সিলেটে দুদকের মামলায় আ.লীগ নেতা কারাগারে

ব্যুরো প্রধান, সিলেট
 | প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:৩৭

রাজস্ব কর ফাঁকির অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পংকি খানকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বুধবার দুপুরে সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের হাকিম মফিজুর রহমান ভূঁইয়া তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। আদালত পুলিশের সহকারী কমিশনার অমূল্য কুমার চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, আমদানিকৃত বিলাসবহুল গাড়ি চোরাইভাবে বিক্রয় ও জাল কাগজপত্র তৈরি করে রেজিস্ট্রেশন করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দেয়ার অভিযোগে গত বছর দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. ফরিদুর রহমান পংকি খানসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এ মামলায় বুধবার আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারক তা নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, লন্ডন প্রবাসী রুপা চৌধুরী কার্নেট ডি প্যাসেজ সুবিধার আওতায় ২০০৭ সালের ১৪ মার্চ একটি বিলাসবহুল লেক্সাস আর এক্স ৩০০ গাড়ি আমদানির চুক্তি করেন। গাড়িটি খালাস হয় ২০১০ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর।

আমদানির এক বছরের মাথায় গাড়ি ফেরত দেয়ার কথা। কিন্তু, গাড়ি ফেরত না দিয়ে রুপা চৌধুরী এটি বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি পংকি খানের কাছে বিক্রি করেন।

গাড়িটি কেনার পর পংকি খান ২৯ লাখ টাকা মূল্যে এটি সুনামগঞ্জের মোর্শেদ আলমের কাছে বিক্রি করেন।

এরপর সিলেট বিআরটিএর মাধ্যমে জাল কাগজপত্র তৈরি করে গাড়িটির রেজিস্ট্রেশন (নম্বর-সিলেট-ঘ-১১-০৩০১) করা হয়।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স উইং ২০১৬ সালের ৬ জুন সুনামগঞ্জের হাজীপাড়া থেকে গাড়িটি জব্দ করে।

বিষয়টি তদন্ত করে দুদক এক কোটি ৭৪ লাখ ৯৯ হাজার ১৬৭ টাকা ৬৮ পয়সা রাজস্ব ফাঁকির প্রমাণ পায়।

মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছেন সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার তিলক শাহারপাড়ার ইংল্যান্ড প্রবাসী রূপা মিয়া, সুনামগঞ্জ সদরের বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার মোরশেদ আলম বেলাল, সুনামগঞ্জ সদরের হাছননগরের রোমান রায়হান, বিআরটিএ সিলেট সার্কেলের সহকারী পরিচালক বরিশালের মুলাদী উপজেলার চর নাজিরপুরের বাসিন্দা মো. এনায়েত হোসেন।

(ঢাকাটাইমস/২৫এপ্রিল/এমএ/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত