জনগণের হক শতভাগ আদায় করব: দোলন

আলফাডাঙ্গা প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৪ জুলাই ২০১৮, ২২:২৬ | প্রকাশিত : ১৪ জুলাই ২০১৮, ২১:৩৪

আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে জনসেবা হিসেবে উল্লেখ করে ফরিদপুর-১ আসনে দলের মনোনয়ন-প্রত্যাশী আরিফুর রহমান দোলন বলেছেন, যারা জনগণের হক নষ্ট করে তারা আওয়ামী লীগের আদর্শের দুশমন। তিনি নির্বাচিত হলে জনগণের হক শতভাগ আদায় করবেন বলে অঙ্গীকার করেছেন।

শনিবার বিকালে বোয়ালমারী অডিটরিয়ামে ‘কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশন’ আয়োজিত চক্ষু শিবিরের সমাবেশে এ কথা বলেন দোলন। এই চক্ষু শিবিরে চোখের লেন্স সংযোজনসহ ছানি অপারেশন ও চশমা বিতরণ করা হয়। পাঁচ শতাধিক দরিদ্র রোগীকে বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা দেয়া হয়। ১৩১ জন অপারেশন রোগীর মাঝে চশমা ও আনুষঙ্গিক জিনিসপত্র বিতরণ করা হয়।

কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশন এর আগেও একাধিকবার মধুখালী, বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গায় বিনামূল্যে চক্ষুসেবা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

আসছে শোকের মাস আগস্টে এ ধরনের আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে দোলন বলেন, ‘এই মাসে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে হত্যা করে খুনিরা। শোকের মাস উপলক্ষে আমরা আরো চক্ষুশিবির স্থাপন করে বিনামূল্যে চক্ষুসেবা দেব।’

নিজেকে সব সময় মানুষের সেবক মনে করেন জানিয়ে কাঞ্চন মুন্সী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ওই আসনের জনগণের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি আপনাদের সেবক। এই জনপদে আমৃত্যু আপনাদের সেবা করে যেতে চাই। সব সময় যত ভালো কাজে আপনারা আদেশ-নির্দেশ করবেন আমি সেটি পালন করতে চাই।’

এ সময় দোলন সমাজসেবায় নিজেদের পারিবারিক ঐতিহ্যের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আমি যে পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছি, আমার এলাকায় আমার পরিবার শত বছর ধরে জনসেবায় নিয়োজিত। আমিও অঙ্গীকার করছি, সারা জীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাব।’

গণভবনে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে দোলন বলেন, ‘নেত্রী বলেছেন দলের মধ্যে ঐক্য রক্ষা করতে। বলেছেন, প্রত্যেক জনপদে জনগণ যাকে চায়, জনগণ যাকে ভালোবাসে তাকে মনোনয়ন দেয়া হবে। কে কত বড় নেতা সেটি দেখা হবে না।’

দোলন বলেন, ‘টিআর (টেস্ট রিলিফ), জিআর (জেনারেল রিলিফ), কাবিখা (কাজের বিনিময়ে খাদ্য) এগুলো জনগণের জন্য। নেত্রী চান এগুলো যেন শতভাগ জনগণের কল্যাণে ব্যয় করা হয়। ভবিষ্যতে প্রকৃত অর্থেই জনগণের জন্য কাজ করবেন, যাদের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী এমন নিশ্চয়তা পাবেন তাদেরই মনোনয়ন দেবেন বলেছেন।’

একই সঙ্গে দলের কোনো সংসদ সদস্যের বিপক্ষে যায় এমন বক্তব্য না দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথাও উল্লেখ করেন বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গায় জাগরণ তোলা এই রাজনীতিক। দোলন বলেন, ‘নেত্রী সব জানেন। অতএব আমরা কেউ আর কোনো নেতার বিপক্ষে বক্তব্য দেব না।’

বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জনগণের জন্য, খেটে খাওয়া মানুষের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন উল্লেখ করে ফরিদপুর-১ আসনের মনোনয়ন-প্রত্যাশী দোলন বলেন, ‘বাংলাদেশের অগ্রগতির একমাত্র রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে আমি মনে করি, আমাদের সবার উচিত শেখ হাসিনাকে অনুসরণ করা। কীভাবে আপনারা (জনগণ) ভালো থাকতে পারেন, কীভাবে আপনাদের জীবনমানের উন্নতি হয়, কীভাবে আপনারা ভালো চিকিৎসা পেতে পারেন, ভালো শিক্ষা পেতে পারেন সেই লক্ষ্যে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

উপস্থিত সুধীজনদের উদ্দেশে ঢাকাটাইমস সম্পাদক বলেন, ‘আপনারা নিশ্চিত থাকুন, শেখ হাসিনা ৩০০ আসনে তাদেরই প্রার্থী দেবেন যারা আপনাদের খাদেম হিসেবে, সেবক হিসেবে কাজ করবেন। শেখ হাসিনা এমন সংসদ সদস্য চান, যিনি কৃষকের উৎপাদিত গম ও চালের মূল্য নিশ্চিত করতে পারেন।’

বাংলাদেশে অনেক উন্নয়ন হচ্ছে উল্লেখ করে কৃষক লীগের সহ-সভাপতি বলেন, ‘আমরা চাই আরও উন্নয়ন হোক। এ জন্য শেখ হাসিনাকে আবার জেতাতে হবে। ১৫১ আসনে জিততে হবে।’

দোলন সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত চক্র ওত পেতে আছে কীভাবে আওয়ামী লীগকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। শেখ হাসিনাকে কীভাবে তারা ঘায়েল করতে পারে।’ এ ব্যাপারে নেত্রী সচেতন আছেন জানিয়ে দোলন বলেন, ‘নেত্রী ইতিমধ্যে হলুদ কার্ড দেখিয়েছেন। টাকার বিনিময়ে যারা কাজ করেন আগামী সংসদ নির্বাচনে তাদের নৌকা প্রতীক না দিয়ে লাল কার্ড দেখাবেন।’

জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে দোলন জনগণের হক শতভাগ আদায় করবেন বলে অঙ্গীকার করেন। তিনি বলেন, ‘যদি কোনো দিন রাব্বুল আলামিন আমাকে আপনাদের প্রতিনিধি করে জাতীয় সংসদে নিয়ে যান, জনগণের হক শতভাগ আদায় করব ইনশাল্লাহ। আমি অঙ্গীকার করছি, কোনো দালাল চক্র আমাকে ঘিরে থাকবে না। আমি অঙ্গীকার করছি কোনো নিয়োগে টাকার লেনদেন হবে না। আমি ওয়াদা করছি, প্রকৃত কৃষক গোডাউনে তার ফসল রাখতে পারবেন, ন্যায্য মূল্য পাবেন।’

এ সময় তরুণ এই রাজনীতিক দলের মধ্যে কোনোভাবেই বিভেদ সৃষ্টি না করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে বলেন, যারা মানুষের হক নষ্ট করে তারা আওয়ামী লীগের দুশমন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের দুশমন।

অনুষ্ঠানে ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা কৃষক লীগের সদস্য সচিব শেখ শহীদুল ইসলাম শহীদের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন আলফাডাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান এম এম জালাল উদ্দীন আহমেদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুর রহমার বাশার, কৃষকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শেখ শওকত হোসেন, আলফাডাঙ্গা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম আহাদুল হাসান আহাদ, শেখর ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইস্রাফিল মোল্যা, বোয়ালমারী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আলীম মোল্যা, বোয়ালমারী পৌর কৃষকলীগের আহবায়ক রোকন উদ্দীন মোল্যা, উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহবায়ক শরীফ শাহীনুল আলম, শেখর ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এন এম জামাল, ঢাকা মহানগর উত্তর কৃষকলীগের সদস্য খান মাসুদুর রহমাম প্রমুখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আব্দুর রশিদ, বোয়ালমারী আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি গোলাম ছরোয়ার মৃধা, বোয়ালমারী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান খসরু মিয়া, বোয়ালমারী উপজেলা কৃষকলীগের আহবায়ক মনিরুজ্জামান মৃধা লিটন, আলফাডাঙ্গা পৌর কৃষকলীগের আহবায়ক আওয়াল ফকির, যুগ্ম আহবায়ক মো. শাহাজান তালুকদার, বুড়াইচ ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সানেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাব পান্নু, টগরবন্দ ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপন।

অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে উপস্থাপনা করেন গাজী সামসুজ্জামান খোকন ও সালমান মাহমুদ।

 (ঢাকাটাইমস/১৪জুলাই/ইএস/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজপাট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত