স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালালেন স্বামী

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ এপ্রিল ২০১৮, ১১:৪৫

লক্ষ্মীপুরে জোসনা বেগম নামে এক গৃহবধূর লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়েছেন তার স্বামী। যৌতুক দাবিতে স্বামী সুজনসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে পিটিয়ে হত্যা করে বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের স্বজনরা। শনিবার সকালে গৃহবধূর লাশ সদর হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যান তারা। সদর উপজেলার পিয়ারাপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে ।

নিহতের স্বজন, চিকিৎসক ও পুলিশ জানায়, বিয়ের পর থেকে গৃহবধূ জোসনা বেগম ও তার পরিবারকে যৌতুকের জন্য চাপ দেয় স্বামী সুজনসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ নিয়ে প্রায় জোসনা বেগমকে মারধর করে আসছিলেন স্বামী সুজন। শুক্রবার দিনে এবং রাতে স্বামী সুজনসহ অন্যরা একাধিক বার জোসনা বেগমকে মারধর করেন। এক পর্যায়ের রাতের কোন এক সময়ে জোসনা বেগম মারা যান। পরে জোসনা বেগম বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন বলে এলাকায় জানানো হয়। এ ঘটনা ধামা-চাপা দিতে সকালে নিহতের লাশ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন স্বামী সুজন ও পরিবারের সদস্যরা। পরে সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে লাশ রেখে পালিয়ে যায় সুজন ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে নিহতের স্বজনসহ স্থানীয়রা।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে জোসনা বেগম নামে এক গৃহবধূকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন তার স্বামী সুজন। পরে হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে যান তারা।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. লোকমান হোসেন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/২১ এপ্রিল/প্রতিনিধি/ওআর)

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত