সৌদির সঙ্গে মিল রেখে কয়েক জেলায় ঈদ উদযাপন

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২১ আগস্ট ২০১৮, ১৩:৩২

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি জেলায় ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়েছে। মঙ্গলবার ঈদগাহ মাঠ ও মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা। এ সময় তারা কোলাকুলি করেন ও পারস্পরিক কুশলাদি বিনিময় করেন। পরে পশু কোরবানি করেন তারা। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর।

দিনাজপুর

মঙ্গলবার সকালে দিনাজপুরের সদর, কাহারোল, চিরিরবন্দর এবং বিরল উপজেলার বেশ কয়েকটি স্থানে আলাদা আলাদা ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন প্রায় দুই হাজার মুসল্লি। পরে তারা পশু কোরবানি করেন।

দিনাজপুর শহরের কমিউনিটি পার্টি সেন্টারে সকাল সোয়া আটটায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ইমামতি করেন সাইফুল ইসলাম। এই জামাতে প্রায় দুই শতাধিক মুসল্লি নামাজ আদায় করেন।

এছাড়াও কাহারোল উপজেলার বলেয়া ভবানীপুর চিরিরবন্দর উপজেলার সাইতাড়ার রাবার ড্যাম এলাকা, বিরলের সালন্দরসহ কয়েকটি স্থানে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা।

আগামীকাল বুধবার সর্ববৃহৎ ঈদের জামাত দিনাজপুর গোর এ শহীদ বড় ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে সকাল নয়টায়।

লক্ষ্মীপুর

প্রতিবছরের ন্যায় এবারও লক্ষ্মীপুরে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে  ১১টি গ্রামে ঈদুল আজহা পালন করা হয়। জেলার রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও, জয়পুরা, বিঘা, দক্ষিণপাড়া ও রায়পুর উপজেলার কলাকোপা, সদর উপজেলার বশিকপুর, পূর্বপাঁচ পাড়া ও মহাদেবপুর গ্রামসহ ১১টি গ্রামে ঈদুল আযহা উদযাপিত হচ্ছে।

এ সব গ্রামের প্রায় হাজারো মুসল্লি পৃথক পৃথক ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

সকাল নয়টায় রামগঞ্জ উপজেলার খানকায়ে মাদানীয়া কাশেমীয়া খানকা শরীফে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এসব এলাকার মানুষ পবিত্র ভূমি মক্কা ও মদিনার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ঈদসহ সব ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছেন।

লালমনিরহাট

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে মঙ্গলবার সকালে ঈদুল আযহা উদযাপন করছে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় কয়েকটি গ্রামের মুসল্লিরা।

সকাল নয়টার দিকে কালীগঞ্জ উপজেলার মুন্সিপাড়ায় ঈদের নামাজের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ পরিচালনা করেন মাওলানা ইমান আলী।

ঈদের জামাতের প্রাধান খাদেম মাওলানা ইমান আলী জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার, সুন্দ্রহবী, কাকিনা, চাপারহাট, চন্দ্রপুর, আমিনগঞ্জসহ বিভিন্ন গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবারের মুসল্লিরা মুন্সিপাড়ার মসজিদে এসে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন।

কালীগঞ্জ উপজেলার হাড়িশহরের মুন্সিপাড়ার ঈদগাহ মাঠের সভাপতি মাওলানা মাছুম বিল্লাহ বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে বিগত কয়েক বছর ধরে এই এলাকার মানুষ ঈদুল ফিতর, ঈদুল আজহা, শবে-কদর, শবে মেরাজসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে আসছেন।
স্থানীয় মুন্সিপাড়া জামে মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় শেষে পশু কোরবানি দিয়েছেন তারা।

এছাড়া দেশের মুন্সীগঞ্জ, চাঁদপুর, হবিগঞ্জ, শরীয়তপুর ও বরিশালের বেশ কয়েকটি স্থানেও ঈদুল আজহা উদযাপন করেছেন মুসল্লিরা।

(ঢাকাটাইমস/২১আগস্ট/প্রতিনিধি/ওআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত