লক্ষ্মীপুরে সরকারি মালখানায় নষ্ট হচ্ছে হাজারো গাড়ি

আব্বাছ হোসেন, লক্ষ্মীপুর
 | প্রকাশিত : ১১ জুলাই ২০১৮, ২২:৪৭

লক্ষ্মীপুরে বছরের পর বছর খোলা জায়গায় পড়ে থাকায় নষ্ট হচ্ছে দুই হাজারের বেশি মোটরসাইকেল। বিভিন্ন অপরাধের ঘটনায় জব্দ এসব গাড়ি সংরক্ষণের কোন উদ্যোগ নেই কর্তপক্ষের। আইনি জটিলতার কারণ বলছেন- আইনজীবী ও বিআরটিএ কর্মকর্তারা।

তবে পুলিশ বলছে, জব্দ এসব গাড়ির বেশিরভাগই চোরাই। এছাড়া সঠিক কাগজপত্র না থাকায় দেয়া যাচ্ছে না এসব মোটরসাইকেল।

সরেজমিনে লক্ষ্মীপুর বিআরটিএ অফিস ও পুলিশ লাইন্সে দেখা গেছে, হাজারো মোটরসাইকেলের স্তূপ। দুই চাকার মোটরসাইকেল থেকে শুরু করে প্রাইভেটকার ও সিএনজিও রয়েছে এখানে। স্তূপে রাখা গাড়িগুলো মধ্যে বিভিন্ন নামি-দামী ব্যান্ডের গাড়িও রয়েছে। তবে রোদ-বৃষ্টি আর ধুলার আস্তরণে বোঝার উপায় নেই কোনটা সচল আর কোনটা অচল। সরকারি মালখালায় বছরের পর বছর অযত্নে পড়ে থাকায় কিছু গাড়ির কাঠামো ও শ্যাসিস ছাড়া অবশিষ্ট নেই। বিভিন্ন অপরাধের ঘটনায় জব্দ করা যানবাহন সরকারি মালখানায় পাঠায় আইনশৃংখলা বাহিনী। পরে আইনি জটিলতার কারণে অনেক মালিকই ছাড়িয়ে নিতে পারেন না। তাই দিনদিন এভাবে জমে গাড়ির স্তূপ।

লক্ষ্মীপুরে সরকারি মালখানায় বিভিন্ন সময় জব্দ করা মোটরসাইকেলের সংখ্যা প্রায় ২ হাজারের বেশি।

এ দিকে রহিম উদ্দিন, সফিক উল্যাহ ও মারফত হোসেন নামে কয়েকজন অভিযোগ করেন, বছরের পর বছর এসব জব্দ গাড়ি রোদে-বৃষ্টিতে রেখে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া গাড়ির বেশিরভাগ যন্ত্রাংশ ও ব্যাটারি খুলে নেয়ারও অভিযোগ করেন তারা। দ্রুত এসব গাড়ি নিলামে দেয়ার দাবি স্থানীয়দের।

এসব গাড়ি নিলাম বা  মামলা নিষ্পত্তি করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান জেলা জজকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হারুনুর রশিদ ব্যাপারী ও লক্ষ্মীপুর বিআরটিএ সহকারী পরিচালক আনোয়ার হোসেন।

পুলিশ সুপার আসম মাহাতাব উদ্দিন বলছেন, জব্দ এসব গাড়ির বেশিরভাগই চোরাই। এছাড়া সঠিক কাগজপত্র না থাকায় দেয়া যাচ্ছে না এসব মোটরসাইকেল। অল্প সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

(ঢাকাটাইমস/১১জুলাই/নিজস্ব প্রতিবেদক/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত