যৌন হেনস্তা: যা বললেন লতা মঙ্গেশকর

বিনোদন ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১১:৩৬ | প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ০৮:৪৮

যৌন হেনস্তার প্রতিবাদে উত্তাল এখন গোটা বলিউড। এরই মধ্যে #MeToo ব্যবহার করে বিভিন্ন পরিচালক, প্রযোজক, অভিনেতা ও গায়কের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা এবং ধর্ষণের অভিযোগ তুলেছেন ইন্ডাস্ট্রির অন্তত হাফ ডজনেরও বেশি অভিনেত্রী। সিনেমাপাড়ার বেশিরভাগ মানুষই অভিনেত্রীদের #MeToo আন্দোলনকে সমর্থন করে পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাদের হয়ে কথা বলেছেন। এবার সেই বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছেন উপমহাদেশের কিংবদন্তী কণ্ঠশিল্পী লতা মঙ্গেশকর।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাতকারে হাজির হয়ে প্রবাদপ্রতিম এ শিল্পী বলেন, ‘প্রত্যেক নারীকেই তার প্রাপ্য সম্মান দেয়া উচিত। এটি তার জন্মগত অধিকার। যদি তাকে কেউ অপমান করে, তবে ওই নারীর উচিত সেই অপরাধীকে সবক শেখানো। কর্মক্ষেত্রে নারীদের অসম্মান কোনো ভাবেই কাম্য নয়।’ তিনি হুঁশিয়ার করে এও বলেন, যদি তার সঙ্গে কখনো এমনটা ঘটতো, তবে অপরাধী কখনোই পার পেত না।

এর আগে যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে কথা বলেছেন প্রিয়াংকা চোপড়া, কঙ্গনা রানাউত, টুইঙ্কেল খান্না, সাইফ আলী খান ও ফারহান আখতারের মতো অভিনয়শিল্পীরা। ‘আশিক বানায়া আপনে’ খ্যাত নায়িকা তনুশ্রী দত্ত অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনার পর এসকল শিল্পীরা তনুশ্রীর পক্ষে কথা বলেন। তবে অভিনেতা নানাকে সমর্থন করেও কথা বলেছেন অনেকে। কিন্তু বর্তমানে তারা নিশ্চুপ।

এদিকে বলিউডের ‘সিরিয়াল কিসার’ খ্যাত নায়ক ইমরান হাশমি তো তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে শর্ত আরোপ করার ঘোষণা দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, নানাদিক থেকেই আসছে প্রতিবাদ। ‘হাউজফুল’ ছবির পরিচালক সাজিদ খানের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ ওঠায় ছবি ছেড়ে বেরিয়ে গেছেন নায়ক অক্ষয় কুমার। যৌন হেনস্তাকারীদের বিরুদ্ধে তিনি কাজ করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

অন্যদিকে যৌন হেনস্তাকারীদের বিরুদ্ধে একজোট হয়েছেন বলিউডের নারী পরিচালকরা। তাদের ১১ জনের একটি দল সম্প্রতি যৌথভাবে ঘোষণা দিয়েছেন, যৌন হেনস্তাকারীদের সঙ্গে তারা কাজ করবেন না। তাদের যৌথ স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিপত্র সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন অলংকৃতা শ্রীবাস্তব, গৌরী শিন্ধে, কিরণ রাও, কঙ্কনা সেন শর্মা, মেঘনা গুলজার, নন্দিতা দাস, নিতিয়া মেহরা, রীমা কাগতি, রুচি নারাইন, সোনালি বোস ও জয়া আখতার।

গত মাসে বলিউডে এই #MeToo প্রতিবাদের শুরুটা করেছিলেন তনুশ্রী দত্ত। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ২০০৮ সালে ‘হর্ণ ওকে প্লিজেস’ ছবির শুটিং সেটে খ্যাতিমান অভিনেতা নানা পাটেকর তাকে যৌন হেনস্তা করেছিলেন। সে সময় দুই পরিচালকের বিরুদ্ধেও অভিযোগ তোলেন তনুশ্রী। ব্যাস, এরপর থেকেই একে একে প্রকাশ্যে আসছে যৌন হেনস্তার লুকিয়ে থাকা অভিযোগগুলো। তনুশ্রীর পথ অনুসরণ করে আওয়াজ তুলছেন অনেকেই।

সেই তালিকা ক্রমেই লম্বা হচ্ছে। তনুশ্রীর পর অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত অভিযোগ তোলেন তার ‘কুইন’ ছবির পরিচালক বিকাশ বহেলের বিরুদ্ধে। তালিকায় নাম রয়েছে অভিনেতা অলোক নাথ, নামকরা পরিচালক সুভাষ ঘাই এবং কণ্ঠশিল্পী অভিজিৎ ভট্টাচার্য ও কৈলাশ খেরসহ অনেকের। বাদ পড়েননি বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চনও। তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে টুইট করে জানিয়েছেন তারকা হেয়ার স্টাইলিস্ট স্বপ্না ভবনানি।

ঢাকাটাইমস/১৬ অক্টোবর/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত