দেশ পরিষ্কার করবে দেড় লাখ তরুণ

শেখ সাইফ, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:০২

‘চারপাশে ময়লা নাই, এমন একটা দেশ চাই’ স্লোগানে ১৫ সেপ্টেম্বর সারা দেশে পরিচ্ছন্নতা অভিযানে নামবে দেড় লাখ স্বচ্ছাসেবী ও পরিবেশ নিয়ে কাজ করা সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠন।

আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস’-এর  প্রস্তুতি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ‘পরিবর্তন চাই’ সংগঠনের চেয়ারম্যান ফিদা হক।  

সংগঠনটি ১৫ সেপ্টেম্বর চতুর্থবারের মতো ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস’ পালন করবে। ২০১৫ সাল থেকে এই দিবস পালন করে আসছে তারা।

সংবাদ সম্মেলনে এবারের দিবসের কর্মসূচি তুলে ধরেন ফিদা হক। তিনি বলেন, ‘১৫ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত আমরা সবাই আমাদের বাসা বা কর্মস্থল থেকে বের হয়ে আশপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা ময়লা-আবর্জনা সংগ্রহ করে কাছের ডাস্টবিনে ফেলব। সবাইকে এ বিষয়ে সচেতন করব, কেউ যেন খোলা জায়গায় আর ময়লা-আবর্জনা না ফেলেন।’

এবারের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকাসহ দেশের প্রায় সব জেলা এবং বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা শহরে পরিচ্ছন্নতা অভিযান। সব মিলিয়ে মোট ১৬৪টি স্থানে পরিষ্কার এবং নাগরিক পরিচ্ছন্নতায় সচেতনতা তৈরিতে কাজ করবে দেড় লাখের বেশি স্বেচ্ছাসেবী।

এ ছাড়া পরিবেশ নিয়ে কাজ করা সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠনও অভিযানে অংশ নেবে বলে জানান ফিদা হক।

বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় রবীন্দ্র সরোবর, চট্টগ্রামে কোতোয়ালি মোড় থেকে জেএম সেন স্কুল মাঠ, রাজশাহীতে আলুপট্টি মোড় থেকে পদ্মা গার্ডেন, ময়মনসিংহে সার্কিট হাউজ থেকে জয়নুল আবেদীন সংগ্রহশালা, রংপুরে প্রেসক্লাব থেকে টাউন হল, সিলেটে কিন ব্রিজ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, বরিশালে হিরণ পয়েন্ট ও খুলনায় শিববাড়ি মোড় থেকে হাদিস পার্ক পর্যন্ত  ‘দেশটাকে পরিষ্কার কর ‘ অভিযান পরিচালিত হবে।

নিজেদের লক্ষ্যের ব্যাপারে পরিবর্তন চাই-এর চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমাদের একটি অন্যতম লক্ষ্য হলো দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস সাফল্যের সঙ্গে পালন করা। দেশের সবার মধ্যে পরিবেশ সচেতনতা বাড়ানো। যেন বাংলাদেশের পরিবেশ ক্যালেন্ডারে এই দিনটি প্রতি বছর ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস ‘ হিসেবে উপহার দিতে পারি।’

পরিবর্তন চাই-এর উদ্যোগে প্রথমবারের মতো ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস’ উদযাপন করা হয় ২০১৫ সালের ৩ জানুয়ারি। সেবারের অভিযানে সারা দেশের ৪৩টি জেলার ২০ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবক অংশ নেন। ২০১৬ সালে ৭০ হাজারের বেশি এবং ২০১৭ সালে ১ লখি ১০ হাজারের মতো স্বেচ্ছাসেবক অংশ নেন জানান ফিদা হক।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমোডর মো. জাহিদ হোসেন, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের যোগাযোগ বিভাগের সহকারী প্রধান সামিয়া চৌধুরী, প্রথম আলোর সহকারী সম্পাদক রাজীব হাসান, সঙ্গীতশিল্পী মিফতা জামান।

(ঢাকাটাইমস/১১সেপ্টেম্বর/এসএস/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত