‘জজ মিয়া নাটক বিএনপি করেনি, করেছে পুলিশ’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:৫৮ | প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:৫৪
ফাইল ছবি

বিএনপি ‘জজ মিয়া নাটক’ করেনি দাবি করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায়  চৌধুরী বলেছেন, ‘বিএনপি জজ মিয়া নাটক করতে যাবে কেন? তখনকার আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, তদন্তকারী সংস্থা করেছিল।’

ডিবিসি নিউজের রাজকাহন অনুষ্ঠানে ২১শে আগস্টে 'রাষ্ট্রযন্ত্র জড়িত' শীর্ষক টকশো’তে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ ওই টকশো’তে বলেন, ‘দেশের ইতিহাসে দু’টি চাঞ্চল্যকর মামলা বা ঘটনার মধ্যে একটি বঙ্গবন্ধুকে হত্যা আর অন্যটি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা। দেশের জন্য দুর্ভাগ্য, এই হামলা মামলার রায়ে সর্বোচ্চ গোয়েন্দা সংস্থার ব্যক্তিরা ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়ে গেছেন।’

বুধবার রাতের টকশো’টিতে আরও অংশ নেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মতিন খসরু। সঞ্চালনায় ছিলেন নবনীতা চৌধুরী।

এটা কে কি রাজনৈতিক মামলা বলা যায় কিনা- এমন প্রশ্নে কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, ‘সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বাবরসহ যারা মামলার আসামি, তাদের সবাই তো বিএনপির। বিএনপি এবং রাষ্ট্রযন্ত্রের সাথে যারা ছিলেন তারাই। কে এই হারিস চৌধুরী...? বাবরের মতো একজন অশিক্ষিত লোককে যদি স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাহলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কে ছিলেন? সেটা অবশ্যই খালেদা জিয়া ছিলেন। তারেক তার পক্ষে চালিয়েছেন। তাহলে তারা এই গ্রেনেড হামলার দু:সাহস কিভাবে করলেন? একটি দলকে নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে একটি রাজনীতি হবে, এটা সম্ভব না। কেউ বা বিএনপি এটাকে রাজনৈতিক মামলা বললেও আমরা বলব, এটা ইতিহাসের সবচেয়ে জঘন্য ঘটনা।’

নিতাই রায় চৌধুরী দাবি করেন, ‘২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার সুষ্ঠু তদন্ত আমরা চেয়েছি, বিচারও চেয়েছি। তার দুই বছর পরেই বিএনপি ক্ষমতা থেকে গেছে। তাই বিএনপি পূর্ণ তদন্ত শেষ করে যেতে পারেনি। তাই এই হামলায় বিএনপির কর্তাব্যক্তিদের নাম বেরিয়ে এসেছে, এতে অস্বস্তির কিছু নেই।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘এই রায় নিয়ে বিএনপির মধ্যে কোনো অস্বস্তি নেই। কারণ, গ্রেনেড হামলার রায়টা একটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে দেওয়া হয়েছে। তারেক রহমানকে জড়ানো এবং আব্দুস সালাম পিন্টু ও লুৎফুজ্জামান বাবরকে পরে জড়ানো হয়েছে। এফআইআর বা প্রথম চার্জশিটে তারেকের নাম নেই, এমনকি সম্পূরক চার্জশিটেও নেই।’

বিএনপি তখন নিন্দা না জানিয়ে এখন কেন জানাচ্ছে এবং শেখ হাসিনার ভ্যানিটি ব্যাগে গ্রেনেড ছিল বলেও তখন বিএনপি দাবি করেছিল- এমন প্রশ্নে নিতাই রায় চৌধুরী বলেন, ‘তখন খালেদা জিয়া তার কার্যালয়ে সকল তদন্ত কর্মকর্তাকে ডেকে নিজে মনিটরিং করেছিলেন এবং তদন্তে সবার নাম বের করতে বলেছিলেন। এরপরও ১৪ বছর পরে সেটার সাজা হল। তাহলে বিএনপি কিভাবে সেই মামলার বিচার শেষ করত ওই কম সময়ে? গ্রেনেড হামলার এই ঘটনা যেই ঘটাক সেটা নিন্দনীয়। সেটা আওয়ামী লীগ ঘটাক আর বিএনপি ঘটাক। রাষ্ট্রযন্ত্র আর রাজনৈতিক দল দুইটি আলাদা। পার্টির ক্ষমতা কিন্তু রাষ্ট্রযন্ত্রের অংশ না।’

(ঢাকাটাইমস/১১অক্টোবর/সালেকিন/এআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত