ফের ভোটের প্রচারে সরব গাজীপুর

গাজীপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ জুন ২০১৮, ১৮:৪০ | প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০১৮, ১৮:০৫

দ্বিতীয় দফা তফসিল অনুযায়ী গাজীপুর সিটি করপোরশন নির্বাচনে প্রার্থীরা আবারও প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন। সোমবার সকাল থেকে নির্বাচনী মাঠে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন মেয়র, সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা। শুরু হয়েছে এলাকায় এলাকায় মাইকিং, পোস্টার লাগানোসহ নির্বাচনের আনুষাঙ্গিক প্রস্তুতি।

এদিন আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বিএনপির মিথ্যাচারের জবাব দিয়ে নগরীকে গ্রিন ও ক্লিন সিটি গড়ার লক্ষে ভোটারদের ভোট প্রার্থনা করেন। অপর দিকে বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার বীরোচিত লড়াইয়ের মাধ্যমে নির্বাচনে জয় লাভের আশা প্রকাশ করেছেন। ২৬ জুন অনুষ্ঠেয় ভোটের আগে প্রধান দুই দলের মেয়র প্রার্থীরা তাদের পূর্ণ শক্তি ও নেতাকর্মীদের সমন্বয়ে মাঠে নেমেছেন।

গাজীপুরে ভোট অনুষ্ঠানে হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ বাতিল হওয়ার গত ১৩ মে ইসির সভায় ২৬ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একইসঙ্গে ১৮ জুনের আগে কোনো প্রার্থী নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারবেন না বলেও নির্দেশনা দেয়া হয়।

সোমবার বেলা ১২টায় স্থানীয় গাছা এলাকায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গাছা কমাণ্ড কার্যালয়ের সামনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আয়োজিত পথসভায় যোগ দেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন মহির সভাপতিত্বে পথসভায় মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে সাবেক এমপি ও জেলা ইউনিট কমান্ডার কাজী মোজাম্মেল হক, মহানগর সভাপতি অ্যাড. মো. আজমত উল্লা খান, ডেপুটি কমান্ডার মোহর আলী, আব্দুর রউফ নয়ন, জাতীয় পার্টি নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন।

সেখানে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘বীর মুক্তিযোদ্ধারা আমাকে সন্তান হিসাবে ভালবেসে আজ পথসভার আয়োজন করেছেন। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের দোয়া নিয়ে প্রচারণা শুরুর সুযোগ করে দেওয়ায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। বিগত নির্বাচনে বিএনপি মিথ্যাচার এবং প্রপাগান্ডা করেছে। মিথ্যাচার করে নৌকাকে নয় গাজীপুর বাসীকে পরাজিত করেছে। পাঁচ বছর গাজীপুরবাসীকে উন্নয়ন বঞ্চিত রেখেছে।’

‘গাজীপুর সিটিকে ঢাকার পাশে দ্বিতীয় ঢাকারূপে একটি অত্যাধুনিক শহর হিসেবে গড়তে চাই। একটি ক্লিন ও গ্রীণ সিটি গড়তে চাই। আপনারা আওয়ামী লীগকে, নৌকাকে সমর্থন করেন। ঘরে ঘরে মা বোনদের কাছে নৌকা মার্কায় ভোট চান। সকলের সহযোগীতা নিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করতে চাই।’

আজমত উল্লাহ খান বলেন, ‘গাজীপুরকে গ্রীন সিটি ক্লিন সিটি হিসাবে গড়ে তোলা্র জন্য জাহাঙ্গীরের বিকল্প নাই। ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও আমাদের প্রার্থী গাজীপুরের ১১ লাখ ৬৪ হাজার ভোটারের কাছে যেতে পারবেন না। প্রার্থীর পক্ষে আমরা সবাই যদি ঘরে ঘরে ভোট চাই তাহলে আগামী ২৬ জুন নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত।’

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর প্রথম প্রচারণা পথসভায় নেতাকর্মীরা ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে পথসভায় যোগদেন। মুহুর্তেই পথসভা বিশাল জনসভায় পরিণত হয়। 

অপর দিকে সকাল ৯টা থেকে দুপুর পর্যন্ত নিজ বাসভবনে কশিমপুর অঞ্চলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদ পুনর্মিলনীতে মিলিত হন বিএনপি মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। এসময় তিনি সাবেক কাশিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান শওকত হোসেন সরকার গ্রেপ্তার হওয়ায় তার অনুপস্থিতিতে নির্বাচনী ঝুঁকি মোকাবেলার কৌশল নিয়ে আলোচনা করেন।

হাসান সরকার বলেন, ‘মরতে হলে বীরোচিতভাবে মরব। এটি খুলনা নয়, গাজীপুর। তালবাহানা না করে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমিই বিজয়ী হব।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সিটি করপোরেশনের মেয়রের চেয়ার অতি গুরুত্বপূর্ণ। এটি পোলাপানের চেয়ার নয়, এটি জ্ঞানী ও বয়ষ্ক মানুষের চেয়ার। মেয়র নির্বাচন কোনও ছেলে খেলা নয়। সে যে আমার কাছে ভোট চেয়েছে এটি একটি ফাজলামি। বয়সের অপরিপক্কতার কারণে সে এসব বলতে পারছে।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও গাজীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি ফজলুল হক মিলন, কেন্দ্রীয় সহ-শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হুমায়ুন কবির খান, গাজীপুর জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি সালাহ উদ্দিন সরকার, সোহরাব হোসেন, মাহবুবুল আলম শুক্কর প্রমুখ।

এদিকে বিএনপির মিডিয়া সেল সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনের পুরো বিষয়টি কেন্দ্র থেকে মনিটরিং করা হবে। এছাড়া নির্বাচনের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে একাধিকবার যোগাযোগ করা হচ্ছে। নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রকার ষড়যন্ত্র করা হলে তা কঠোরভাবে প্রতিহতের ঘোষণাও দিয়েছে দলটির কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে গাজীপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল জানান, খুলনা ও গাজীপুরের অবস্থা এক নয়। গাজীপুরে খুলনার মতো করতে চাইলে গাজীপুরের জনগণ তা প্রতিহত করবে। আর এ জন্য সকল দায় সরকারে ঘাড়েই পড়বে।

তিনি জানান, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় নেতাকর্মীদের মনে ক্ষোভের আগুন জ্বলছে। তারা সর্বশক্তি দিয়ে নির্বাচনী মাঠে থাকবেন। ভোট কেন্দ্র অনুযায়ী দলীয় নেতাদের কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সকলকে কৌশলী ও সতর্ক হয়ে চলারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কাউন্সিলরদের প্রচারণা:

সকাল থেকে একটানা প্রচারণায় নেমেছেন নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলররা। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাইছেন তারা। এছাড়া কাউন্সিলর প্রার্থীরা সুষ্ঠু পরিবেশে ভোট গ্রহণের আশা প্রকাশ করেছেন।

এদিকে, ভোটারদের নিজেদের দলে ভেড়াতে এসব প্রার্থীরা নিচ্ছেন নানা কৌশলও। আসন্ন বিশ^কাপ ফুটবল উন্মাদনাকে সামনে রেখে অনেক কাউন্সিলর প্রার্থী ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রজেক্টরের মাধ্যমে খেলা দেখানের ব্যবস্থা করছেন। অনেক ওয়ার্ডে ১০ থেকে ১৫টি পয়েন্টে প্রজেক্টরের মাধ্যমে খেলা দেখানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী খোরশেদ আলম জানান, তরুনদের খেলায় উৎসাহ দেয়ার লক্ষ্যে প্রজেক্টরের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে সবাই আনন্দে উদ্বেলিত, যা সব বয়েসীদের বিনোদন দিচ্ছে। একই অবস্থা ১৬ নং ওয়ার্ড, ১৭ নং ওয়ার্ডসহ বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের।

নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা রকিব উদ্দিন মন্ডল জানান, আমাদের নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আমরা চাই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ হোক। এ লক্ষ্যে আমরা মাঠে কাজ করে যাচ্ছি। সকল দলের সমান অধিকার নিশ্চিতে জিরো টলারেন্সে বিশ^াসী।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা ছিল। নির্বাচনের কয়েকদিন আগে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় হাইকোর্টে রিট হলে আদালতের নির্দেশে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। পরবর্তীতে দুই মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার ও জাহাঙ্গীর আলম এবং নির্বাচন কমিশন এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করলে আপিল বিভাগ নির্বাচনের স্থগিতাদেশ তুলে দেন। ফলে নির্বাচন কমিশন ২৬ জুন নির্বাচনের ভোট গ্রহণের নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

গাজীপুর সিটিতে মোট ভোটার ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৫ জন, নারী ভোটার ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন। মোট মেয়র প্রার্থী ৭ জন। ৫৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ২৫৫ জন ও ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী প্রার্থীর সংখ্যা ৮৪ জন।

(ঢাকাটাইমস/১৮জুন/প্রতিনিধি/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত