মানুষের অধিকারের জন্য লড়াই করে মরবো: দোলন

আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৯ মার্চ ২০১৮, ১৬:১৮ | প্রকাশিত : ০৯ মার্চ ২০১৮, ০৮:৩৯

বাংলাদেশ কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য আরিফুর রহমান দোলন বলেছেন, ‘আমি মানুষের অধিকারের কথা বলছি। আমি নিজের জন্য কিছুই চাই না। আমি চাচ্ছি-মানুষ যেন তার ন্যায্য পাওনা পায়। সেই অধিকারের কথা বলছি বলে আমার সঙ্গে শত্রুতা করা হচ্ছে। জন্মিলে মৃত্যু অনিবার্য। যেহেতু মরবোই, মানুষের অধিকারের জন্য লড়াই করেই মরবো, আপস করে মরতে রাজি নই। আমি এমপি হই আর না হই জনগণের সঙ্গে ছিলাম, আছি এবং থাকবো ইনশাল্লাহ।’

বৃহস্পতিবার বিকালে ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার ধুলজুড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাজ সেবামূলক সংস্থা কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান বলেন, ‘আপনারা জানেন এখানে উপজেলার চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা আছেন। এই উপজেলায়, পার্শ্ববর্তী উপজেলায় অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্যে সরকারের স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে দফায় দফায় অর্থ বরাদ্দ আনছি। নিজের কাজ ফেলে, সময় নষ্ট করে, অর্থ অপচয় করে এলাকার উন্নয়নের জন্যে দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছি। অথচ এই কাজ যাদের করার কথা তারা কিন্তু এই দায়িত্ব পালন করছে না। কী করছে? দোলন সাহেব মানুষের অধিকারের কথা বলছে, বেড়ে গেছে, সাইজ করে দাও। আল্লাহ সাড়া কেউ সাইজ করতে পারে না। ভয় পাই না। কী হবে? মৃত্যু? আমিতো আগেই বললাম, জন্মিলে মৃত্যু অনিবার্য, কিন্তু যদি মানুষের অধিকার আদায়ের করতে গিয়ে সেটি হয় নিজেকে গৌরবমণ্ডিত মনে করবো।’

ঢাকাটাইমস ও সাপ্তাহিক এই সময় সম্পাদক আরিফুর রহমান বলেন, ‘শুধু একটি কথাই বলবো- নির্বাচিত প্রতিনিধি আমি নই। জনগণের জন্যে কাজ করতে গেলে অবশ্ব্যই নির্বাচিত প্রতিনিধি হতে হয়, সুবিধা হয়। এরপরেও চেয়েচিন্তে বিভিন্ন জায়গা থেকে এই এলাকার উন্নয়নে জন্যে কাজ করছি। আর এ কাজ করতে পারছি তার কারণ, ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ। শেখ হাসিনার সরকারের আমলেই এ অঞ্চলের উন্নয়ন হয়, অন্য সরকারের আমলে কোনো উন্নয়ন হয় না। আপনারা শেখ হাসিনার সরকারের পাশে থাকুন।’

দোলন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আর এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আছেন ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তার সুনজরের কারণেই এ অঞ্চলের রাস্তা-ঘাট, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, কবরস্থান ও অবকাঠামোগত উন্নয়নের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।’

বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম এম জালাল উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন আলফাডাঙ্গা সদর চেয়ারম্যান এ কে এম আহাদুল হাসান আহাদ, আলফাডাঙ্গা আদর্শ কলেজের অধ্যক্ষ মোরশেদুর রহমান তাজ, বোয়ালমারী উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা লিটন মৃধা প্রমুখ।

ঢাকাটাইমস/০৯মার্চ/প্রতিনিধি/জেবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত