স্বামীর ‘নির্যাতনে’ হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন গৃহবধূ

নাটোর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:১৮

তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে স্বামীর নির্যাতনে নাটোরের সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিছানায় তীব্র যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন তহুরা বেগম নামে এক গৃহবধূ। নির্যাতিত ওই গৃহবধূকে বুধবার হাসপাতালে ভর্তি করেন তার স্বজনরা।

এদিকে খবর পেয়ে নির্যাতিত তহুরা বেগমের পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিংড়া উপজেলা শাখার সদস্যরা।

নির্যাতিতার পরিবার বলছে, সিংড়া উপজেলার মহেশচন্দ্রপুর গ্রামের জামসেদ আলী সরদারের ছেলে সেলিমের সাথে এক বছর আগে বিয়ে হয় একই গ্রামের মৃত: বিটলা প্রামাণিকের মেয়ে তহুরা বেগমের। তাদের সংসারে আট মাস বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। বিয়ের সময় ত্রিশ হাজার টাকা যৌতুক তুলে দেয় সেলিমের হাতে তহুরা বেগমের মা রেহেনা বেওয়া। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই স্বামী সেলিম মাঝেমধ্যেই তহুরা বেগমকে মারপিট করে। বুধবার তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে বাঁশের গিরা দিয়ে ওই গৃহবধূকে বেধড়ক মারধর করা হয়। পরে গৃহবধূ অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

নির্যাতিত গৃহবধূ তহুরা বেগম বলেন, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে প্রায়ই তাকে মারধর করা হয়। আর এবার বেধড়ক মারধরে অজ্ঞান অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত স্বামী সেলিম হোসেন বলেন, পারিবারিক সমস্যার কারণে সে তার স্ত্রীকে মারধর করেছে। আর সব সংসারেই কোন না কোন সমস্যা থাকে। কিন্তু তহুরা তার কথা না শুনে সব সময় শ্বশুর বাড়ির লোকজনের কথায় চলাফেরা করে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিংড়া উপজেলা শাখার সভাপতি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে এইভাবে মারধর করা খুবই লজ্জাকর। বিষয়টি জানার পর তাকে হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়েছে। আর বিষয়টি থানায় অবগত করা হয়েছে।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম বলেন, এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। খবর নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন তিনি।

(ঢাকাটাইমস/২০সেপ্টেম্বর/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত