শিশু সাবিহাকে বাঁচাতে অসহায় বাবার আকুতি

বগুড়া প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:৩২ | প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৯:৪৮

ডাক্তার সময় দিয়েছে মাত্র ১৫ দিন। এই প্রতিবেদন লেখা শুরুর আগেই দিন ১২ দিন গত হয়েছে। টাকা লাগবে মাত্র দুই লাখ। এতেই বেঁচে যেতে পারে ছোট্ট শিশু সাবিহা। কোটি মানুষের কাছে এই টাকার পরিমাণ অতিনগণ্য হলেও গরিব বাবা আবদুস সালামের কাছে এই টাকা জোগাড় করা অনেক কঠিনসাধ্য ব্যাপারে। তাই মেয়ের জীবন বাঁচানোর জন্য মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন করেছেন তিনি।

ছোট্ট শিশু সাবিহা বয়স তিন বছর। তার হার্ট ফুটো হয়ে গেছে। জন্ম থেকেই Ventricular Septal Defect (VSD) নামক হৃদরোগ নিয়ে বেড়ে ওঠে সে। মাঝে মাঝে মাকে বুকের স্থানটা দেখিয়ে বলতো মা এখানে ব্যথা করে। বাবাকে বলতো, বাবা এখানে ব্যথা করে। বাবা-মা প্রথমে তার সমস্যার গভীরতা বুঝতে পারেনি। তারপর যখন সে প্রায়’ই তার বুক দেখিয়ে বলতে থাকে এখানে ব্যথা করে, তখন বাবা তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান।

গত বছরের অক্টোবরে শিশুটির বাবা তার মেয়েকে নিয়ে বগুড়ায় হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হয়। তারপর ডাক্তার তার বাবাকে জানায় তার মেয়ে জন্মগতভাবেই হৃদরোগে আক্রান্ত। তারপর মেয়ের উন্নত চিকিৎসার জন্য সিরাজগঞ্জের খাজা ইউনুছ আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই শিশু সাবিহা’র চিকিৎসা চলছে।

সাবিহার ওপেন হার্ট সার্জারি করতে পারলেই সে সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন মেডিকেলের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. লুতফর রহমান। চিকিৎসার জন্য বেশি দিন সময় হাতে নেই। ১৫ দিনের মধ্যে তার সার্জারি করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে অপারেশন না করলে আর কিছুই করার থাকবে না।

বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার তালোড়া তালুকদার পাড়া গ্রামের কাগজ মিলের শ্রমিক আব্দুস সালামের মেয়ে সাবিহা জানে না অপারেশনটা করতে না পারলে সে আর পৃথিবীর আলো দেখতে পারবে না। এ পর্যন্ত তার দরিদ্র বাবা তার চিকিৎসার জন্য ২০ হাজার টাকার মতো খরচ করেছেন। কিন্তু তার ওপেন হার্ট সার্জারি করতে এক লাখ ৬০ হাজার টাকা লাগবে। আর ওষুধপথ্যসহ আনুসাঙ্গিক খরচ মিলিয়ে যার পরিমাণ দাঁড়াবে দুই লাখের মতো, যা তার গরিব বাবার পক্ষে যোগাড় করা সম্ভব না। তাই মেয়ের চিকিৎসার জন্য দেশের বিত্তবান মানুষদের কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে সাবিহাকে বাঁচাতে ‘আলোকিত বগুড়া’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কাজ করছে। তারা বগুড়া ‘ হেলথ সাপোর্ট প্রোগ্রাম’ এর ব্যানারে শহরের কলেজে কলেজে শিক্ষার্থীদের কাছে সাহায্য চাইছে সাবিহা’র জন্য।

আলোকিত বগুড়ার সমন্বয়ক মাসুদ রানা জানালেন, ‘১৫ দিন খুব কম সময়। এই সময়ের মধ্যে সাবিহার অপারেশন করতেই হবে। আমরা সাবিহার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের সাথে যদি সমাজের বিত্তবান কেউ একজন এগিয়ে আসতো তাহলে ওই মাসুম বাচ্চাটি পৃথিবীতে বেঁচে থাকতে পারতো।’

সাবিহা’র বাবা আব্দুস সালাম জানান, ‘ডাক্তার স্যার বলেছেন হার্টের অপারেশন করা লাগবি। টাকা লাগবি ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা। আরো ওষুধপত্র আছে। কাগজের ফ্যাক্টরিত কাম করি। জমিজমাও নাই। মেয়ের চিকিৎসার জন্য এতো টাকা কই পাই। টাকা না হলে মেয়েটাকে বাঁচাতে পারবো না।’ মেয়েকে বাঁচাতে দেশের হৃদয়বান বিত্তশালী ব্যক্তিদের কাছে সাহায্যের আকুল আবেদন করেছেন তিনি। হয়তো তাদের সহযোগিতায় বেঁচে যেতে পারে অবুঝ এই শিশুটি। আর ওই শিশুর হাসিতে উজ্জ্বল হয়ে উঠবে বাবা-মার ঘর। শিশুটিকে সহায়তা করতে চাইলে আপনার আর্থিক সাহায্য পাঠাতে পারেন নিচের ঠিকানায়।

মো. আব্দুস সালাম, সঞ্চয়ী হিসাব নং: 20501120205868808 ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, বগুড়া শাখা।

অথবা ০১৭১৭৮৫২৬৮২ নম্বরে বিকাশ করেও শিশুটিকে সহায়তা করা যাবে।

ঢাকাটাইমস/২৩ফেব্রুয়ারি/প্রতিনিধি/এমআর 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত