নির্যাতিত শতবর্ষী নারীর পাশে এমপি জগলুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৮, ২০:০১ | প্রকাশিত : ১২ জুলাই ২০১৮, ১৯:৩০

শ্রমিকদের সঙ্গে মাটি কেটে, তাদের সঙ্গে পান্তা খেয়ে, ভিক্ষুকের বাড়িতে ইফতার করে, নিজে হালচাষ করে, কচুরিপানা পরিষ্কার করে মশা নিধন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে  বিভিন্ন সময় আলোচনায় সাতক্ষীরার আলোচিত এই সাংসদ। এবার এই সংসদ সদস্য দেখতে গেলেন পুত্রবধূর হাতে নির্যাতনের শিকার শতবর্ষী এক বৃদ্ধাকে।

আজ বৃহস্পতিবার শ্যামনগর উপজেলার আটুলিয়া ইউনিয়নের বড়কুপট গ্রামে ওই বৃদ্ধাকে দেখতে যান সাংসদ জগলুল হায়দার। তিনি এ সময়‌ নির্যাতনের শিকার বৃদ্ধাকে মিষ্টি খাওয়ান, কিছু উপহার দেন এবং খোঁজখবর নেন। আর কেউ যেন বয়স্ক মানুষদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার না করেন সবাইকে সে ব্যাপারে সতর্ক করেন। পরে পুরো বিষয়টি তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেন।

জগলুল লেখেন, ‘গত ৬ জুলাই শুক্রবার শ্যামনগর উপজেলার আটুলিয়া ইউনিয়নের বড়কুপট গ্রামে শতবর্ষী বৃদ্ধা শ্বাশুড়ীকে নির্যাতন করে বৃদ্ধার পুত্রবধূ আশারানী। যার স্বামীর নাম প্রভাষ মন্ডল, বাবা মৃত তৈলক্ষ্য মন্ডল, মাতা-ফুল বাসী। তখন সংসদ অধিবেশন চলমান থাকায় আমি ঢাকায় ছিলাম। গতকাল গভীর রাতে ঢাকা থেকে শ্যামনগর ফিরি। আজ বৃহঃস্পতিবার সকাল ১০ টায় মিষ্টি ও নতুন শাড়ি নিয়ে বড়কুপট তাদের বাড়িতে যাই। পরম মমতায় মায়ের মত বৃদ্ধার মাথা নিজের কোলে তুলে নিয়ে নিজ হাতে বৃদ্ধার মুখে তুলে মিষ্টি খাওয়াই। নতুন শাড়ি বৃদ্ধার হাতে দেই এবং তার শারিরীক অবস্থার খোঁজ খবর নেই। তিনি যেন আগামীতে আর কখনও এমন নিরাপত্তাহীনতায় না ভোগেন সেটি নিশ্চিত করি এবং তার নিয়মিত খোঁজ খবর নিয়ে আমাকে জানানোর জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের জোরালো নির্দেশ দেই। আমার আসার সংবাদ পেয়ে উক্ত গ্রামের শত শত নারী, পুরুষ সেখানে উপস্থিত হয়। আমি সকলকে এমন ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে সকলকে অনুরোধ করি। ঘটনার দিন নির্যাতনকারী পুত্রবধূ এবং পুত্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল।’

ঢাকাটাইমস/১২জুলাই/এমএম/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত