‘পাকিস্তানি হার্ভে’ শিল্পী জাফর

বিনোদন ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৪:২৭ | প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৪:১৯

গত বছরের গোড়ার দিকে হলিউড প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টিনের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠার পর তোলপাড় শুরু হয়ে যায় গোটা বিশ্বে। #MeToo-এর মাধ্যমে হার্ভের বিরুদ্ধে একে একে যৌন হেনস্তা ও ধর্ষণের অভিযোগ আনেন হলিউডের বেশ কয়েকজন প্রথমসারির অভিনেত্রীসহ একশ জনেরও বেশি নারী। হার্ভের বিরুদ্ধে হলিউডের রাস্তায় তারা মিছিলও করেছিল।

পরে এই #MeToo ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বের ফিল্ম জগতে। বলিউড ও ভারতের দক্ষিণী ছবির বেশ কয়েকজন নামি অভিনেত্রীও তাদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া নানা যৌন হেনস্তার গল্প শেয়ার করেন। এবার সেই #MeToo-এর প্রভাব পড়েছে পাকিস্তানি বিনোদন জগতেও। সম্প্রতি সেদেশের নামকরা গায়ক ও অভিনেতা আলী জাফরের বিরুদ্ধে একাধিক বার যৌন হেনস্তার অভিযোগ তোলেন তারই সহকর্মী গায়িকা মিশা শাফি।

এক টুইট বার্তায় মিশা দাবি করেন, কর্মক্ষেত্রে একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে একাধিক বার জাফরের দ্বারা যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছেন তিনি। মিশার এই অভিযোগের পরই #MeToo–এর মাধ্যমে শিল্পী আলী জাফরের বিরুদ্ধে আসছে একের পর এক অভিযোগ ও নিন্দা। তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ জানিয়েছেন পাকিস্তানের কয়েকজন নারী। তাদের মধ্যে সাংবাদিক থেকে শুরু করে আলীর ভক্তরাও রয়েছেন। ঠিক যেমনটি ঘটেছিল হলিউড প্রযোজক হার্ভে ওয়েনস্টিনের বেলায়।

সঙ্গীতশিল্পী মিশা শাফির টুইটের পর অবশ্য পাল্টা একটি টুইটে সব অভিযোগ অস্বীকার করেন আলী জাফর।  তিনি লেখেন, ‘আমি সব সময়ই #MeToo-এর পক্ষে কথা বলেছি। আমার পরিবার আছে, সন্তান আছে। আমি নিজেও একজন মায়ের সন্তান। কাজেই, মিশার সব অভিযোগ আমি অস্বীকার করছি। এ বিষয়ে আমি আদালতের দারস্থ হব। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, সত্যের জয় হবে।’

আলী জাফরের এই বিবৃতির পরেও কিন্তু থামেনি নিন্দার ঝড়। জনপ্রিয় পাক অভিনেত্রী মাহিরা খান টুইট করে লিখেছেন, ‘যারা এই যৌন হয়রানির ব্যাপারে কিছু না বুঝেই খুব সহজভাবে মন্তব্য করছেন, তারা মানসিক বিকারগ্রস্ত। এভাবেই আমরা হয়রানিকারীদের আশকারা দিয়ে যাচ্ছি, তাদের সাহস বাড়িয়ে যাচ্ছি।’

তারকাদের বাইরে রূপসজ্জাকার লীনা গনি, সাংবাদিক মাহাম জাভেদ ও ভক্ত হুমনা রাজা সরাসরি হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন আলী জাফরের বিরুদ্ধে। সবশেষে আলীর যৌন হয়রানি-কাণ্ডে ধিক্কার জানিয়েছেন জনপ্রিয় পাক গায়িকা মোমিনা মুসতেহসান। তিনি বলেন, হয়রানির শিকার নারীরা যেমন #MeToo বলে সাহস করে এগিয়ে আসছেন, ঠিক তেমনি হেনস্তাকারীদেরও #IamSorry  বলে দুঃখ প্রকাশ করা উচিত।’

ঢাকাটাইমস/২৫এপ্রিল/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত