‘বাবা’ হারালেন লতা মঙ্গেশকর

বিনোদন ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১১:২৪ | প্রকাশিত : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১০:৫৯

শিরোনামটি চমকে ওঠার মতোই। উপমহাদেশের জীবন্ত কিংবদন্তী ভারতীয় সঙ্গীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর তাঁর বাবা দ্বীননাথ মঙ্গেশকরকে হারিয়েছেন ৭৫ বছর আগে। ১৯৪২ সালের ২৪ এপ্রিল মাত্র ৪১ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন মারাঠি থিয়েটার অভিনেতা অর্থাৎ লতা মঙ্গেশকরের বাবা দ্বীননাথ। তাহলে এতো বছর পরে আবার কীভাবে তিনি বাবা হারালেন!

ঘটনা হচ্ছে, বৃহস্পতিবার ৯৩ বছর বয়সে মারা গেছেন ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, দেশটির জনতা পার্টির প্রতিষ্ঠাতা এবং দলের প্রথম সভাপতি অটলবিহারী বাজপেয়ী। বিখ্যাত এ রাজনীতিকের মৃত্যুতে টুইট করে শোক জানিয়েছেন বলিউড ও টলিউডের তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সঙ্গীতশিল্পীরাও। যাদের মধ্যে আছেন গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম লেখানো সঙ্গীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকরও।

তিনি লিখেছেন, ‘ঋষিতুল্য প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী, ভারতরত্ন অটলবিহারী বাজপেয়ীর প্রয়াণের খবরে আমি খুবই আঘাত পেয়েছি। ওনাকে আমি আমার বাবার মত দেখতাম। আমাকেও উনি নিজের মেয়ের মতো স্নেহ করতেন। ওনাকে আমি ‘দাদ্দা’ বলে ডাকতাম। আমার বাবার মৃত্যুতে আমি যতটা দুঃখ পেয়েছিলাম, আজও ততটাই কষ্ট হচ্ছে।’

এদিকে বলিউডের মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন তাঁর টুইটে লিখেছেন, ‘এক মহান নেতা, প্রখ্যাত কবি, অসামান্য ব্যক্তিত্বকে হারালাম।’ প্রিয়াংকা চোপড়া লিখেছেন, ‘প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর চিন্তাভাবনা, অবদান আমাদের দেশকে এক অন্য জায়গায় পৌঁছে দিয়েছিল। দেশ তাঁকে সারাজীবন মনে রাখবে।’

অন্যদিকে কলকাতার সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় টুইট করে লিখেছেন, ‘প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যু আমাদের সকলকে শোকস্তব্ধ করে দিয়েছে। এমন একজন ব্যক্তিত্বকে হারালাম, যাঁর জ্ঞান ও প্রজ্ঞা আমাদের পাথেও। তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।’

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন দেশটির রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। শোক জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদও। আজ শুক্রবার যথাযথ পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বাজপেয়ীর শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। তাঁর মৃত্যুতে সাত দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছে ভারত সরকার।

প্রসঙ্গত, গত দুই মাস ধরে অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস (এইমস) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ী। অনেক দিন ধরেই তাঁর একটি কিডনি অচল ছিল। গত কয়েক বছর ধরে সচল ছিল না তার স্মৃতিশক্তিও। কথা বলার ক্ষমতাও হারিয়েছিলেন। কিডনি, মূত্রনালী ও বুকে সংক্রমণ নিয়ে গত ১১ জুন থেকে টানা হাসপাতালেই ছিলেন তিনি।

১৯৯৬, ১৯৯৮, ১৯৯৯ সালগুলোতে মোট তিনবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন সদ্য প্রয়াত অটলবিহারী বাজপেয়ী। প্রথম দফায় ১৩ দিন, দ্বিতীয় দফায় ১৩ মাস এবং তৃতীয় দফায় পূর্ণ সময়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। ২০১৪ সালে মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বাজপেয়ীকে ভারতরত্ন দেয়া হয়।

ঢাকাটাইমস/১৭ আগস্ট/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত