খুলনায় খালেকের পক্ষে প্রচারে কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ মে ২০১৮, ১১:৫২ | প্রকাশিত : ১১ মে ২০১৮, ১০:২৬

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেকের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত তারা নগরীর বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনী প্রচার চালান। এ সময় উন্নয়নের প্রতীক আখ্যায়িত করে নৌকা মার্কায় ভোট চান নেতারা। 

রাতে খুলনার খালিশপুরে প্লাটিনাম জুট মিল শ্রমিক ক্লাবে নির্বাচনী জনসভা করেন কৃষক লীগ নেতারা।  

জনসভায় উপস্থিত ছিলেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোতাহার হোসেন মোল্লা, সহসভাপতি আরিফুর রহমান দোলন, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামা, কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুল হক আতিক, ফরিদপুর জেলা কৃষক লীগের সাধারণ শেখ শহিদুল ইসলাম, কৃষক লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য বিএম আবদুর রশিদ, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মো. মাকসুদুল ইসলাম, সহসভাপতি মাজহারুল ইসলাম সোহেল, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সদস্য মিয়া মুজিবুর রহমান প্রমুখ। সভায় সভাপতিত্ব করেন সুরুজ সরদার।

জনসভায় কৃষক লীগ সভাপতি বলেন, ‘আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এখানে ভোট চাইতে এসেছি। আওয়ামী লীগকে বিজয়ী না করলে আবারও জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠবে।’

মোতাহার হোসেন মোল্লা বলেন, ‘খুলনার উন্নয়নের স্বার্থে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে। এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি পূর্ণ আস্থার জানান দিতে হবে। খুলনার উন্নয়ন আওয়ামী লীগ ছাড়া কেউ করতে পারেনি। এই নগরীর উন্নয়ন চাইলে নৌকায় ভোট দিন।’

খুলনাবাসী উন্নয়ন বঞ্চিত থাকবে না: দোলন

আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘গত পাঁচ বছর খুলনা উন্নয়ন বঞ্চিত ছিল। কারণ এখানে মেয়র ছিলেন বিএনপির। আপনারা চিন্তা করে দেখুন, বিএনপির মেয়র কতদিন ক্ষমতায় ছিলেন কিন্তু তিনি কী করেছেন? গত পাঁচ বছরে খুলনাবাসী উন্নয়ন বঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে। আমি বিশ্বাস করি খুলনাবাসী আর বঞ্চিত থাকতে চায় না। আর পিছিয়ে থাকতে চায় না। আগামী ১৫ মে নৌকা প্রার্থীকে ভোট দিয়ে তারা এর প্রমাণ দেবে বলে আমার বিশ্বাস।’

ঢাকাটাইমস সম্পাদক বলেন, ‘উন্নয়নের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের সহযোগিতা প্রয়োজন। আপনারা যদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করেন তাহলে এই অঞ্চলের মানুষ আর উন্নয়ন বঞ্চিত থাকবে না। আগামীতেও তিনি সরকার গঠন করবেন। দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের উন্নয়নে কাজ করবেন।’

শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে দোলন বলেন, ‘সরকার আপনাদের জন্য মজুরি কমিশন গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগে আগামী ১৫ মে ভোটের মাধ্যমে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অবশ্যই আপনাদের মজুরি কমিশন গঠনে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবেন।’

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা, বোয়ালমারী ও মধুখালী অঞ্চলের অনেক শ্রমিক খালিশপুরে আছেন। তাদের উদ্দেশ্যে ফরিদপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ‘আমাদের অঞ্চলের মানুষ নৌকার বিকল্প কিছু বুঝে না। আমি বিশ্বাস করি, আমাদের যেসব শ্রমিক ভাই এখানে আছেন তারা এই সিটি নির্বাচনেও সেই প্রমাণ দেবেন।’

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান দোলন বলেন, ‘আমাদের দক্ষিণাঞ্চলের আশিবার্দ পদ্মা সেতু। সেটা বর্তমান সরকারের আমলে বাস্তবায়ন হচ্ছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার আবার ক্ষমতায় এলে এই অঞ্চলে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। এজন্য আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধুর প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দিন।’

ইসমত কাদির গামা বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘পদ্মা সেতু দিয়ে চলতে হলে আওয়ামী লীগকে ভোট। বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। আওয়ামী লীগের বিরোধিতা করলে পদ্মা সেতু দিয়ে চলতে পারবেন না।’

(ঢাকাটাইমস/১১মে/এইচএফ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

গাজীপুর ও খুলনা সিটি নির্বাচন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত