প্রতীক পেয়ে প্রচারে প্রার্থীরা

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
| আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১৩:৩৪ | প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১২:৪৪

খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে প্রতীক পেয়ে দুই সিটিতেই মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচার-প্রচারনা শুরু করেছেন।

এর আগে সোমবার গাজীপুরে দুই মেয়র প্রার্থী ও ৩৪ কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। অন্যদিকে খুলনায় মনোয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন ৩৯ কাউন্সিলর প্রার্থী।

ঢাকাটাইমসের খুলনা ব্যুরো জানিয়েছে, মঙ্গলবার সকালে প্রতীক পেয়েই আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক (নৌকা) ও ২০ দলীয় জোট প্রার্থী (ধানের শীষ) নজরুল ইসলাম মঞ্জুসহ অন্যান্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টায় নির্বাচন অফিস থেকে নৌকা প্রতীক গ্রহণ করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক। এরপর তিনি দলীয় কার্যালয়ে এসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদানের পর কর্মি সমর্থকদের নিয়ে লিফলেট বিতরনের মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন।

এসময় তার সাথে ছিলেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক শেখ হারুনার রশীদ, সমন্বয়কারী এসএম কামাল হোসেন, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক কাজী আমিনুল হক। 

এদিকে একই সময়ে বয়রাস্থ নির্বাচন কার্যালয় থেকে নির্বাচনী প্রতীক ‘ধানের শীষ’ গ্রহন করেন মঞ্জু। এর পর তিনি দলীয় কার্যালয়ে সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও ২০ দলীয় জোটের নেতাদের উপস্থিতিতে দোয়া মোনাজাতের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন।

পরে মহানগরীর প্রানকেন্দ্রে ও মূল শহরে ধানের শীষ প্রতীকের লিফলেট বিতরনের মাধ্যমে ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করেন মঞ্জু। এসময় তার সাথে ২০ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীরা ছিলেন।

অপরদিকে কেসিসি নির্বাচনে অংশগ্রহনকারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রতীক পেয়ে নিজ নিজ ওয়ার্ডে প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন।

ঢাকাটাইমসের গাজীপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকালে প্রতীক বরাদ্দের পরপরই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণা শুরু করেন। এসময় প্রার্থীরা দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনী মিছিল, শোভাযাত্রা ও দলীয় হ্যান্ডবিল বিতরণ করেন।

এছাড়া শহরের রাজবাড়ি সড়কে বিএনপির নেতাকর্মীরা নির্বাচনী মিছিল বের করে। মিছিলটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় বঙ্গতাজ অডিটোরিয়ামে অস্থায়ী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রতীক বরাদ্দকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই প্রার্থী, সমর্থক ও নেতাকর্মীরা দলে দলে আসতে শুরু করেন। প্রতীক পেয়ে উচ্ছসিত প্রার্থীরা নির্বাচনে নিজের জয় লাভের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

নৌকা প্রতীক পেয়ে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘নৌকা হচ্ছে খেটে খাওয়া মানুষের প্রতীক। মানুষের মর্যাদার প্রতীক। আমি সেই ‘নৌকা’ পেয়েছি। আমি মনে করি গাজীপুরের মানুষ উন্নয়ণের স্বার্থে আগামী ১৫ মে নৌকা মার্কায় ভোট দেবে।’

ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপির হাসান উদ্দিন সরকার বলেন, ‘আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। আল্লাহর রহমতে শতভাগ নিশ্চিত। নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে এখন থেকে নির্বাচনের প্রচার কাজে নেমে পড়ব।’

সিপিবির রুহুল আমিন প্রতীক পেয়ে বলেন, ‘কাস্তে প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। সিটিকে একটি বাসযোগ্য, মানবিক, উন্নত, আধুনিক এবং পরিবেশ সম্মতভাবে গড়ে তুলব।’

ইসলামী ফ্রন্টের জালাল উদ্দিন জানান, ‘মানুষ পরিবর্তন চাচ্ছে। পরিবর্তনের ধারায় সিটিবাসী মোমবাতিকে বিজয়ী করবে বলে আশা করি।’

গাজীপুর সিটি করপোরেশনে ৫৭টি সাধারণ ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১লাখ ৩৭হাজার ৭৩৬। এতে পুরুষ ৫লাখ ৬৯হাজার ৯৩৫ এবং ৫লাখ ৬৭হাজার ৮০১।

তফসিল অনুযায়ী দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থীতা প্রত্যাহারে সময়সীমা শেষ হয় রবিবার বিকাল ৫টায়। গাজীপুরে ১০ মেয়র প্রার্থীর মধ্যে একজন স্বতন্ত্র ও জাসদের এক প্রার্থী সোমবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন।

এছাড়া চারশ' ৮৪ সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ৩১ জন এবং ৩৭ নারী কাউন্সিলর প্রার্থীর তিনজন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

অন্যদিকে খুলনা সিটি করপোরশন নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর ৩৪ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৫ জন, তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন।

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ মে খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

(ঢাকাটাইমস/২৪এপ্রিল/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত