ঈদে নিরাপত্তায় র‌্যাবের দুই সপ্তাহের পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ আগস্ট ২০১৮, ১৫:২৯ | প্রকাশিত : ১৮ আগস্ট ২০১৮, ১৫:২৭

পবিত্র ঈদুল আজহা নির্বিঘ্নে পালনে দুই সপ্তাহের বিশেষ নিরাপত্তা দেবে র‌্যাব। এজন্য তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে বাহিনীটি।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে ‘আসন্ন ঈদ-উল-আজহা ২০১৮ উপলক্ষ্যে নিরাপত্তা’ ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান বাহিনীটির মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ।

বেনজীর বলেন, ১৩ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে ২৬ আগস্ট পর্যন্ত র‌্যাবের নিরাপত্তা কার্যক্রম চলবে। দুই সপ্তাহের নিরাপত্তা পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সারাদেশে ২৪৫টি পেট্রোল টিম মোতায়েন আছে। রিজার্ভ স্ট্রাইকিং ফোর্স রয়েছে ৫৬টি। ঢাকার এক্সিট পয়েন্টগুলোয় বসানো হয়েছে ২০টি অস্থায়ী ক্যাম্প। মেঘনা ও মধুমতি ব্রিজে অস্থায়ী ক্যাম্প রয়েছে। দৌলতদিয়া, মাওয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

মহাসড়কে গতি প্রতিরোধে হাইওয়ে ও লোকাল পুলিশের সঙ্গে মিলে র‌্যাব কাজ করবে জানিয়ে বেনজীর বলেন, ‘আপনারা কেউ হাইস্প্রিডে গাড়ি চালাবেন না। আর চালকদের বলব গাড়ি হেলপারদের হাতে তুলে দেবেন না। পাশাপাশি ঘরে ফেরা কেউ খোলা ট্রাকে উঠবেন না, চালকরাও কেউ ট্রাকে যাত্রী তুলবেন না।’

ঈদে ঘরমুখো মানুষদের যানজটের চিত্র র‌্যাব জানাবে বলে জানান বেনজীর। র‌্যাব মহাপরিচালক বলেন, ঈদে ঘরমুখো মানুষকে নৌ, রেল ও সড়কপথের যানজটসহ সার্বিক চিত্র জানাবে র‍্যাব। চার ঘণ্টা পর পর মহাসড়কের যানজট পরিস্থিতি ও নৌ-পথের আপডেট জানা যাবে তাদের ফেসবুক পেজে। কেউ বাসা থেকে বের হওয়ার সময় রাস্তাঘাটের আপডেট দেখে বের হতে পারবেন। এছাড়া র‍্যাবের প্রতিটি ব্যাটালিয়ন তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজেও তার নিজ এলাকার যানজট চিত্র আপডেট দিবে। ঘরমুখো মানুষ নিরাপদে ঘরে ফিরতে পারবে এই জন্য আমাদের এই ব্যবস্থা।’

বেনজীর আহমেদ বলেন, দেশের বড় ঈদগাহ কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া, দিনাজপুরের গোর ই শহীদ ময়দান ছাড়াও ঢাকাসহ সারাদেশে জামায়াতে ব্যাপক নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে র‌্যাবের সদস্যরা।

ঈদের জামাতে কোনো জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই জানিয়ে র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, দেশে সক্রিয় ও নিষ্ক্রিয় জঙ্গি সংগঠনগুলোকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে। তাদের গতিবিধি আমাদের নজরে আছে। মাদকের পাশাপাশি আমরা প্রতি সপ্তাহে জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করছি।

প্রতিটি গরুর হাটকে কেন্দ্র করে ক্যাম্প বসানো হয়েছে জানিয়ে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘গরুর হাটে আসা ক্রেতা ও বেপারীদের নিরাপত্তায় র‍্যাবের সদস্যরা কাজ করছে। এছাড়াও হাটে মলম পার্টি, ছিনতাই পার্টি ও অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের গ্রেপ্তারে মাঠে আছে র‍্যাব সদস্যরা। এরই মধ্যে এই চক্রের ১৭ জনের মতো সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গরুর হাটগুলো যাতে মহাসড়ক বা রাস্তায় না বসে তা নজরে রাখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।’

ঢাকাটাইমস/১৮আগস্ট/এসএস/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত