বাসের ভেতর ৫০ পরীক্ষার্থীর স্মার্টফোনে প্রশ্ন

জে জাহেদ, চট্টগ্রাম
| আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:২০ | প্রকাশিত : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৯:৩১
ফাইল ছবি

চলমান এসএসসি পরীক্ষার ফাঁস হওয়া প্রশ্ন কতটা ছড়িয়ে যাচ্ছে তার একটি নমুনা দেখা গেছে চট্টগ্রামের একটি স্কুলে। ওই স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৫০ জনের স্মার্টফোনেই পদার্থবিজ্ঞানের বিষয়ের প্রশ্ন মিলেছে পরীক্ষার আগেই।

মঙ্গলবার নগরীর কোতয়ালি থানাধীন বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রের বাইরে এই ঘটনার প্রমাণ মিলেছে। ওই কেন্দ্রে একটি বাসে করে পরীক্ষা দিতে যাচ্ছিল পটিয়া আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা। আর সেই বাসে তল্লাশি চালায় প্রশাসন। সেখানে গণহারে প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ মেলে।

পরীক্ষা শুরুর আগে বাসে তল্লাশির সময় শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোনে পাওয়া প্রশ্নের সঙ্গে পরে পরীক্ষায় আসা প্রশ্ন হুবহু মিলে যায়।

গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষার প্রতিটি বিষয়েই এমসিকিউ বা নৈর্ব্যত্তিক পরীক্ষার প্রশ্ন আগেভাগেই এসেছে সামাজিক মাধ্যমে। প্রশ্ন ফাঁস হলে পরীক্ষা বাতিল হবে-শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এক সপ্তাহ আগে এমন ঘোষণা দিলেও আটটি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হলেও একটি পরীক্ষাও বাতিল হয়নি।

শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী ঢাকাটাইমসকে জানিয়েছেন, তারা পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, পরীক্ষা শুরুর আগে আগে প্রশ্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এলে খুব বেশি পরীক্ষার্থীর কাছে সে প্রশ্ন যাওয়ার সুযোগ নেই।

এবার পরীক্ষার হলে যাওয়া শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ। তবে প্রশ্ন যেহেতু সামাজিক মাধ্যমে আসছে, সেহেতু হল পর্যন্ত মোবাইল ফোন নিয়ে আসছে পরীক্ষার্থীরা।

আবার চট্টগ্রামে যেটা দেখা গেছে, সেটার সঙ্গে অল্প কিছু পরীক্ষার্থী প্রশ্ন পাচ্ছে-শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তার যুক্তির সঙ্গে সেটার মিল নেই। একটি বাসেই ৫০ জন পরীক্ষার্থী যেখানে প্রশ্ন পেয়েছে, সেখানে বিপুল সংখ্যক পরীক্ষার্থীই যে আগাম প্রশ্ন পাচ্ছে-সেটা এখন অনুমেয়ই।

ওই বাসটিতে তল্লাশির সময় দেখা যয়, বাসের মধ্যে বসে শিক্ষার্থীরা ফাঁস হওয়া প্রশ্নের উত্তর শিখে নিচ্ছিল। এ সময় ম্যাজিস্ট্রেট বাসটিতে তল্লাশি চালিয়ে শিক্ষার্থীর ব্যাগ থেকে মোবাইল ফোন উদ্ধার করেন যেগুলোতে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন ছিল।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, এই ঘটনার পর পরীক্ষার্থীদেরকে বিশেষ পাহারা দিয়ে পরীক্ষা নেয়া হয়। পরে ঘটনাস্থলে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের একটি টিম ঘটনাস্থলে যায়।

ঢাকাটাইমস/১৩ফেব্রুয়ারি/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বন্দর নগরী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত