বেতন-বোনাসের দাবিতে শ্রমিকদের অবস্থান কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৫ আগস্ট ২০১৮, ১৮:০৭

সাভারের আশুলিয়ায় বকেয়া বেতন, ঈদ বোনাস ও বন্ধ কারখানা খুলে দেয়ার দাবিতে মঙ্গলবার সড়ক অবরোধের পর বুধবার কারখানার ভেতরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন শ্রমিকরা। এ ঘটনায় কারখানার অভ্যন্তরে মালিকপক্ষের এক কর্মকর্তাসহ কারখানার পাঁচ স্টাফকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন শ্রমিকরা। তবে বুধবার বিকালেই বিজিএমইএ’র সাথে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বৈঠকের মাধ্যমে এই সংকট নিরসন হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন কারখানা কর্তৃপক্ষ।

সকাল থেকে জামগড়া এলাকার মেসার্স বাঁধন করপোরেশন লিমিটেড নামে কারখানার কয়েকশ শ্রমিক এই অবস্থান কর্মসূচি পালন করে।

কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তামান্না ইসাবেলা বাঁধন-এর উপদেষ্টা নূর উদ্দিন জানান, বিগত এক বছর ধরে শুধু সাব-কন্ট্রাক্টের কাজ থাকায় প্রায় অর্ধকোটি টাকা ভর্তুকি গুণতে হচ্ছিল মালিককে। গত জুন মাসে প্রায় ১৫ লাখ টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হলেও সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। ফলে সাব-কন্ট্রাক্টের প্রায় ৮০ হাজার কাজ নির্দিষ্ট সময় শেষ করার জন্য তাদের বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত খরচ করে জেনারেটর চালাতে হয়েছে। কিন্তু এরই মধ্যে জুলাই মাসের ১০ তারিখ শ্রমিকরা বকেয়া জুন মাসের বেতনের দাবিতে কাজ বন্ধ করে দিয়ে কারখানায় কর্মবিরতি পালন করে। ফলে সার্বিক দিক দিয়ে বিপাকে পড়েন কারখানার মালিক। এসময় তিনি শ্রমিকদের ২০ জুলাই বেতন পরিশোধ করা হবে বলে কাজ বন্ধ না রাখতে অনুরোধ করলেও এতে লাভ হয়নি। পরবর্তীতে উপায়ন্তু না পেয়ে মালিক কারখানাটি বন্ধ করতে বাধ্য হন। তবে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মালিকের নির্দেশে শ্রমিকদের জুন মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য তিনি ও পাঁচজন স্টাফ কারখানায় আসেন। কিন্তু শ্রমিকরা এক মাসের বেতন না নেয়ার কথা জানিয়ে জুলাই মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে তাদের কারখানার অফিস কক্ষে আটকে রাখে।

তিনি আরো জানান, বিকালে কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিজিএমইএর মধ্যে বৈঠকের মাধ্যমে শ্রমিকদের সমস্ত পাওনা বুঝিয়ে দেয়ার বিষয়টি সুরাহা হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।

এদিকে কারখানার সামনে অবস্থান নেয়া শ্রমিকরা জানায়, টাকার অভাবে তাদের বাসা ভাড়া ও দোকানের টাকা বাকি পড়েছে। সামনে ঈদকে কেন্দ্র করে বর্তমানে দেয়ালে তাদের পিঠ ঠেকে যাওয়ার অবস্থা। এখন তারা যখন উপায়ন্তু না পেয়ে আন্দোলনে নেমেছেন তখন কেবল জুন মাসের বকেয়া পরিশোধ করা হবে বলে মালিক লোক পাঠিয়েছে। কিন্তু এত দিন কর্মহীন অবস্থা পাড় করার পর সামনে ঈদকে কেন্দ্র করে তারা পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বলেও জানান শ্রমিকরা। তাই তাদের বকেয়া তিন মাসের বেতন ও ঈদ বোনাসসহ বন্ধ কারখানা খুলে দেয়ার দাবি জানান তারা।

আশুলিয়া শিল্প পুলিশ-১ এর পুলিশ সুপার ছানা শামিনুর রহমান শামীম জানান, যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কারখানার অভ্যন্তরে শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন রয়েছে। এছাড়া বিকালে মালিকপক্ষ ও বিজিএমইএর বৈঠকের পর শ্রমিকরা তাদের পাওনা বুঝে পাবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের জুন মাসের বকেয়া বেতনের জন্য গত ৩১ জুলাই কারখানার সামনে প্রথম অবস্থান কর্মসূচি পালন করে শ্রমিকরা। এরপর অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা বন্ধ থাকায় গত ১৪ আগস্ট টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে বিক্ষোভ করেন শ্রমিকরা।

(ঢাকাটাইমস/১৫আগস্ট/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Close