‘কী করব? এখন কেঁদে লাভ আছে?’

ক্রীড়া প্রতিবেদক, কলম্বো, শ্রীলঙ্কা থেকে
| আপডেট : ১৯ মার্চ ২০১৮, ০৮:৩৪ | প্রকাশিত : ১৯ মার্চ ২০১৮, ০৮:০৯

 হৃদয় ভাঙা হারেও সাকিব নির্ভার। মাঠের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠনে ঠিকমত কথা বলতে পারেননি দর্শকদের চেচামেচিতে। সাকিবকে যখন ডাকা হয়েছে প্রেদাদাসার দর্শকরা ইচ্ছা করেই তখন ওই আচরণ করেছে। মাঠের পুরষ্কার বিতরণী পর্ব শেষ করে সাকিব আসলেন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে। সারা ম্যাচে যারা ভারতের জন্য সারাক্ষণ গলা ফাটিয়েছেন, তাদের দু’হাত নাড়িয়ে অভিবাদন দিতে দিতে আসছিলেন মাঠের মধ্য দিয়ে। জবাবে শ্রীলঙ্কান দর্শকরা দিলেন দুয়োধ্বনি!

সদ্য বেদানাদায়ক হারের কষ্ট, দর্শকদের বাজে আচরণ, সাকিবের তো মন খারাপ করে সংবাদ সম্মেলনে আাসার কথা। কিন্তু সাকিব বলেই কঠিন পরিস্থিতি সামলে হাশিমুখে। কীভাবে সম্ভব? হাসি মুখে উত্তর,‘কী করব? এখন কেঁদে লাভ আছে? আবেগ থাকতে পারে। যে পরিস্থিতিটা গেছে সেটা তো আপনি ফেরাতে পারবেন না। পরে যদি আবার সুযোগ পাই, এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে যদি কিছু করতে পারি। আমরা অনেকগুলো ক্লোজ ম্যাচ হারলাম, এ নিয়ে পাঁচটা ফাইনাল হারলাম। সবগুলোই ক্লোজ ছিল। ২০১২ সালের এশিয়া কাপের ফাইনাল অনেক কাছাকাছি গিয়েছিলাম। এটা আরও বেশি ক্লোজ। ঠিক আছে, এগোচ্ছি তো । আমরা এগোচ্ছি।

এই নিয়ে পাঁচবার ফাইনালে খেললো বাংলাদেশ। কিন্তু শিরোপা অধরাই। কেন হচ্ছে। কেন অল্পের জন্য বারবার হারতে হচ্ছে? এটা কী স্নায়ুর চাপ? সাকিব বললেন,‘ এটা কি স্নায়ুর চাপ নাকি ভাগ্য, সেটা বলা মুশকিল। ধরেন, এক ওভারে ৯ রান দরকার ছিল (২০১২ এশিয়া কাপের ফাইনালে), খুব বেশি কিন্তু নয়। হয়নি। আবার আজকে শেষ বলে ৫ রান, বেশিরভাগ সময়ই করা যায় না। ১০ বারের মধ্যে হয়ত ৬-৭ বারই বোলার পারবে। শেষ ২ ওভারে ৩৫ রান থাকলেও বেশিরভাগ সময়ই বোলিং দলের জেতার কথা। স্রেফ হয়নি আজ। এটাকে আমি স্নায়ুর চাপ বলব না। ওদের ব্যাটসম্যান বেশি ভালো খেলেছে। ভাগ্যও ছিল না পক্ষে।’

 (ঢাকাটাইমস/১৯মার্চ/ডিএইচ)

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত