হরিজন পরিবারের ওপর পাশবিক নির্যাতনে মামলা

জামালপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:২৪

জামালপুরে মেলান্দহের কুলিয়ায় হরিজন পরিবারের সদস্যদের পাশবিক নির্যাতন ও এক কিশোরীর শ্লীলতাহানি অভিযোগ উঠেছে। যুবলীগ নামধারী কতিপয় যুবকের এই নির্যাতনের ঘটনায় মেলান্দহ থানায় একটি মামলা হয়েছে।

মেলান্দহ কুলিয়ার শ্রী প্রদীপ বাসফোর জানান, কুলিয়ার নান্টু ও হাসেমের নেতৃত্বে ৫/৬ যুবক শুক্রবার মধ্যরাতে তার বাড়িতে গিয়ে চোলাই মদের জন্য তাকে চাপ দেয়। সে মদ দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাকেসহ তার স্ত্রী শ্রীমতী সীতা রানী, তার ছেলে বিপ্লব কান্ত বাসফোর এবং তার ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে প্রীতি রানী বাসফোরকে পিটিয়ে গুরুতরভাবে আহত করে। এসময় ওই যুবকরা প্রীতি রাণীর শ্লীলতহানি করে। 

প্রদীপ বাসফোরের স্ত্রী শ্রীমতি সীতা রানীর অভিযোগ, এই লোকগুলো মাঝে মাঝেই মধ্য রাতে তাদের বাড়িতে এসে চোলাই মদের জন্য বিরক্ত করেন এবং মাসে মাসে চাঁদাও দাবি করেন। তার স্কুল পড়ুয়া মেয়ের প্রতিও তাদের দৃষ্টি রয়েছে। এসব কারণে তারা সব সময় ভীতির মধ্যে বসবাস করে আসছে।

প্রতিবেশীরা হরিজন সম্প্রদায়ের প্রদীপের পরিবারের উপর এই নির্যাতনের ঘটনা ন্যাক্কারজনক উল্লেখ করে এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

এ বিষয়ে নান্টু ও হাসেমের সাথে কলা বললে তারা এই প্রতিবেদককে বলেন, প্রদীপ বাসফোর এলাকায় চোলাই মদ বিক্রি করে আসছিল। এসব বিষয় নিয়ে শুক্রবার মধ্যরাতে তাকে নিষেধ করতে গেলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শুধু ধাক্কাধাক্কি হয়। মধ্যরাতে তার বাসায় যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি তারা।

এই ঘটনায় প্রদীপ বাসফোর বাদী নান্টু, হাসেম, রাস্টন, হেলাল ও করিমকে আসামি করে মেলান্দহ থানায় একটি মামলা করেন।

মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ মাজহারুল করিম এই প্রতিবেদককে বলেন হরিজন সম্প্রদায়ের প্রদীপ বাসফোরের মারধোরের ঘটনায় মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৪ফেব্রুয়ারি/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত