মিষ্টি কথা: বালুসাই

তায়েব মিল্লাত হোসেন
 | প্রকাশিত : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:১০

বাঙালির বিলাসী খাবারের মধ্যে অন্যতম মিষ্টান্ন। এক্ষেত্রে আবার এগিয়ে মিষ্টি। বাংলায় স্বাদের এক বিশেষণ হিসেবেও ভাষার ভাণ্ডারে যোগ হয়ে আছে ‘মিষ্টি’ শব্দখানি। এতেই আঁচ করা যায়, মিষ্টি বাঙালির কতটা আপনার। এটি এত প্রিয় যে, এর সমাদর থাকে সবটাতেই।

তা হোক অতিথি আপ্যায়ন, নয়তো ধর্মীয় আচার। শুভ কাজে যেমন, শোকের মাহফিলেও মিষ্টির উপস্থিতি থাকে প্রায়ই। কেননা মিষ্টি স্বাদ আমাদের মনে ও মননে শুদ্ধতার অনুভ‚তি হিসেবে জায়গা করে নিয়েছে। এমন মর্যাদা আর কোনো খাবারই পায়নি।

বাঙালির কোনো আয়োজনই মিষ্টি ছাড়া পূর্ণতা পায় না। মিষ্টির নাম শুনলেই আমাদের জিভে জল চলে আসে। আমাদের দেশে মিষ্টিকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে অগণিত নামি-দামি মিষ্টি-বিক্রয়কেন্দ্র। সেই আদিযুগের লাড্ডু থেকে শুরু করে সন্দেশ, কালোজাম পেরিয়ে আজ মিষ্টির প্রকারভেদ শিল্পের পর্যায়ে চলে গেছে। বিভিন্ন রকমের মিষ্টি স্বাদ, আকারে এমনকি নামকরণে ভিন্নতা নিয়ে জনপ্রিয়। আছে বালিশ মিষ্টি, আবার আছে বালুসাই।

রসগোল্লা, চমচমের মতো অনেক অনেক পরিচিতি পায়নি। তবু অনেকেরই পছন্দের তালিকায় রয়েছে বালুসাই মিষ্টি। এটা হালকা মিষ্টি। তাই স্বাস্থ্য-সচেতন নাগরিকদের কাছে এর আবেদন অনেক। স্বাদে ও গন্ধে বালুসাই একটু আলাদা। এটা আসলে উপকরণের কারণেই হয়। অনেকেই জানেন মিষ্টি তৈরি হয় মূলত ছানা দিয়ে। কিন্তু বালুসাই তৈরি হয় ছানা ছাড়াই।

উপকরণ ও প্রস্তুত প্রণালির ভিন্নতার কারণেই এর স্বাদ বদলে গেছে। একই কারণে ঝুরঝুরে গড়ন ও হালকা মিষ্টির মজার একটা খাবার বালুসাই। যার মাঝে দারুণ গন্ধ মিলে। আর অন্য মিষ্টি তৈরিতে জটিলতা আছে। যে কেউ করতে পারে না। কিন্তু খুব সহজে ঘরেই বালুসাই তৈরি করা যায়।

ঢাকাটাইমস/১২সেপ্টেম্বর/টিএমএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত