দোলনকে এমপি চান আলফাডাঙ্গার ইউপি চেয়ারম্যানরা

আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০৮ | প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২২:৪৬
আলফাডাঙ্গা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম আহাদুল হাসান আহাদ

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর-১ আসন থেকে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য আরিফুর রহমান দোলনকে এমপি পদে দেখতে চান আলফাডাঙ্গা উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানরা।

বৃহস্পতিবার ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বেজীডাঙ্গা কাজী আমেনা ওয়াহেদ উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজিত বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তারা এ কথা জানান। অনুষ্ঠানের  প্রধান অতিথি ছিলেন আরিফুর রহমান দোলন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি আলফাডাঙ্গা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম আহাদুল হাসান আহাদ বলেন, আজকে আমি বলি, আলফাডাঙ্গার মানুষ নৌকার কথা শুনলে পাগল হয়ে যায়। আমি সেই মানুষকে বলবো। এই আরিফুর রহমান দোলন আলফাডাঙ্গা হাই স্কুলের ছাত্র ছিল। মেট্রিক পাশ করার পর বিদেশে লেখাপড়া করেছে। তার সাথে আমার চিঠিতে কথাবার্তা হত। আমি সেদিন মনে করেছিলাম, এই ছোট্ট শিশু আগামীদিনে এই-বোয়ালমারী-আলফাডাঙ্গা-মধুখালীর কর্ণধর হবে। আজ আমাদের সেই সুযোগ এসেছে।  

 দোলন লেখাপড়ায় অত্যন্ত ভালো ছাত্র, মেধাবী ছাত্র ছিল। ইচ্ছা করলে সরকারি ভাল চাকরি করতে পারতো। কিন্তু সে করে নাই। দোলনের একটি স্বপ্ন, ওর পূর্বপুরুষের শত বছরের মানুষের কল্যাণ করার যে ইতিহাস রয়েছে তা ধরে রাখা।
দোলন স্বপ্ন দেখেছে, আমার বংশধর এই অঞ্চলের মানুষকে দিতে এসেছে। আমি দোলন কোন কিছু নিতে আসি নাই। সেই জন্য আমরা তাকে স্বাগত জানাই, ধন্যবাদ জানাই।

আজ ও ভালো চাকরি করতে পারতো। ও কেন সমাজ সেবায় এসেছে? আপনারা দেখেছেন, ফরিদপুর-১ আসনে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছে। যে ভালো শিক্ষার্থী টাকার অভাবে লেখা-পড়া করতে পারছে না তাদের জন্য কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে বৃত্তির ব্যবস্থা করে দিয়েছে আরিফুর রহমান দোলন। তাহলে কি বলবো দোলন এমপি হলে পার্সেন্টিজ খাবে? অবশ্যই না। আমি অনেক এমপি দেখেছি যেগুলি পার্সেন্টিজের। আমরা আগামীদিনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বলবো পার্সেন্টিজবিহীন যদি কোন নেতা বাছতে হয় সেটা আরিফুর রহমান দোলন। এটা আমি মনে করি।

আমি মনে করি ১৯৭১ সালের পর থেকে একমাত্র আলফাডাঙ্গার মানুষই নৌকার মাঝিকে জয়যুক্ত করেছে। সে কারণে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বলি, প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সভানেত্রী আপনি যদি মনে করেন আলফাডাঙ্গাই নৌকা জিতিয়েছে সেক্ষেত্রে আলফাডাঙ্গার সন্তান ব্যতিত আগামী দিনে আমরা অন্য কাউকে মানতে চাই না।

ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা কৃষকলীগের সদস্য সচিব শেখ শহীদুল ইসলাম বলেন, আরিফুর রহমান দোলন যেভাবে এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রাখছেন। আমি বিশ্বাস করি, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন পাবেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তাকে মনোনয়ন দেবেন।

টগরবন্দ ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপন বলেন, আমি এই দুই বছর চেয়ারম্যানের দায়ীত্ব পালন করছি কিন্তু আমরা ভালো নেই। কেন? আমাদের অভিভাবক নাই। আমরা অনেক পরে হলেও একজন ভালো অভিভাবক পেয়ে গেছি। তিনি হলেন আরিফুর রহমান দোলন। আপনারা জানেন, আমাদের এই আলফাডাঙ্গার কোনো উন্নয়ন নাই। কেন নাই? আমাদের একজন এমপি নাই। যদি আমরা একজন এমপি পেতাম এই আলফাডাঙ্গা সোনার আলফাডাঙ্গা হয়ে যেত। আপনারা জানেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই আলফাডাঙ্গাকে খুব ভালোবাসেন। কিন্তু আমাদের যে এমপি আছেন উনি এই আলফাডাঙ্গাকে কতটুকু ভালোবাসেন আমার জানা নাই। তবে আমি জানি আমার ইউনিয়নবাসী ভালো নাই। আমরা আলফাডাঙ্গার মানুষ আশা করি আগামী নির্বাচনে আরিফুর রহমান দোলন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন। তার জয়ের মাধ্যমে আলফাডাঙ্গার কোনো সন্তান এমপি হয়ে সংসদে যাবে।

এছাড়াও গোপালপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইনামুল হাসান ও বুড়াইছ ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম, ফরিদপুর জেলাপরিষদ মহিলা সদস্য বিউটি বেগম আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আগামী জাতীয় নির্বাচনে আলফাডাঙ্গার সন্তান আরিফুর রহমান দোলনকে মনোয়ন দেওয়ার আহবান জানান।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুজ্জামান মাসুদ।

(ঢাকাটাইমস/১৫ফেব্রুয়ারি/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত