ঈদের আগে নীরব ঢাকা

মোসাদ্দেক বশির, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২১ আগস্ট ২০১৮, ২০:৪০

ঈদুল আজহায় ঢাকা ছেড়ে গেছে অগণিত মানুষ। সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষই ঢাকা ছাড়ায় রাজধানী কার্যত ফাঁকা। সড়কে গণপরিবহনের উপস্থিতিও কম। রাজপথে কুরবানির পশু কিনে হাট ফেরত লোকজন ছাড়া প্রায় নীরব প্রতিটি এলাকা। খোলা নেই অধিকাংশ দোকানপাটও। ফলে জনকোলাহলহীন অন্যরকম রূপে চিরচেনা নগরী।

ঢাকার রাস্তা ঘুরে দেখা গেছে, ঈদের আগের দিনই মঙ্গলবার ব্যস্ততা নেই ঢাকার রাস্তায়। প্রতিদিন বিকাল থেকে সন্ধ্যার দিকে যে যানজট হতো, তাও নিই। চলাচলে বাধা থাকা ভিআইপি রোডগুলিতেও চলছে রিক্সা। যে কয়েকটা বাস চলছে তাতেও যাত্রীর সংখ্যা কম। আর রাস্তা ফাঁকা পেয়ে দাপটে চলছে প্রাইভেটকার ও সিএনজি অটোরিক্সা।

ঢাকার ব্যস্ততম এলাকা গুলিস্তানে দেখা যায়, কয়েকটি বাসের হেল্পাররা ডেকে ডেকে যাত্রী তুলছেন। তবে প্রতিদিনের মতো কোনো ধরনের জটলা নেই। কয়েকটি রিক্সা চালক দাঁড়িয়ে যাত্রী ধরার চেষ্টা করছেন। ঘরমুখী মানুষ সদরঘাটের দিকে যাচ্ছেন। 

প্রায় সুনশান বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিল। ব্যাংক ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এ এলাকায় কোনো ধরনের কোলাহলও নেই। মতিঝিল মোড়ে দু’একটি গাড়ি ছাড়া পুরো রাস্তা যেন রিক্সার দখলে।

বাংলামোটর ও সার্কফোয়ারা এলাকায় সব সময় দীর্ঘ গাড়ির সারি দেখা যায়। তবে মঙ্গলবার বিকালের দিকে সেখানে কোনো গাড়ি নেই। ট্রাফিক পুলিশরা সহজে ট্রাফিক সামলাচ্ছেন।

রিকশাচালক দেলোয়ার বলেন, ঈদের আগের দিন যাত্রীরা একটু ভাড়া নিয়ে কোনও ঝামেলা করেন না। ফাঁকা রাস্তায় সহজে গাড়ি চলানো যায়।

এ রিক্সাচালক রাতে রংপুরে বাড়ি যাবেন। বললেন, ঈদের আগের রাতে বাড়ি যাওয়া সহজ। গাড়ির চাপ কম থাকে। অনেকে গরু নিয়ে ঢাকায় আসে। এরা আবার ফিরে যায়। তাদের সঙ্গে কম টাকায় যাওয়া যায়।  

এদিকে রাজধানীতে বাসে কন্ডাক্টররা নির্ধারিত ভাড়ার পাশাপাশি যাত্রীদের কাছ থেকে বকশিশের নামে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তারা প্রতি যাত্রীর কাছ থেকে ভাড়ার চেয়ে পাঁচ টাকা বকশিশ হিসেবে নিচ্ছেন।

মোহাম্মদপুরগামী সিটি বাসের কন্ডাকটর রেজা জানান, অধিকাংশ গাড়ি যাত্রী নিয়ে বিভিন্ন জেলায় গেছে। তাই আমাদের কোম্পানির কয়েকটি বাস ঢাকায় চলছে।

অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার বিষয়ে এ পরিবহন শ্রমিক বলেন, সবাই ঈদ বোনাস পায়। আর আমাদের ভরসা যাত্রীরা। ঈদের আগের দিন যাত্রীরা আমাদের একটু খুশি করবেন সেটা প্রত্যাশা করতে পারি। তবে যারা দিতে চায় না তাদের কাছ থেকে নেওয়া হয় না বলে জানান তিনি।

ঢাকাটাইমস/২১আগস্ট/এমএবি/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Close