বেসরকারি পর্যায়ে পেনশন চালু করতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:০৫

বেসরকারি পর্যায়ে আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক খাতের কর্মজীবীদের জন্য সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় অংশগ্রহণমূলক সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী তার জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কথা বলেন। সরকারি দলের সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এখন পর্যন্ত অবসরকালীন পেনশন সুবিধা সরকারি চাকুরেদের জন্যই সংরক্ষিত। বেসরকারি খাতে কোথাও কোথাও ভবিষ্যৎ তহবিল (প্রভিডেন্ড ফান্ড) এবং গ্র্যাচুইটি সুবিধা থাকলেও পেনশনের বিষয়টি নেই। ফলে বেসরকারি চাকুরেদের শেষ বয়সে অনিশ্চয়তায় থাকতে হয়। আর এই অনিশ্চয়তা দূর করতে বেসরকারি চাকুরেদেরও অবসরকালীন এই সুবিধা চালুর পক্ষে মত দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

গত ৮ জুন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বেসরকারি চাকুরেদের জন্য পেনশন চালুর রূপরেখা দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। চলতি অর্থবছরের বাজেট পেশের সময়ও তিনি এই পেনশন চালুর বিষয়ে কথা বলেছিলেন। আগামী অর্থবছরের বাজেটেই এ বিষয়ে রূপরেখা দেয়ার কথাও বলেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী সেদিন জানান, ‘প্রস্তাবিত ব্যবস্থার আওতায় সরকার পরিচালিত স্কিমে নিবন্ধন করে একজন কর্মজীবী মাসিক ভিত্তিতে নির্দিষ্ট পরিমাণ চাঁদা জমা দেবেন। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষও নির্দিষ্ট অংক কর্মজীবীর পেনশন হিসাবে জমা দেবে।’

এ ক্ষেত্রে হতদরিদ্র শ্রমজীবীদের ক্ষেত্রে তাদের অংশের অতিরিক্ত হিসেবে সরকার পূর্ব ঘোষণা হিসাবেই নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ হিসাবে জমা দেবে। এ তহবিল হতে প্রাপ্ত আয় সার্বজনীন তহবিলে জমা হবে।

আজ জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেসরকারি পর্যায়ে পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে সরকার কাজ করছে জানিয়ে বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে পেনশন কর্তৃপক্ষ গঠন করে সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা প্রবর্তনের কার্যক্রম শুরু করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পেনশন কর্তৃপক্ষ গঠনের সঙ্গে সঙ্গে বেসরকারি পর্যায়ে নিয়োজিত সকল কর্মজীবী মানুষের জন্য একটি সুগঠিত, টেকসই ও বৈষম্যহীন সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা প্রবর্তনের লক্ষ্যে এর প্রাতিষ্ঠানিক ও আইনি কাঠামো চূড়ান্ত করা হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক ও আইনি কাঠামো চূড়ান্তকরণের পর সংশ্লিষ্ট সাবসিডিয়িারি অফিস স্থাপনসহ পেনশন কার্যক্রম চালু করা সম্ভব হবে।

ঢাকাটাইমস/১৯সেপ্টেম্বর/এমআর

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত