ওয়েস্ট ইন্ডিজকে লড়াইয়ে ফেরালেন চেজ

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ১৯:১০

 

রাজকোটে প্রথম টেস্টে পৌনে তিন দিনেই হেরে বসেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হায়দরাবাদে অবশ্য কিছুটা লড়াইয়ের আভাস দিল তারা। বিপদ কাটিয়ে মোটামুটি স্বস্তি নিয়ে দিন শেষ করেছে ক্যারিবিয়ানরা।

লাঞ্চে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর ছিল ৩ উইকেটে ৮৬ রান৷ চায়ের বিরতিতে ১৯৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসেছিল তারা৷ সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে ক্যারিবিয়ান দল প্রথম দিনের খেলা শেষ করল ৭ উইকেটে ২৯৫ রান তুলে৷ সৌজন্য রোস্টেন চেসের চওড়া ব্যাট৷ অধিনায়কোচিত প্রতিরোধ গড়েন জেসন হোল্ডারও৷

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দিনের প্রথম আধ ঘণ্টা সতর্ক হয়ে ব্যাট করে৷ তবে ভারত দু’প্রান্ত দিয়ে স্পিন আক্রমণ শুরু করলে অস্বস্তিতে পড়ে ক্যারিবিয়ান ওপেনাররা৷ পাওয়েল কার্যত সেট হয়েও উইকেট দিয়ে আসেন অশ্বিনকে৷ ২২ রান করে জাদেজার হাতে ধরা পড়েন তিনি৷ ৩০ বলের ইনিংসে ৪টি চার মারেন পাওয়েল৷

শাই হোপের সঙ্গে জুটি বেঁধে ব্রাথওয়েট আরও কিছুক্ষণ ব্যাট করলেও হাত খোলার সুযোগ পাননি৷ শেষে ৬৮ বলে ১৪ রান করে কুলদীপের বলে এলবিডব্লু হন তিনি৷ লাঞ্চের ঠিক আগে হোপ এলবিডব্লু হন উমেশের বলে৷ ক্রিজ ছাড়ার আগে ৫টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৬৮ বলে ৩৬ রান করেন তিনি৷

লাঞ্চের ঠিক পরেই হেতমায়েরকে ফিরিয়ে দেন কুলদীপ৷ ২টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১২ রান করে এলবিডব্লু হন হেতমায়ের৷ অ্যাম্ব্রিসও ক্রিজে খুব বেশিক্ষণ স্থায়ি হতে পারেননি৷ ২৬ বলে ১৮ রান করে কুলদীপের বলে জাদেজার হাতে ধরা পড়ে যান তিনি৷

১১৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে বিপর্যয় থেকে উদ্ধার করার চেষ্টা করেন শাই হোপ-ডওরিচ জুটি৷ষষ্ঠ উইকেটের জুটিতে দু’জনে মিলে যোগ করেন ৬৯ রান৷ শেষমেশ ৬৩ বলে ৩০ রান করে উমেশের বলে লেগবিফোর হন ক্যারিবিয়ান উইকেটকিপার৷

রোস্টন চেস অপর প্রান্ত দিয়ে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন৷ ৮০ বলে ৫০’এর গণ্ডি ছোঁয়ার পথে চেস ৪টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন৷ জেসন হোল্ডারকে নিয়ে চায়ের বিরতি পর্যন্ত বাকি সময়টা নির্বিঘ্নে কাটিয়ে দেন তিনি।

দিনের শেষ সেশনে জমাট প্রতিরোধ গড়ে চেস-হোল্ডার জুটি৷

 (ঢাকাটাইমস/১২অক্টোবর/ডিএইচ)

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত