পুঁজিবাজারে চীনা মালিকানা, লাগতে পারে সুবাতাস

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:১৬

দেশের পুঁজিবাজারে যুক্ত হয়েছে চীনের মালিকানা। এতে হতাশা কাটিয়ে পুঁজিবাজারে পরিবর্তনের সুবাতাস লাগতে পারে বলে প্রত্যাশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই)-র  ২৫ শতাংশ শেয়ার চীনা কনসোর্টিয়াম সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের পক্ষ থেকে ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন এক্সচেঞ্জ রুলস অনুসারে চীনা দুই স্টক এক্সচেঞ্জের মনোনীত পরিচালক হচ্ছেন শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জের আইটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল জি ওয়েনহাই।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানায় ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই)।

সংবাদ সম্মেলনে ডিএসই’র চেয়ারম্যান আবুল হাসেম বলেন, ‘পুঁজিবাজারের জন্য আজকের দিনটি ঐতিহাসিক। কারণ আজকের এই চুক্তির মাধ্যমে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ আন্তর্জাতিক শেয়ার মার্কেটে পরিণত হতে যাচ্ছে। চীনা কনসোর্টিয়াম ডিএসইর অংশীদার হওয়ায় দেশের পুঁজিবাজার আন্তর্জাতিক মর্যাদায় উন্নীত হবে।’

ডিএসইর চেয়ারম্যান বলেন, ‘সকালে সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জের বিও অ্যাকাউন্টে শেয়ার হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তারা স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ও সিটি ব্যাংকের মাধ্যমে শেয়ারের মূল্য (৯৬২ কোটি টাকা) পরিশোধ করেছেন। এর মধ্যে প্রায় ১৫ কোটি টাকা স্ট্যাম্প ডিউটি হিসেবে সরকারের কোষাগারে জমা দেয়া হয়েছে। বাকি ৯৪৭ কোটি টাকা ডিএসইর সদস্য ব্রোকারদের শর্তহীনভাবে ভাগ করে দেয়া হবে।’

‘কোনো প্রকার শর্ত ছাড়াই এই টাকা ব্রোকারদের বুঝিয়ে দেয়া হবে। ব্রোকাররা তাদের ইচ্ছা মতো টাকা বিনিয়োগ করতে পারবেন। তবে তারা যেহেতু শেয়ার ব্যবসা করেন, তাই আমরা আশা করব তারা এই টাকা শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করবেন।’

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন কনসোর্টিয়াম সেনজেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জের মনোনীত পরিচালক জি ওয়েনহাই। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘ডিএসই ও চীনা কনসোর্টিয়াম উভয় দেশের শেয়ারবাজারের উন্নয়নে সহযোগিতা করবে। চীনা জোট গভীর গবেষণা ও পারস্পরিক পরামর্শের মাধ্যমে একটি আন্তরিক, সহযোগিতামূলক ও উভয়ের জন্য উপকারী কাজ করবে। এক্ষেত্রে লেনদেনে প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, পণ্যের উন্নয়ন ও বাজারের বিভিন্ন বিষয়ের উন্নয়নকে গুরুত্ব দেয়া হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা ছাড়াও চীনের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক চীনের সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ জোটকে নিটা অ্যাকাউন্ট খোলার অনুমতি দেয়। কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে গত ১৪ মে চীনা জোটের সঙ্গে চুক্তি সই করে ডিএসই। ওই চুক্তি অনুযায়ী, কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনা জোট ডিএসইর ২৫ শতাংশ বা ৪৫ কোটি ৯ লাখ ৪৪ হাজার ১২৫টি শেয়ার কিনেছে তারা। এজন্য প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে ২১ টাকা দরে মোট ৯৬২ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে সাংহাই ও সেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ জোট। ডিএসইর শেয়ারের বিপরীতে চীনা জোটের দেওয়া অর্থ ডিএসইর সদস্য ব্রোকারদের ভাগ করে দেওয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/০৪সেপ্টেম্বর/এনআই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

পুঁজিবাজার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত