জনসভায় আর অনুমতির ধার ধারবেন না মওদুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ জুলাই ২০১৮, ২০:০৬ | প্রকাশিত : ২০ জুলাই ২০১৮, ১৯:৪৩

পুলিশি অনুমতি না পেয়ে বেশি কিছু ঘোষিত সমাবেশ না করা বিএনপি আগামীতে এই কর্মসূচি পালনে অনুমতির অপেক্ষা করবে না। জানিয়েছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ।

শুক্রবার বিকালে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে এই ঘোষণা দেন বিএনপি নেতা। খালেদা জিয়াসহ সব ‘রাজবন্দীদের’ মুক্তি এবং বিএনপি নেত্রীর ‘সুচিকিৎসার’ দাবিতে রাজধানীতে এ সমাবেশ হয়।

বিকাল তিনটায় এ সমাবেশ শুরু হয়। তবে দুপুরের পর থেকেই তীব্র গরমের মধে্যও রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে আসেন।

মওদুদ আহমদ বলেন, ‘আগামীতে পুলিশের অনুমতি নিয়ে সমাবেশ করবো না আমরা। দলের পক্ষ থেকে সমাবেশের ঘোষণা দেওয়া হবে। এরপর আমরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করব এতো তারিখে সমাবেশ করতে যাচ্ছি।  আপনারা নিজেদের দায়িত্ব পালন করুন।’

‘সেই দিন আর বেশি দূরে নাই যেদিন বিএনপি পুলিশের অনুমতি ছাড়াই সমাবেশ করবে। তাই আমি নেতাকর্মীদের সেই দিনের জন্য প্রস্তুত থাকতে আহ্বান করব।’

‘কি আপনারা প্রস্তুত তো?-বিএনপি নেতার এই প্রশ্নের জবাবে নেতা-কর্মীরাও জানান, তারা পুরোপুরি প্রস্তুত।

পরে মওদুদ আবার বলেন, ‘সেই দিন আসছে, আপনারা প্রস্তুতি নিন। দেখা যাবে, সময় আসছে।’

পুলিশের অনুমতি না পেয়ে বেশ কিছু সমাবেশ বাতিল হলেও এই কর্মসূচিতে পুলিশ কোনো বাধা দেয়নি। আর বেলা তিনটায় সমাবেশ শুরু হলেও জুমার নামাজের পর থেকেই মিছিল সহকারে নেতা-কর্মীরা আসতে থাকেন জনসভাস্থলে। আর সাম্প্রতিক দলের বিভিন্ন জমায়েতের মধ্যে সবচেয়ে বড় এই সমাবেশটি হয় বিকাল পাঁচটার পর পর্যন্ত।

পুলিশ এই সমাবেশে বাধা না দিলেও চারপাশে ব্যাপক নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেয়। মোতায়েন করা জয় জলকামানসহ সাঁজোয়া গাড়ি। তবে মঞ্চে বসা নিয়ে এক ছাত্রদল নেতার মাথা ফাটা ছাড়া কোনো গোলযোগ হয়নি। 

বিএনপি নেতা বলেন, ‘১৬ কোটি মানুষের জন্য সুযোগ আসেছে, তাদের জন্য চ্যালেঞ্জ আসছে। এই চ্যালেঞ্জ হলো এই সরকারকে অপসারণ করতে হবে। জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি দিয়ে মুক্তি স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে।’

‘এর জন্য এক নম্বর হলো খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। আর দুই নম্বর হলো রাজপথই আমাদের একমাত্র পথ।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনের আগে বর্তমান সরকারের পদত্যাগ আর ভোটে সেনা মোতায়েন হলেই কেবল নির্বাচন করতে দেবেন তারা।

ঢাকাটাইমস/২০জুলাই/জিএম/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত