প্রয়োজনে জেলকোডের বাইরে গিয়ে খালেদার চিকিৎসা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:৩৭ | প্রকাশিত : ২২ এপ্রিল ২০১৮, ১৩:৫৫

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে প্রয়োজনে জেলকোডের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করানোর কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। বলেছেন, চিকিৎসকরা যেভাবে পরামর্শ দেবেন, সেভাবেই তার চিকিৎসা হবে।

রবিবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনা শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদেরকে এ কথা বলেন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মন্ত্রণালয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এবং ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজউদ্দিন আহমেদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যান।

মন্ত্রী জানান, গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি বিএনপি নেত্রীকে একটি বিশেষ এমআরআই করানোর জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানান বিএনপি নেতারা।

নজরুল ইসলাম খান সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘আমাদের চেয়ারপারসন দোতলা থেকে নামতে পারছেন না। তার উন্নত চিকিৎসা দরকার। এ কারণে তারে জরুরি ভিত্তিতে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানিয়েছি আমরা।’

বৈঠক শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার জেলকোড অনুযায়ী যেসব সুযোগ সুবিধা পাওয়ার কথা, তার সবই তিনি পাচ্ছেন। চিকিৎসকরা পরামর্শ দিলে এর বাইরে গিয়েও চিকিৎসা করানো হবে। ইউনাইটেডে এমআরআই করার বিষয়েও তাদের পরামর্শ অনুযায়ীই ব্যবস্থা হবে।

গত ২৮ মার্চ খালেদা জিয়ার অসুস্থতার গুঞ্জন শোনা যায়। পরদিন ঢাকার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন একটি দল নিয়ে তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। আর ১ এপ্রিল গঠন করা হয় মেডিকেল বোর্ড।

এই বোর্ডের পরামর্শে গত ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে খালেদা জিয়ার পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়।

গত ৩০ মার্চ খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তবে পরে সে অবস্থান থেকে সরে এসে এখন ইউনাইটেড হাসপাতালে তার চিকিৎসার দাবি জানাচ্ছে দলটি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি (খালেদা জিয়া) আগে থেকেই কতগুলো রোগে ভুগছেন। যেমন আর্থরাইটিস, স্পন্ডেলাইটিস এই ধরনের এবং ডায়াবেটিক, এই সমস্ত রোগে তিনি ভুগছেন। আমাদের চিকিৎসকরা তার পরীক্ষা করেছেন। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে আমরা তার পরীক্ষা নিরীক্ষা করাই। সেখানকার বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা যেসব পরামর্শ দিয়েছিলেন, সেগুলো আমরা একের পর এক পরামর্শ নিচ্ছি।’

‘তিনি (খালেদা জিয়া) কয়েকজন ডাক্তারের কথা বলেছিলেন। এসব বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা তার চিকিৎসা সেবা দিতেন। তিনি তাদের সাথে পরামর্শ করার জন্য আমাদেরকে জানিয়েছিলেন জেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে। আমরা সেগুলো কিন্তু ব্যবস্থা করে দিয়েছি।’

‘যেসমস্ত চিকিৎসক তাকে সেবা দিতেন, সে সমস্ত চিকিৎসক তার স্বাস্থ্য, শারীরিক অবস্থা সবই পরীক্ষা করেছেন। তারা আরও কয়েকটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা বলেছেন।’

‘এর মধ্যে একটি পরীক্ষা, যেমন এমআরআই। এটা করা একটু ডিফিকাল্ট আছে। তার আর্টিফিশিয়াল নি (কৃত্রিম হাঁটু) তার শরীরে সংযোজিত আছে। এই ধরনের মেটাল যাদের থাকে, এমআরআই তারা করতে পারে না।’

‘বিশেষ এমআরআই করতে হবে। এটাই আমাদের জানিয়ে গেছেন যে, এই এমআরআই ইউনাইটেড হাসপাতালে আছে। সে জন্য তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যেতে রিকোয়েস্ট করেছেন।’

আপনি কী জবাব দিয়েছেন?- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘এ বিষয়ে আমাদের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার রয়েছেন। তাদের সঙ্গে পরামর্শ করে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।’

‘আমি এটাই বলেছি, তার চিকিৎসার জন্য যা যা প্রয়োজন সেটা আমরা করছি এবং সামনে যা যা প্রয়োজন, সেটাও আমরা করব। জেলকোড অনুযায়ী এটা হবে। জেলকোডের বাইরে যদি কিছু করতে হয়, সেটা আমরা পরামর্শ করে ব্যবস্থা নেব।’

‘পরামর্শটা হবে ডাক্তারদের সাথে এবং এর বাইরে যার যার সাথে করা দরকার, সেটা আমরা করব। এটাই আমরা তাদেরকে জানিয়েছি।’

বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার বিশেষ ফিজিওথেরাপির দাবিও জানিয়ে গেছেন। এই বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো বলছি, যা প্রয়োজন হবে, আমরা জেলকোড অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী আমাদের যতখানি করার আমরা করব।’

বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিতে আইনে কোনো বাধা আছে কি না-এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘জেলকোড অনুযায়ী আমাদের সরকারি যে চিকিৎসা কেন্দ্রগুলো রয়েছে, জেলখানার যে চিকিৎসক রয়েছে, সেগুলোর একটা নিয়ম কানুন রয়েছে। আমরা সেই জায়গাতে বলছি, পরামর্শের পরে যদি প্রয়োজন হয়, যদি প্রয়োজন হয়, আমরা সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব।’

এই সিদ্ধান্ত কবে নেয়া হবে এবং তা কখন জানা যাবে?-জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘ওনারা তো বলে গেলেন, আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। আমাদের ডাক্তাররা তো বসে নেই, ডাক্তাররা পরামর্শ দিচ্ছেন, তাদের পরামর্শ অনুযায়ী সব কিছু হবে।

বন্দীদেরকে নানা সময় বিদেশে পাঠানোর নজির আছে।’

খালেদা জিয়াকেও বিদেশে পাঠানো হবে কি না- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী আবার বলেন, ‘আমাদের বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা যেভাবে বলেন, সেভাবেই হবে।’

‘ওনি তো ঘন ঘন বিদেশে গেছেন এমন নজির আছে? নাই। তিনি দেশেই চিকিৎসা নিয়েছেন। আমাদের বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা চিকিৎসা করছেন। তাদের পরামর্শ অনুযায়ীই আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’ 

(ঢাকাটাইমস/২২এপ্রিল/এমএম/ডব্লিউবি/জেবি)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত