নিয়মরক্ষার ম্যাচে অনেক পরিবর্তন

দেলোয়ার হোসেন, দুবাই থেকেই
| আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৫২ | প্রকাশিত : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৪৮

ভারতকে সুবিধে দিয়ে সুপার ফোরের চার দলের অবস্থান নির্দিষ্ট করে আচমকা সূচিতে পরিবর্তন এনেছে এসিসি। বিস্ময়কর এ নিয়মে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বা রানার্স আপ হয়েও লাভ নেই। ‘বি’ গ্রুপ থেকে বাংলাদেশ যদি চ্যাম্পিয়ন হয়ও তাতে লাভ নেই। এই গ্রুপ থেকে বাংলাদেশের অবস্থান ‘টি ২’ নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে।বৃহস্পতিবার আফগানিস্তান যদি বাংলাদেশের কাছে হেরেও যায় তাহলে  গ্রুপ চ্যাম্পিয়নের মতো মর্যাদা পাবে। তাই এ ম্যাচ নিয়ে এখন মোটেও সিরিয়াস নয় টিম ম্যানেজমেন্ট।

শুক্রবার ভারতের বিপক্ষে সুপার ফোরের ম্যাচ নিয়েই ভাবা হচ্ছে সঙ্গতকারণে। তাই আফগানিস্তানের বিপক্ষে বিশ্রাম দেওয়া হচ্ছে মুশফিক, মুস্তাফিজকে। এমনকি এই তালিকায় থাকতে পারেন সাকিবও।

এক নম্বর ওপেনার হিসেবে থাকছেন লিটন কুমার দাস। আর তামিমের জায়গায় তরুণ অলরাউন্ডার নাজমুল হোসেন শান্তর ওপেন করা নিশ্চিত। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি অফ স্পিন বোলিংও করেন তিনি।

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দেশের হয়ে না খেললেও গত বছর টেস্ট খেলেছেন একটি। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওই টেস্টে অসফল তিনি। সর্বশেষ আয়ারল্যান্ড সফরে ‘এ’ দলের হয়েও তেমন রান পাননি শান্ত। ২০ বছর বয়সী এ অললাউন্ডার ওপেনার হিসেবে কতটা সফল হবেন- এ নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে অবশ্য।

ঢাকাতে অনুশীলন করার সময় পাঁজরে ব্যথা পেয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। সেই ব্যথা বেশ ভুগাচ্ছে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৫০ বলে ১৪৪ করেছিলেন ব্যথা নিয়েই। তাই মুশফিককে নামিয়ে ঝুকিও নিতে চায় না টিম ম্যানেজমেন্ট। আবুধাবিতে আফগান ম্যাচের পরদিনই দুবাইয়ে ভারতের বিপক্ষে খেলতে হবে বাংলাদেশকে। টানা দুই দিনে কঠিন জার্নি। তাই মুশফিককে বিশ্রামে রেখে সুপার ফোরের জন্য যতটুকু সম্ভব সতেজ রাখা হচ্ছে।

মুশফিকের জায়গায় মুমিনুল হকের খেলা নিশ্চিত। ২০১২ সালে ওযানডে অভিষেক, শেষ ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলেছেন ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে। প্রায় সাড়ে তিন বছর জাতীয দলের হয়ে ওয়ানডে খেলেননি মুমিনুল। যদিও ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি অনেক ভালো ইনিংস খেলেছেন। কিছুদিন  আগে ‘এ’ দলের হয়ে ১৮২ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেছেন। তিনি কত নম্বরে ব্যাট করবেন? মুশফিক ব্যাট করেন চার নম্বরে। কিন্তু মুমিনুল সাধারণ ব্যাট করেন তিনে। সাকিবও ব্যাট করেন তিন নম্বরে। তাহলে মুমিনুল সাকিব না মুশফিকের জায়গায় ব্যাট করবেন? সাকিবের প্রিয় পজিশন হল তিন নম্বর। এই পজিশন কি ছাড়তে চাইবেন তিনি? অবশ্য সাকিব নাও খেলতে পারেন কালকের  ম্যাচ।

সাকিবকে যদি বিশ্রাম দেওয়া হয় তাহলে তার জায়গায় খেলবেন অলরাউন্ডার আরিফুল হক। দীর্ঘদিন ধরে আঙুলের ইনজুরি নিয়ে দলকে সার্ভিস দিচ্ছেন সাকিব। ওদিকে ইনজুরির সমস্যা আছে পেসার ‍মুস্তাফিজুর রহমানেরও। ভারতের বিপক্ষে শুক্রবারের ম্যাচের জন্য বিশ্রাম দেওয়া হচ্ছে কাটার বয়কেও। তার জায়গায় কাল মাঠে নামবেন পেসার আবু হায়দার রনি। দেশের হয়ে ১০টি টি-টোয়েন্টি খেললেও কালই ওয়ানডে অভিষেক হতে যাচ্ছে রনির।

(ঢাকাটাইমস/১৯ সেপ্টেম্বর/ডিএইচ)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত