মুক্তিযোদ্ধার সনদ জালিয়াতি: এসপি কার্যালয়ের কর্মী গ্রেপ্তার

প্রতীক ওমর, বগুড়া
 | প্রকাশিত : ১৮ মার্চ ২০১৮, ২২:০১
প্রতীকী ছবি

মুক্তিযোদ্ধা সনদ জালিয়াতি করে কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেয়ার চেষ্টায় জড়িত থাকার অভিযোগে জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার অফিসের স্টেনোগ্রাফারসহ আট জনকে গ্রেপ্তার করেছে বগুড়ার পুলিশ পুলিশ। এই চক্রটি পাঁচ জন নিয়োগপ্রার্থীর কাছ থেকে ৫০ লাখ টাকারও বেশি আদায় করেছিল।

তিনদিন ধরে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে এদেরকে গ্রেপ্তারের পর শনিবার রাতে তাদেরকে বগুড়া সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়। পরে বগুড়া পুলিশ লাইন্সের রিজার্ভ অফিসার আবু তাহের মামলা করেন।
গ্রেপ্তার আট জন হলেন: জয়পুরহাট পুলিশ সুপার কার্যালয়ের স্টেনোগ্রফোর রফিকুল ইসলাম, বগুড়ার সোনাতলার ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান, জাকির হোসেন, মিল্লাত হোসেন, আইনুর ইসলাম, জুয়েল হাসান, আল-আমিন ও মনির হোসেন। এর মধ্যে পাঁচ জন নিয়োগপ্রার্থী

এদের মধ্যে রফিকুলকে মামলার প্রধান আসামি করা হয়েছে। তিনি এর আগে বগুড়া পুলিশ সুপারের অফিসে কর্মরত ছিলেন। মামলার আসামি মোট ১২ জন।

গত গত ৬ মার্চ বগুড়া পুলিশ লাইন্স মাঠে পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়। শারীরিক ও লিখিত পরীক্ষা শেষে ১২ মার্চ লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষা চলাকালে রাত সাড়ে আটটায় আসামিদের মধ্যে মিল্লাত হোসেন, আইনুর ইসলাম, জুয়েল হাসান, আল-আমিন ও মনির হোসেন মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংক্রান্ত সনদ দাখিল করেন।

সনদ দেখে নিয়োগ বোর্ডের সদস্যদের সন্দেহ হলে তাদেরকে মৌখিক পরীক্ষা পরে নেয়া হবে বলে জানানো হয়। এরপর গোপন অনুসন্ধান করে পুলিশ জানতে পারে এসব সনদ জাল।

এরপর ১৫ মার্চ থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একাধি দল এতে জড়িতদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান  শুরু করে। প্রথমে গ্রেপ্তার করা হয় নিয়োগ প্রার্থী মিল্লাত হোসেন, আইনুর ইসলাম, জুয়েল হাসান, আল-আমিন ও মনির হোসেনকে।

তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে গোয়েন্দা পুলিশ জানতে পারে মুক্তিযোদ্ধা সনদ জাল করার মাধ্যমে পুলিশে নিয়োগ পাইয়ে দেয়া চক্রের মুল হোতা জয়পুরহাট পুলিশ সুপার কার্যালয়ের স্টেনোগ্রাফার রফিকুল ইসলাম।

পুলিশ জানায়, রফিকুল ও তার ছোট ভাই ওয়াসিম রেজা পাঁচ জন প্রার্থীর প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০ লাখ থেকে সাড়ে ১১ লাখ করে আদায় করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক আসলাম আলী জানান, জালিয়াতী চক্রের ১২ জনের নামে থানায় মামলা হয়েছে। এদের মধ্যে আট জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

ঢাকাটাইমস/১৮মার্চ/প্রতিনিধি/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত