ইতালিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন

ইউরোপ ব্যুরো প্রধান, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ মার্চ ২০১৮, ২১:৫৮ | প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৮, ২১:০০

ইতালির মিলান কনস্যুলেটের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত হয়েছে। শনিবার স্থানীয় একটি হলরুমে আলোচনা সভা, শিশু কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং জন্মদিনের কেক কেটে জাতির জনকের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, সনাতন ধর্ম ও বাইবেল পাঠ এবং শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তর্পক অর্পণ করেন কনসুলেটের কনসালসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

রাষ্ট্রপ্রতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন কনসাল শামসুল আহসান ও ভাইস-কনসাল রফিকুল করিম।

আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন- কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল রেজিনা আহমেদ।

লোম্বার্দিয়া আওয়ামী লীগ নেতা আকরাম হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক হানিফ শিপন, জামিল আহমেদ, তুহিন মাহমুদ, আইন সম্পাদিকা পলি আক্তার, মহিলা সম্পাদিকা আসমা জাকির, যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনায়েত হাওলাদার, রুহুল আমিন, কাওসার আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে শিশু কিশোরদের অংশগ্রহণে দলীয়, একক সংগীত, নৃত্য পরিবেশিত হয়। শিশু-কিশোরদের পরিবেশনায় উপস্থিত সকলেই প্রশংসা করেন। 

কনস্যাল জেনারেল তার বক্তব্যে বলেন, ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ তিনি জাতির জনক জন্মগ্রহণ করেছেন। তিনি জন্ম না নিলে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। জাতির পিতা শিশুদের খুব আদর করতেন। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন শোষণমুক্ত একটি বাংলাদেশ।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল সুন্দর দারিদ্রমুক্ত একটি বাংলাদেশ গড়ার। তিনি চেয়েছিলেন সবাই সুন্দরভাবে জীবনযাপন করবে।

তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ছোট শিশু শেখ রাসেলকে নরপশুরা হত্যা করেছে। শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে হয়তো একদিন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হতেন। সেই রাসেলকে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষাব্যবস্থাকে সহজ করে দিয়েছেন। সবাই যেন শিক্ষাগ্রহণ করতে পারে। তিনি পরামর্শ দেন পিতামতার কাছে বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস ও শিক্ষার জন্য।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ী শিশুদের হাতে কনসাল জেনারেল রেজিন আহমেদ সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট তুলে দেন।
ছাত্রলীগ: সর্বকা‌লের সর্ব শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মবাষিকী উদযাপন ক‌রে‌ছে বাংলা‌দেশ ছাত্রলীগ ইতালি শাখা।

শনিবার ১৭মার্চ স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় নাপলির একটি হল রুমে অনারম্ভর পরিবেশে কেকে কাটার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ইতালি শাখার উদ্যোগে জাতির জনকের জন্মদিন পালন ও আলোচনা সভা হয়।

ইতালি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন হাওলাদারের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিন শাহারিয়া পরিচালনায় বক্তব্য দেন- সুমন কাজী, শাওন মাহমুদ, সাকিব হাসান, আব্দুল গাফফার, শেখ রানা, কাউসার, রফিক, সম্রাট, মস্তফা, বাবলু, রফিকুল, উজ্জ্বল, মফিজুল, রুবেল, সিপক, দিপক, করিম, সফিকুল, আহাদ, সুমন, ওয়াসিম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, এইদিনে বাংলার সেই অবিসংবাদিত নেতার জন্ম হয়েছিলেন- যার জন্ম না হলে হয়তো জন্ম হতো না লাল সবু‌জের পতাকার বাংলা‌দেশ।

তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের  বজ্রকণ্ঠের ভাষণ কাঁপিয়ে বাংলার মু‌ক্তির ডাক দি‌য়েছি‌লেন। আজ সেই ভাষণ এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন উন্নয়নশীল দেশ আজ বিশ্ব স্বীকৃত।

বাংলাদেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে আগামী নির্বাচ‌নে নৌকার কোন বিকল্প নেই। নৌকার জোয়ার বহমান রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সবাইকে বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান নেতৃবৃন্দ।

পরে বঙ্গবন্ধুর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

(ঢাকাটাইমস/১৮মার্চ/সিকে/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

প্রবাসের খবর এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর