আমাদের স্বপ্ন আজ মহাকাশে: দোলন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ মে ২০১৮, ১৬:০৫ | প্রকাশিত : ১৮ মে ২০১৮, ১৫:০৪

স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে উন্নয়নের পথে বাংলাদেশের স্বপ্ন মহাকাশে পৌঁছে গেছে বলে মনে করেন অনলাইন গণমাধ্যম ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলন।

শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে কৃতি শিক্ষার্থীদের বৃত্তি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এ কথা বলেন দোলন। অনুষ্ঠানে ২০১৭ সালে প্রাথমিক সমাপনী পিইসির ৩৪ জন, জেএসসির ৩০ জন এবং মাদ্রাসার একজন শিক্ষার্থীর (কোরআন হাফেজ) হাতে বৃত্তি তুলে দেয়া হয়। এরা সবাই ডিআরইউয়ের সদস্যদের সন্তান।

গত ১১ মে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণ হয় বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১। এ বিষয়টির উল্লেখ করে ফরিদপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী দোলন বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ মহাকাশ জয়ের স্বপ্ন দেখছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের মাধ্যমে এটি সম্ভব হয়েছে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মতো আমাদেরও স্বপ্ন আজ মহাকাশে পৌঁছে গেছে।’

‘এটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। বঙ্গবন্ধুর দেখানো সোনার বাংলার স্বপ্নকে যিনি সফলভাবে বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।’

কৃষক লীগের সিনিয়র সহসভাপতি বলেন, ‘প্রযুক্তি বিপ্লবের এই সময়ে তোমাদেরকেও এগিয়ে যেতে হবে বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে। তোমাদের মাঝেই বাস করছে আগামী দিনের বিশ্ব সেরা বিজ্ঞানী।’

‘এখানে যেসব শিক্ষার্থীরা সংবর্ধনা নিচ্ছে তাদের মধ্যেই আগামী দিনের মহাকাশ বিজ্ঞানী রয়েছে। চেষ্টা করলে অবশ্যই তোমরা সফল হবে। দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে।’

ভালো ফলাফলের পাশাপাশি শিশুদের নীতিবান মানুষ হিসেবে গড়ে উঠার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন দোলন। বলেন, ‘পুঁথিগত শিক্ষা তো বটেই, নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। কারণ তোমাদের হাতেই থাকবে ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব।’

‘তোমাদের থেকেই একজন মন্ত্রী, এমপি, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সাংবাদিক, অধ্যাপক, আইনজীবী তৈরি হবে। তাই তোমাদের এখন থেকেই পরিবার, সমাজ এবং দেশের প্রতি দায়িত্বশীল মনোভাব তৈরি করতে হবে।’

ঢাকাটাইমস সম্পাদক বলেন, ‘তোমাদেরকে আরও অনেক দূর এগিয়ে যেতে হবে। মেধা, প্রজ্ঞা, দক্ষতা এবং কঠোর পরিশ্রমের মধ্যদিয়ে তোমরা এগিয়ে যাবে। এসএসসি, এইচএসসির পর উচ্চশিক্ষা নেবে। জ্ঞানের সীমা অনেক বড়।’

অভিভাবকদের উদ্দেশ্য দোলন বলেন, ‘আমাদের সন্তানদের শুধু পুঁথিগত শিক্ষার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলেই দায়িত্ব শেষ হবে না। তাদের মেধা মননের বিকাশে সৃষ্টিশীল বিষয়ের দিকে সমান গুরুত্ব দিতে হবে।’

‘স্বাস্থ্য সকল সুখের মূল। খেলাধুলা মানসিক বিকাশে এবং সুস্বাস্থ্য বিকাশে সহায়ক।’

‘এটা সত্য ঢাকা শহরে এখন খেলার মাঠ অত্যন্ত সীমিত হয়ে আসছে। এরপরেও যতটুকু আছে আমরা যেন আমাদের ছেলে মেয়েদের সুস্বাস্থ্য এবং মানসিক গঠনে খেলাধুলার চর্চায় তাদেরকে এগিয়ে দেই সেটিও আমাদের খেয়াল রাখতে হবে।’

‘পাশাপাশি সুস্থ্য সংস্কৃতির চর্চায় যেন আমরা আমাদের ছেলেমেয়েদের নিয়োজিত রাখতে পারি।’

গত কয়েক বছর ধরে ডিআরইউর এই ধরনের আয়োজনে আসার কথা জানিয়ে দোলন বলেন, ‘যত ব্যস্ততাই থাকুক, ছোট ছোট সোনামনিদের সংবর্ধনা জানানোর এই অনুষ্ঠানে আমি হাজির থাকার চেষ্টা করি।’

‘আমাদের সন্তানদের দিকে তাকালে আমার ভাল লাগে। উৎসাহ নিয়ে এখানে আসি। সন্তানের সাফল্য যেকোনো বাবা মায়ের জন্যই আনন্দের, গর্বের।’

‘সন্তানদের সাফল্য মা-বাবার মুখ উজ্জ্বল করে। সম্মানিত করে। তাই কৃতী শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানানোর এই অনুষ্ঠানের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এটি শিক্ষার্থীদের আগামী দিনে এগিয়ে যাওয়ায় উৎসাহ যোগায়।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, উত্তরা ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য ইয়াসমীন আরা লেখা, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শাবান মাহমুদ।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিআরইউর সভাপতি সাইফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক শুক্কুর আলী শুভ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ডিআরইউর কল্যাণ সম্পাদক কাওসার আজম।

(ঢাকাটাইমস/১৮মে/এমএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত