বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নে বিভোর কেন

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৪ মে ২০১৮, ১৮:২৫ | প্রকাশিত : ২৩ মে ২০১৮, ১৯:২২

আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপের জন্য ইংল্যান্ডের অধিনায়ক মনোনীত হয়েছেন হ্যারি কেন। আর সর্বোচ্চ এই আসরে প্রথমবারের মত সেনাপতির দায়িত্ব পেয়েই শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর হয়ে উঠেছেন তারকা এই স্ট্রাইকার।

২০১৬ সালে ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপে ছোট দল আইসল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়ে শেষ ১৬ থেকে বিদায় নিতে হয়েছিল ইংল্যান্ডকে। সেই দু:সহ স্মৃতি পিছনে ফেলে আবারো বড় কোন আসরে খেলতে নামছে ইংলিশরা। তার সেই দলের অধিনায়ক হিসেবে কেনের সামনে যে কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে তা সহজেই অনুমেয়। ১৯৬৬ সালের পর থেকে বিশ্বকাপে শিরোপা অধরাই থেকে গেছে ইংলিশদের কাছে।

টটেনহ্যামের এই স্ট্রাইকার তাই এবারের বিশ্বকাপে নিজেদের সম্ভাবনা সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেছেন,‘বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখাটা আমাদের জন্য অসম্ভব কিছু না। এটাই বিশ্বের সর্বোচ্চ টুর্নামেন্ট। আমার কাছে এই আসরে খেলাটাই অনেক বড় ব্যপার। আর শিরোপা জয়ের স্বপ্ন আমরা দেখতেই পারি। পুরো দলের ওপর আমার আস্থা আছে। আমি মনে করি যেকোন দলেরই এই সম্ভাবনা আছে। এখানে বসে আমি যদি বলি আমরা শিরোপা জয়ের জন্য মাঠে নামবো না তবে সেটা কোন কথাই না। আমি যা পারি সব কিছুই জিততে চাই। এবং আমার মতই দলের অনেক খেলোয়াড়েরই একই ইচ্ছা। আর এই চেষ্টাই আমরা করবো। তবে জানি এতটা সহজ কিছুই না। বিশ্বকাপে সব দলই ভাল, তবে আমরা লড়াই করবো। শিরোপা জয়ের স্বপ্ন আমার মত ইংল্যান্ড দলের অন্যদেরও আছে। এটা আমাদের জন্য একটি সুযোগ।’

কেন আরো বলেন গত কয়েক বছর যাবত বড় টুর্নামেন্টগুলোতে অনেকটাই নেতিবাচক মনোভাব নিয়ে ইংল্যান্ড অংশগ্রহণ করেছে। আশা করছি এই ধারণা থেকে আমরা বেরিয়ে আসতে পারবো। হয়তবা শিরোপা জয়ের কথাটা বলতে গিয়ে আমরা কিছুটা ভীত হই। কারণ এক্ষেত্রে গণমাধ্যম ও সমর্থকদের প্রতিক্রিয়া কি হবে, আমাদের মনে সেটা কাজ করে। আর এই কারণেই খেলোয়াড়রাও খোলসের মধ্যে থাকে। মূলত আমি এখানে এই কথাই বলতে চাচ্ছি শিরোপা জয়ের কথা আমরাও উঁচুস্বরে বলতে পারি। এখানে পিছিয়ে থাকার কিছু নেই। আমাদের এ ব্যপারে সাহসী হতে হবে। গ্রুপ পর্বই হোক বা সেমিফাইনালে বিদায়, বিশ্বকাপের শিরোপা জিততে না পারাটা সব ক্ষেত্রেই সমান। আমরা এই বিষয়টি নিয়েই খেলোয়াড়দের সাথেও আলোচনা করেছি।

গ্যারেথ সাউথগেট কোচ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই ২৪ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকারের কাঁধেই যে অধিনায়কের দায়িত্ব আসতে যাচ্ছে তার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল। তবে বাড়তি এই দায়িত্ব নিজের ফরোয়ার্ড লাইনের পারফরমেন্সে মোটেই প্রভাব ফেলবে না বলেই কেন বিশ^াস করেন। তিনি বলেন, ‘যখন থেকে আমি ইংল্যান্ডের আর্মব্যান্ড পড়েছি আমি গোলও করেছি। আশা করছি এবারও সেই ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। তবে এবারের দায়িত্বটা ভিন্ন। আমি সত্যিই গর্বিত। তবে তারপরেও আমি আমার নিজের স্বাভাবিক দায়িত্ব ঠিকই পালন করবো।

আগামী ১৮ জুন তিউনিশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ইংল্যান্ড তাদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে। গ্রুপ-জি’র অপর দুটি দল হলো পানামা ও বেলজিয়াম।

(ঢাকাটাইমস/২৩ মে/ডিএইচ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত