নেপালি ছাত্রী শ্রেয়া স্মরণে কুমুদিনী মেডিকেলে শোক র‌্যালি

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ মার্চ ২০১৮, ২১:৩৭

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ছাত্রী শ্রেয়া ঝাঁ’র স্মরণে শোক র‌্যালি করেছেন কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ সময় শ্রেয়া ঝাঁ’র স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে এই শোক র‌্যালি বের করা হয়।

র‌্যালিটি কলেজ চত্ত্বর থেকে শুরু হয়ে হাসপাতাল রোড ঘুরে মেডিকেল কলেজের একাডেমিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

শ্রেয়া ঝাঁ নেপালের মাহোত্রারী সানফা-৩ এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তার পিতার নাম লাকসমান ঝাঁ ও মাতার নাম মাধুরী ঝাঁ। তিনি কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজে পঞ্চম বর্ষের এমবিবিএস কোর্সের ছাত্রী ছিলেন।

কুমুদিনী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আব্দুল হালিমের সঙ্গে কথা হলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, শ্রেয়া ঝাঁ অনেক মেধাবী ছাত্রী ও শান্তশিষ্ট স্বভাবের ছিল।

শ্রেয়া ঝাঁর মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন কুমুদিনী ওযেলফেয়ার ট্র্যাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা, কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্র্যাস্টের শিক্ষা পরিচালক প্রতিভা মুৎসুদ্দি, পরিচালক শ্রী মতি সাহা, কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার।

মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানা যায়, রবিবার মেডিকেল কলেজের টার্ম পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সময় নেপাল থেকে শ্রেয়া ঝা’র দাদার মৃত্যু সংবাদ আসে। সংবাদ পেয়ে তিনি অধ্যক্ষ বরাবর ছুটির আবেদন করেন। ছুটি মঞ্জুর হলে পরদিন সোমবার সকালে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে নেপালের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।

দুপুরে কাঠমান্ডুর ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়।

শ্রেয়ার সহপাঠী পিও কর্মকার ও তার স্বদেশী নেপালি শিক্ষার্থীরা জানান, শ্রেয়া ঝাঁ সদা হাসোজ্জ্বল থাকত। সবার সাথে মিলেমিশে থাকত এবং সে আমাদের খুব ভাল একজন বন্ধু ছিল।

(ঢাকাটাইমস/১৩মার্চ/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত