পাঠাও-উবারে বাড়তি ভাড়ার হয়রানি

কাজী রফিকুল ইসলাম, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৭ | প্রকাশিত : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:৪৪
ফাইল ছবি

জনপ্রিয় হয়ে উঠতে না উঠতেই ভাড়া নিয়ে নানা অভিযোগের মুখে পড়েছে মোবাইল অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সার্ভিসগুলো। প্রতিনিয়ত পাওয়া যাচ্ছে নানা অভিযোগ। অধিকাংশ গ্রাহকই বলছেন বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া চালকের দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন বলেও অভিযোগ অনেক যাত্রীর।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিং পাঠাও-উবারে একই দূরত্বে সময়ের সঙ্গে ওঠানামা করছে ভাড়ার পরিমাণ। নির্দেশিত ভাড়ার তুলনায় বেশ বাড়তি ভাড়া গুণতে হচ্ছে গ্রাহকদের। উবারে পাঁচ কিলোমিটার দূরত্বে প্রথম দিন যেখানে ১৮০ টাকা ভাড়া গুণতে হয়েছে গ্রাহকের, পরেরদিন একই দূরত্বের পথে সেই ভাড়া ২৭৫ টাকা। কিন্তু উবার কল করার সময় সম্ভাব্য ভাড়া দেখানো হয়েছিল ১৭১ টাকা।

এমন সব অভিযোগের বর্ণনা দিয়ে উবারের ফেসবুক পেজে আপত্তি জানাচ্ছেন অনেক গ্রাহক। তবে এতে উবার কর্তৃপক্ষ এবং চালকদের তোপের মুখে পড়তে হচ্ছে গ্রাহকদের।

অন্যদিকে একই রকম অভিযোগের মুখে পড়েছে পাঠাও। একই দূরত্বের পথে একেক সময় একেক রকম ভাড়া। যদিও পাঠাও দাবি করছে, পিক আওয়ারে তাদের ভাড়া বেশিই থাকতে পারে।

পাঠাও এর ভাড়ার তালিকা অনুযায়ী পাঠাও বাইক রাইডের প্রাথমিক ভাড়া ২৫ টাকা। এরপর প্রতি কিলোমিটারের জন্য ১২ টাকা হারে হিসাব হবে। এক্ষেত্রে যানজটের কারণে প্রতি মিনিট ওয়েটিং চার্জ ০.৫ টাকা।

অথচ প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে পাঠাও বাইক সার্ভিসে গ্রহীতাদের গুণতে হচ্ছে ৮০-৯০ টাকা। আর একই দূরত্বের পথে উবার ভাড়া নিচ্ছে ১১৬ টাকা।

ঢাকায় পাঠাও কার রাইডের প্রাথমিক ভাড়া ৫০ টাকা। এরপর প্রতি কিলোমিটারের জন্য ২০ টাকা হারে হিসাব হওয়ার কথা এবং প্রতি মিনিট ওয়েটিং চার্জ দুই টাকা ৫০ পয়সা।

প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে পাঠাও কার সার্ভিসে ভাড়া ২০৭ টাকা। একই দূরত্বে উবার ভাড়া নিচ্ছে ২৫৩ টাকা।

পাঠাও বাইক রাইডের নিয়মিত যাত্রী মেহেদী হাসান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘প্রায় এমন হয় যে, রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করেও রাইডার বলে সে যাবে না। ভাড়ার ব্যাপারে আমি যতটুকু দেখেছি, প্রথম দিকে ভালই ছিল। অফার থাকত। আমিও নিজেও অফার ব্যবহার করেছি। এখনো ভাড়ায় ছাড় থাকে। কিন্তু পাইনা। রাইডাররা ছাড়ে যেতে আগ্রহী হয় না। এখন আবার ভাড়াও বেশি। পাঠাও এর চাইতে উবারে ভাড়া আরো বেশি। আমরা এক রকম ঠকে যাচ্ছি।’

একই যুক্তিতে পাঠাও, উবারসহ রাজধানীতে চলমান প্রায় ১০টি রাইড শেয়ার সার্ভিসের ক্ষেত্রেই নীতিমালা ও সরকারিভাবে এগুলো তদারকি প্রয়োজন বলে মনে করেন রাইড শেয়ারিং সার্ভিসের নিয়মিত যাত্রী ইরান আহমেদ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উবারের এমন আচরণ তুলে ধরেছেন ফাহমিদা নামের একজন উবার গ্রাহক। এসময় নিজের একটি নতুন অভিজ্ঞতার কথাও জানান তিনি। এই গ্রাহককে ২৭৫ টাকা ভাড়ার মধ্যে ৪৬ টাকা দিতে হয়েছে (Surge) সার্জ বিল। যার সাথে পরিচিত নন অনেক উবার ব্যবহারকারী।

অন্য এক গ্রাহক প্রথম দিন এক ঘণ্টা যানজটে থেকে গন্তব্যে পৌঁছেছেন ৭০ মিনিট। ভাড়া ছিল ১৮০ টাকা। একই দূরত্ব ২৫ মিনিটে অতিক্রম করে ভাড়া ২৭৫ টাকা। যাকে অযৌক্তিক বলছেন গ্রাহকরা।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে উবারে অভিযোগ করা হলে ঘটনার পরদিন ফাহমিদাকে ৯৫ টাকা ফেরত দিয়েছে উবার। টাকা ফেরত পেলেও এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি আশা করছেন না ফাহমিদা।

জানা গেছে, অন্যান্য সময়ের চাইতে পিক আওয়ারে বাড়তি ভাড়া আদায় করে রাইড শেয়ারিং সার্ভিস ‘উবার’। বাড়তি ভাড়া গুণতে হয় সকাল ৮টা থেকে ১০টা এবং সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। বিষয়টি নিয়ে অসন্তোষ আছে সেবা গ্রহীতাদের।

এছাড়াও ভাড়া সংক্রান্ত জটিলতার কারণে উবারের ফেসবুক পেজে অভিযোগ করা হলে চালকদের রোষানলে পরতে হয়ে গ্রাহকদের।

অভিযোগ উঠেছে উবারের পেজে করা অভিযোগগুলো পরবর্তী সময়ে খুঁজে পাওয়া যায় না। তবে এ বিষয়ে উবার কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

(ঢাকাটাইমস/২৩সেপ্টেম্বর/কারই/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত