আমাকেও ধর্ষণ ও হত্যা করা হতে পরে: আসিফার আইনজীবী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১৮:৫৪

ভারতের কাশ্মিরে আট বছরের শিশু আসিফা বানুকে ধর্ষণের পর হত্যা করে ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। এরপরই আসিফার ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে `জাস্টিস ফর আসিফা’ নামের হ্যাশট্যাগ। জানুয়ারিতে ঘটা এ ঘটনা নিয়ে তেমন উত্তেজনা না হলেও গত মঙ্গলবার অভিযোগপত্র দেওয়ার পর সোচ্চার হয়ে ওঠে সারা ভারত।

আসিফার হয়ে আদালতে লড়ছেন আইনজীবী দীপিকা এস রাজাওয়াত। এ কারণে তাকেও ধর্ষণ করে হত্যা করা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি। এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে ব্যক্তিগত সুরক্ষার আবেদন করবেন বলে জানিয়েছেন দীপিকা।

আদালতে দায়ের করা মামলার বিবরণ অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে কাশ্মিরের কাঠুয়ার উপত্যকায় ঘোড়া চরানোর সময় তাকে অপহরণ করা হয়। আসিফা নামের ওই শিশুকে অপহরণের জন্য অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা ও দেবীস্থান মন্দিদের হেফাজতকারী সানজি রাম তার ভাগ্নে ও একজন পুলিশ সদস্যকে নির্দেশ দেন। নির্দেশ বাস্তবায়নের পর সাত দিন ধরে মন্দিরে আটকে রেখে একদল হিন্দু পুরুষ আসিফাকে ধর্ষণ করে। পরে মাথায় পাথর মেরে ও গলা টিপে হত্যা করা হয় তাকে। আসিফাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আটজনকে অভিযুক্ত করে ভারতের আদালত। মধ্য জানুয়ারির ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গত মঙ্গলবার অভিযোগপত্র জনসম্মুখে আনা হয়।

আইনজীবী দীপিকা এস রাজাওয়াত জানান, ''আসিফার পরিবারের পক্ষে লড়ার কারণে আমাকে হুমকি-ধামকি দেওয়া হচ্ছে। আমি জানি না কতদিন জীবিত থাকতে পারব। আমি ধর্ষণের শিকার হতে পারি...আমার সম্মান ক্ষুণ্ণ করা হতে পারে, আমার ক্ষতি করা হতে পারে। গত শনিবার আমাকে হুমকি দিয়ে বলেছে, 'আমরা তোমাকে ক্ষমা করব না'। আমি সুপ্রিম কোর্টকে বলব যে আমি হুমকিতে আছি।''

সোমবার কাঠুয়ার দায়রা জজ আদালতে আসিফাকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় বিচার শুরু হয়েছে। তবে আসিফার পরিবারও নিরাপত্তা শঙ্কায় ভুগছে। মামলার বিচার কার্যক্রম কাঠুয়া থেকে চণ্ডিগড়ে স্থানান্তরের আবেদন জানিয়েছেন আসিফার বাবা।

এ ব্যাপারে দীপিকা বলেন, জম্মুর পরিস্থিতি, কাঠুয়ার আইনজীবীদের বিরোধিতা এবং অভিযোগপত্র দায়ের করতে বাধা দেওয়া দেখে, আমরা শঙ্কিত যে বিচারিক কার্যক্রম শান্তিপূর্ণ হবে না। এ মামলা অন্য কোনও রাজ্যের আদালতে স্থানান্তরের জন্য আমরা সুপ্রিম কোর্টের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি।

আসিফা ধর্ষণের ঘটনা সারা ভারতে ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে। এ ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভারতের বিনোদন ও ক্রীড়া জগতের তারকারা। তারপরই দেশটির প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন, আমি দেশের মানুষকে আশ্বস্ত করতে চাই যে কোনও দোষীকেই ছাড় দেওয়া হবে না। সম্পূর্ণ ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে। আমাদের মেয়েরা অবশ্যই ন্যায়বিচার পাবে।

এরপরই কাশ্মিরের রাজ্য সরকার থেকে অভিযুক্ত দুই বিজেপি নেতাকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়। সূত্র: এনডিটিভি।

(ঢাকাটাইমস/১৬এপ্রিল/একে/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত