সোমবার বন্ধ হচ্ছে প্রায় সব বাংলা সিরিয়াল

বিনোদন ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৯:১৯ | প্রকাশিত : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৯:১৪

বকেয়া পারিশ্রমিকের দাবিতে গত শনিবার থেকে কলকাতার টালিগঞ্জে বহু জনপ্রিয় বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং বন্ধ আছে।অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত এই ধর্মঘটের সমাধান সূত্রের খোঁজে রবিবার আর্টিস্ট ফোরামের সদস্যরা এবং প্রযোজকদের একাংশ বৈঠকও করেন। কিন্তু তাতেও কোনও সমাধান মেলেনি। ফলে সিরিয়াল সম্প্রচার এখন প্রশ্নের মুখে।

আর্টিস্ট ফোরামের মূল অভিযোগ, বেশ কিছু ধারাবাহিকের অভিনেতা এবং টেকনিশিয়ানদের পারিশ্রমিক বকেয়া রয়েছে। তা না মেটানো পর্যন্ত শুটিংয়ে অংশ নিতে চাননি তারা। অভিযোগ, মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে পারিশ্রমিক দেয়ার কথা প্রযোজক সংস্থার। কিন্তু বেশ কিছু হাউস নাকি সেই নিয়ম মানছে না।

আনন্দবাজার জানায়, সোমবার বিকালে টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে সংবাদ সম্মেলন করেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায়, শঙ্কর চক্রবর্তী, স্বরূপ বিশ্বাস প্রমুখ।

প্রসেনজিৎ বলেন, ‘টেকনিশিয়ানদের অনেক টাকা বকেয়া রয়েছে। ফেডারেশন এবং আর্টিস্ট ফোরামের তরফে গত ৭ জুলাই একটা চুক্তিপত্রে আমরা সই করেছিলাম। যেখানে বকেয়া টাকা মিটিয়ে দেয়ার কথা ছিল। আর্টিস্ট ফোরামের তরফে আমরা অনুরোধ করেছিলাম কাজটা শুরু হোক। কিন্তু পরে অনেকে বলেছেন আমরা ওই চুক্তি মানি না। সেই সময় তো তারা বলতে পারতেন।’

আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অরিন্দম গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, ‘বেশ কিছু প্রযোজক শিল্পীর ন্যায্য পাওনা কেটে সেটা পরে জমা করছেন না।’

অন্যদিকে স্বরুপ বিশ্বাস বলেন, ‘ফেডারেশন এবং আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অনুরোধ করছি, কাজটা শুরু হোক। কোটি কোটি দর্শক বঞ্চিত হচ্ছেন।’

শুটিং বন্ধ থাকাটা ভালো চোখে দেখছেন না বর্ষীয়ান অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়। বরং গোটা ঘটনায় তিনি ইন্ডাস্ট্রির ভবিষ্যতের জন্য আশঙ্কার কালো মেঘ দেখছেন।

তিনি বলেন, ‘আর্টিস্ট ফোরামের যে দাবি, টাকা সময় মতো দেয়া বা নির্দিষ্ট সময়ে কাজ করানো, সবটাই যুক্তিসঙ্গত। কিন্তু এই প্রোডাকশন হাউস টাকা ঢালে বলেই আমরা সবাই কাজ করতে পারি। টেকনিশিয়ানরা প্রোডাকশন হাউস তৈরি করে কাজ করছে, সেটা তো কখনও হয়নি, হবেও না। স্ট্রাইক করে অনেক ইন্ডাস্ট্রি নষ্ট হয়েছে আগে। এটাও তেমন হবে না তো?’

আবার পারিশ্রমিক বা কাজ পাওয়া নিয়ে ইন্ডাস্ট্রির অন্য সমস্যার কথা তুলে ধরলেন অভিনেত্রী কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি শেয়ার করলেন, ‘যেভাবে সিরিয়াল পাড়ায় কাজ হয় সেটা একেবারেই ঠিক নয়। প্রযোজক, আর্টিস্ট কারও দিক থেকেই নয়। দেখুন, মূল চরিত্র যিনি করেন তিনি অন্য সিরিয়াল করতে পারেন না। আবার একদল আছেন যারা মূল চরিত্র করেন না, তারা কিন্তু তিনটে সিরিয়াল করতে পারছেন। কে একটা করবে আর কে তিনটে, সেটা প্রযোজকের সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্কের নিরিখে তৈরি হয়। সবার ক্ষেত্রে যাতে একটা নিয়ম হয় সেটার জন্যই এই স্ট্রাইক। এর সমাধান হওয়া দরকার। মধ্যস্থতা করে সবটা পেশাদার করা দরকার।’

তবে এই ঘটনা প্রথম নয়,গত মাসেও বাংলা সিরিয়ালের শিল্পী সংগঠন বা আর্টিস্ট ফোরামের সদস্যদের প্রতিবাদের জেরে বন্ধ ছিল সিরিয়ালের শুটিং৷ সে সময় অভিযোগ উঠেছিল, কাজের কোনও নির্দিষ্ট সময়সীমা নেই। কাজের সময় বেঁধে দেয়ার দাবি উঠেছিল।

কখনও বকেয়া পারিশ্রমিকের দাবি, কখনও বা কাজের নির্দিষ্ট সময়সীমা— এ সব নিয়ে ধর্মঘটের জেরে শুটিং আদৌ কবে থেকে ফের শুরু হবে, তারই উত্তর খুঁজছে এই ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে জড়িত সব মহলই।

(ঢাকাটাইমস/২০আগস্ট/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত