মাদারীপুরে এলাকাবাসীর উদ্যোগে স্বেচ্ছায় সড়ক মেরামত

নিজস্ব প্রতিবেদক, মাদারীপুর
 | প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৮, ২০:৪১

মাদারীপুর সদর উপজেলার সামনে থেকে কুলপদ্বী নৌকাঘাট পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়ক কুলপদ্বী যুব সমাজের উদ্যোগে মেরামত করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, কুলপদ্বী চৌরাস্তা থেকে কালকিনি পর্যন্ত সড়কটি মূলত মাদারীপুর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার মেরামত না করায় রাস্তাটিতে বিভিন্ন অংশে ভেঙে যায় এবং বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। যাতে রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনসহ যাত্রীদের পড়তে হয় চরম দুর্ভোগে। প্রতিনিয়তই ঘটছে দুর্ঘটনা। রাস্তার বেহাল অবস্থা সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অফিসে একাধিকবার জানালেও তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

তিন-চার দিন পূর্বে থেকে এলাকার যুবকরা মিলে টাকা তুলে ইট, বালু কিনে রাস্তার মেরামত কাজ শুরু করে।

শনিবার এলাকাবাসীর সাথে রাস্তা মেরামতের কাজে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয় মাদারীপুর পৌরসভা। পৌরসভার পক্ষ থেকেও ইটের খোয়া, বালু ও রোলার মেশিন দিয়ে রাস্তা মেরামতে সহযোগিতা করা হচ্ছে।

এলাকা যুবক সবিজ খান, শান্ত, আবুল হাসান, টুটুল, রায়হান বলেন, মাদারীপুর শহরের সাথে উপজেলা পরিষদের সামন থেকে কালকিনি উপজেলায় যাতায়াতের জন্য এই রাস্তাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সদর ও কালকিনি উপজেলার হাজার হাজার মানুষ এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করে। কিছুদিন পূর্বে ভাঙা রাস্তা দিয়ে আসার সময় রাস্তার ঝাকিতে একজন গর্ভবর্তী মহিলার বাচ্চা প্রসাব হয়েছে। তাছাড়া রাস্তার মধ্যে বড় বড় গর্ত থাকায় ইজিবাইক, ভ্যান, রিকশাসহ সকল ধরনের যানবাহন চলাচলে খুবই সমস্যা হতো। মাঝে মধ্যে ঘটতো দুর্ঘটনা। সড়ক অফিসে রাস্তা মেরামতের জন্য একাধিকবার জানালেও তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই আমরা এলাকার যুবকরা মিলে স্বেচ্ছায় রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু করি।

কুলপদ্বী এলাকার বাসিন্দা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বলেন, রাস্তাটি অনেক দিন ধরেই ভেঙে গিয়েছে। রাস্তার মধ্যে বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহনসহ মানুষের চলাচলে মারাত্মক সমস্যা সৃষ্টি হতো। রাস্তা মেরামতের জন্য এলাকার যুবকসহ আমরা সকলে টাকা দিয়ে ইট, বালু ক্রয় করে নিজেরা স্বেচ্ছায় রাস্তা মেরামত করছি।

এ ব্যাপারে মাদারীপুর সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ নুর নবী তরফদার কথা বলতে রাজি হননি।

(ঢাকাটাইমস/১৮মার্চ/এসটি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত