মুফতি হবার স্বপ্ন কেড়ে নিল বেপরোয়া বাস

রাজীবুল হাসান, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)
| আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০১৮, ২২:২২ | প্রকাশিত : ১৬ আগস্ট ২০১৮, ২২:০৩

মুফতি হতে পারেনি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হাফেজ মোশারফ। নিহত মোশারফের মা মেহের খাতুন বলেন, ‘আমার স্বপ্ন ছিল ছোট ছেলেকে মুফতি বানাব। সেই স্বপ্ন আমার পূরণ হলো না। অকালে ঝড়ে গেল আমার আদরের ছোট ছেলেটি।’

বুধবার দুপুরে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে বাসচাপায় নিহত হয় মাদ্রাসাছাত্র হাফেজ মো. মোশারফ হোসেন। সে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ জোয়ারিয়া গ্রামের মো. আব্দুল মালেকের ছেলে।

নিহতের পরিবার বলছে, হাফেজ মোশারফ পাশের উপজেলা কুলিয়ারচরের আগরপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকার জামিয়া মাদানিয়া ইসলামিয়ার নাহভেমির পরীক্ষার্থী ছিল।

তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সে ৪র্থ এবং ভাইদের মধ্যে সবার ছোট।

ওই মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মুফতি মনির হোসেন আল হাবেবী বলেন, মোশারফ মেধাবী ছাত্র ছিল। এবছর নাহভেমির পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ বেফাক বোর্ডে শ্রেষ্ঠ হবে- এমন আশা ছিল। এ স্বপ্ন আর পূরণ হলো না।

তিনি বেপোরোয়া গাড়ি চালকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।

নিহতের বড় ভাই মাওলানা মাহমুদুল হাসান মঞ্জিল বলেন, ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে মাদ্রাসায় শোক দিবস পালন শেষে সিএনজি অটোরিকশাযোগে বাড়ি ফেরার পথে আমার ছোট ভাই হাফেজ মোশারফ হোসেন সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়।

তিনি আরো বলেন, আর যেন কেউ আমার মতো আদরের ভাইকে না হারায়। 

প্রসঙ্গত, গত ১৫ আগস্ট (বুধবার) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচরে ভৈরব-কিশোরগঞ্জ হাইওয়ে সড়কে উপজেলার কোনাপাড়ায় বাসচাপায় সিএনজি অটোরিকশা চালকসহ তিনজন নিহত হন।

নিহতরা হলেন- মাদ্রাসাছাত্র হাফেজ মো. মোশারফ হোসেনসহ সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক বাজিতপুর উপজেলার পুরান খলা গ্রামের আবুল হোসেন ও ভৈরব উপজেলার মিরারচর গ্রামের বাহার উদ্দিন।

(ঢাকাটাইমস/১৬আগস্ট/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত