৯৯৯-এ ফোন, স্বামীর নির্যাতন থেকে গৃহবধূর মুক্তি

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ২০:৩৪

৯৯৯ কলের সূত্র ধরে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার উজিলাব গ্রাম থেকে স্বামীর নির্যাতনের শিকার রহিমা (২৫) নামে এক গৃহবধূকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

নির্যাতনের শিকার রহিমা আক্তার ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার জাঙ্গাইল গ্রামের মিয়া আলীর মেয়ে। নয় বছর আগে শ্রীপুর পৌর এলাকার উজিলাব গ্রামের সব্বত আলীর ছেলে জহিরুল ইসলামের সাথে তার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে সাত বছর বয়সী এক ছেলে রয়েছে। তবে গত ছয় মাস ধরে পরকীয়া সন্দেহে স্বামী জহিরুল রহিমাকে নির্যাতন করে আসছে।

গৃহবধূর ভাষ্যমতে, তার স্বামী অন্য এক স্বজনের সাথে পরকীয়া সম্পর্কের সন্দেহে তাকে নির্যাতন করে আসছে। তবে ছেলের ভবিষ্যতের কথা ভেবে তিনি নির্যাতন সহ্য করে আসছেন। ইতিপূর্বে তার স্বামীর প্রথম সংসারে স্ত্রী ও পাঁচজন মেয়ে রয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই তাকে অমানুষিক শারীরিক নির্যাতন করে আসছে তার স্বামী। এসময় লোহার পেড়েক গরম করে তার কপালে আগুণের ছেঁকা দেয়া হয়। এতে ক্ষত হলেও তাকে চিকিৎসার কোন সুযোগ না দিয়ে ঘরে আটকে রাখা হতো। পরে স্বামীর অগোচরে এক স্বজনকে নির্যাতনের ঘটনা জানালে তারা ৯৯৯ এ কল দেন।

তবে গৃহবধূর স্বামী রফিকুল ইসলাম মুঠোফোনে বিভিন্ন সময় স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি তার স্ত্রীকে পরকীয়ায় জড়িত থাকার বিষয়ে সন্দেহ করছেন, এ ঘটনায় উভয়ের মধ্যে ধাক্কাধাক্কা হয়। এতে তার স্ত্রী কপালে ও তিনি হাতে আঘাত পান।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম জানান, ৯৯৯ কলের সূত্র ধরে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে থানায় অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক জয়নব আক্তার জানান, নির্যাতিতা রহিমার কপালে গরম ধাতব বস্তুর ছেঁকা রয়েছে, এছাড়া সারা শরীরেও বিভিন্ন আঘাতেরও চিহ্ন রয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১২অক্টোবর/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত