেদন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইস
| আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, ২৩:২১ | প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, ২৩:০৯

উচ্ছেদ করা হকারদের আবার বসানো নিয়ে নারায়ণগঞ্জে সংঘর্ষের ঘটনায় গঠন করা তদন্ত কমিটি নির্ধারিত সাত দিনে প্রতিবেদন দিতে পারেনি। তারা আরও সাত দিন সময় চেয়েছে। আর এই আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া আগামী ২ ফেব্রুয়ারি কমিটিতে প্রতিবেদন দিতে নতুন নির্দেশ দিয়েছেন।

গত ২৫ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে হকার উচ্ছেদ করা হয়। ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান চাইছিলেন হকাররা আবার শহরে ফিরে আসবে। কিন্তু নারাজ সিটি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। ১৫ জানুয়ারি শামীম ওসমান ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করে তোলেন।

আর ১৬ জানুয়ারি সময় সীমা পার হওয়ার পর নারায়ণগঞ্জে শামীম ওসমান সমর্থকদের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষ হয় মেয়র আইভীর সমর্থকদের। এই সংঘর্ষের সময় দুই পক্ষই ইট পাটকেলের পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্রও ব্যবহার করে বলে গণমাধ্যমে ছবি ও প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে।

আওয়ামী লীগের নেতা হয়েও নারায়ণগঞ্জে আইভী ও শামীমের সম্পর্ক দা-কুমড়ার মতো। কিন্তু এই ধরনের সংঘর্ষ কখনও হয়নি দুই পক্ষে। স্বভাবতই বিষয়টি দেশজুড়ে আলোচনা তৈরি করেছে। আর বিরক্ত হয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার অঙ্গীকার জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

আর দোষীদের খুঁজে বের করতে সংঘর্ষের পর দিন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জসিমউদ্দিন হায়দারকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।। কমিটির অন্য দুজন হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান এবং র‌্যাবের সহকারী পরিচালক বাবুল আক্তার।

সময় সীমা পেরিয়ে গেলেও আজ জমা পড়েনি সেই প্রতিবেদন। এ ষিয়ে জানতে চাইলে তদন্ত কমিটির প্রধান জসীম উদ্দীন হায়দার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কীভাবে ঘটনার সূত্রপাত, কারা কারা ছিল, কারা কারা অস্ত্র প্রদর্শন করেছেসহ সার্বিক বিষয়ে খতিয়ে দেখতে হবে। এসব নিয়ে ইতোমধ্যে তদন্ত চলছে।’

‘তাছাড়া ঘটনা কী কারণে ঘটলো সেটাও বের করতে হবে। এটা বেশ কষ্টসাধ্য। অনেকের বক্তব্য নেয়া প্রয়োজন। সেই সব কারণে আমাদের সময় দরকার ছিল।’

‘সে আলোকে সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করতে আরও সাত দিনের সময় চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির আবেদনের প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসক আরও সাত দিনের সময় বাড়িয়ে দিয়েছেন।’

তদন্ত কমিটি সূত্র জানায়, এখনও তারা মেয়র আইভী বা শামীম ওসমানের সাক্ষাৎকার নিতে পারেননি। সংঘর্ষের দুই দিন পর আইভী নগর ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে ঢাকায় এসে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পাঁচ দিন পর মঙ্গলবার তিনি ফিরে গেছেন নারায়ণগঞ্জে।

আর আইভীর অসুস্থতার কারণে সংঘর্ষের এই ঘটনায় তাকে ও শামীম ওসমানকে ঢাকায় তলবের বিষয়টিও আর আগায়নি। ১৯ জানুয়ারি আইভীকে হাসপাতালে দেখতে যাওয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, এই বিষয়টি নিয়ে তিনি এখন আর কথা বলবেন না।

ওই সংঘর্ষের পর নারায়ণগঞ্জে অবশ্য সীমিত পরিসরে হকার ফিরে এসেছে। মেয়রের সম্মতিতেই বিকাল পাঁচটা থেকে ফুটপাতে হকার বসার অনুমতি দিয়েছে প্রশাসনে। তবে নগরীর প্রধান সড়ক বঙ্গবন্ধু রোডের ফুটপাতে তারা বসতে পারবে না।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ সদর আসনের সংসদ সদস্য ও শামীম ওসমানের ভাই জানিয়েছেন, চিকিৎসা শেষে তিনি দেশে ফিরে আগামী মার্চের মধ্যেই হকার সমস্যাটির স্থায়ী সমাধানের চেষ্টা করবেন।

ঢাকাটাইমস/২৪জানুয়ারি/প্রতিদিদি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত