জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৪ জুন ২০১৮, ১৫:০১ | প্রকাশিত : ২৪ জুন ২০১৮, ১৪:৫৫

'মেধাই সম্পদ, বিজ্ঞান প্রযুক্তিই ভবিষ্যৎ' এই স্লোগানে শুরু হলো তিন দিনের জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা। একই সঙ্গে পর্দা উঠল দ্বিতীয় জাতীয় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ও দ্বিতীয় জাতীয় বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতার।

রবিরার সকালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে ৩৯ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। 

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায় এর সভাপতিত্বে বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সভাপতি অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এম পি ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের সচিব মো. আনোয়ার হোসেন। 

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান  বলেন, ‘১৯৭১ সালে যুদ্ধ করতে যখন গিয়েছিলাম তখন আমরা ভেবেছিলাম, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম আমাদের দেশটাকে এগিয়ে নেবে। আমাদের সে ধারণা সঠিক হয়েছে।  কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য আমার জাতির জনককে হারিয়েছিলাম। জাতির জনক ড. কুতরত ই খুদাকে দিয়ে দেশে বিজ্ঞান চর্চার চেষ্টা করেছিলেন।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘প্রযুক্তি প্রগতির পথ বলে গণ্য। ইউনিয়ন ও ঢাকার মধ্য কোনো তফাৎ নেই। গ্রাম থেকেও ভিডিও কলে দেশের বাইরে কথা বলা যাচ্ছে। আমরা যদি আমাদের স্কুল-কলেজগুলোতে বিজ্ঞান চর্চা বাড়াতে পারি, তাহলে বিজ্ঞানের প্রতি আকর্ষণ বাড়বে।’

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের ক্রিয়েটর প্রধাণ কাজী হাফিজুর রহমান, প্রোফেসর ড. কাজী আব্দুল ফাত্তাহ সহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: আনোয়ার হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, ‘দেশের তরুণ ও নবীদের বিজ্ঞান মনস্ক করতে এই মেলা বিশেষ অবদান রাখছে বলে আমরা মনে করি। অপ্রতিরোধ্য গতিতে আমরা এগিয়ে চলেছি। বাংলাদেশের গৌরব আজ মহাকাশে স্থান পেয়েছে। সর্বত্র আমরা মাথা উচু করে এগিয়ে গিয়েছি।’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সভাপতি অধ্যপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি আগত শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তোমরাই আগামীর বাংলাদেশ। আমাদের স্থানে ভবিষ্যতে তোমরাই এসে বসবে। আমাদের দেশে মেধার কোনো অভাব নেই। আমি শিক্ষকদের বলবো তাদের মেধাকে আরো গুরুত্ব দিতে। আমাদের যে মেধাশক্তি, আমাদের যে যুব শক্তি তাদেরকে যদি আমরা প্রযুক্তির মধ্যে নিয়ে আসতে পারি, তাহলে আমাদের উন্নতি কেউ ধরে রাখতে পারবে না।’

অনুষ্ঠানের সভাপতি জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায় বলেন, ‘শুধু বিজ্ঞান মেলা করেই আমরা শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে পারছি না, তাই গত বছর থেকে বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ ও অলিম্পিয়াড শুরু করেছি। আশা করছি, আগামী বছর থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে এই আয়োজনটি করার চেষ্টা করবো। আগামী বছর থেকে আমাদের চেষ্টা থাকবে প্রতি জেলা থেকে অন্তত একজন করে প্রতিযোগী দেশের বাহিরে বিভিন্ন বিজ্ঞান আয়োজনে পাঠাতে পারি।’

৩৯ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলায় স্টল থাকছে ১৯২ টি। জুনিয়র গ্রুপ, সিনিয়র গ্রুপ ও বিশেষ গ্রুপ এই ভাগে বিভক্ত হয়ে মোট ১৯২ টি দল ১৯২ টি স্টলে তাদের বিজ্ঞান ভিত্তিক উদ্ভাবন প্রদর্শন করবেন। 

দ্বিতীয় জাতীয় অলিম্পিয়াডে সারা দেশ থেকে মোট ২৫৬ জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেন। প্রতি জেলা থেকে সিনিয়র গ্রুপে ২ জন ও জুনিয়র গ্রুপে ২ জন করে ১২৮ জন সিনিয়র অলিম্পিয়াড ও ১২৮ জন জুনিয়র অলিম্পিয়াড অংশ নেন এবারের জাতীয় অলিম্পিয়াডে। 

দ্বিতীয় জাতীয় বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগীতায় ৮ টি বিভাগে মোট ২৪ টি দল অংশ গ্রহণ করে। প্রতি দলে ৩ জন করে প্রতিযোগী প্রতিযোগিতার সুযোগ পায় এবারের কুইজ প্রতিযোগীতায়। 

জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা, জাতীয় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড ও জাতীয় বিজ্ঞান বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতায় সারা দেশ থেকে প্রতিযোগী, গাইড ও অভিভাবক সহ  মোট ৭০০ জন অংশ নিচ্ছেন।

(ঢাকাটাইমস/২৪জুন/কারই/এজেড)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত