হারিয়ে যাননি সৌম্য, বার্তা এবাদতেরও

ক্রীড়া প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:৪০

পারফরম্যান্স ধারাবাহিক নয়। যার জন্য জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজে দলে জায়গা হয়নি বাঁহাতি ওপেনার সৌম্য সরকারের। তবে অধিনায়ক করে দায়িত্ব দেওয়া হয় একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে। আর সুযোগ পেয়ে নিজের অবস্থানটা আবারও দেখি দিলেন এই ব্যাটসম্যান।

নির্বাচকদের ধারণাকে ভুল প্রমান করে দেখালেন, হারিয়ে যায়নি সৌম্য সরকার। ব্যাট হাতে দলকে জেতানোর ক্ষমতা এখনো রয়েছে তার কব্জিতে ।

অপরদিকে বল হাতে দারুণ বার্তা দিলেন পেসার হান্টের আবিষ্কার এবাদত হোসেন। তার বলেই শুরুর ধাক্কা খায় জিম্বাবুয়ে। চার বলে তিনটি উইকেট সংগ্রহ করেন এই মিডিয়াম পেস বোলার। নয় ওভার বল করে তিনটিই দিয়েছেন মেডেন। ২.১১ ইকোনোমিতে মাত্র ১৯ রান দিয়ে তিনি একাই নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ১৭৮ রানে অল আউট হয় অতিথিরা।

এবাদতের পর ব্যাট হাতে ওপেনার সৌম্য সরকারের ভেলকি। নিজেদের ইনিংসের শুরুতেই দুই উইকেট হারায় বিসিবি একাদশ। মিজানুর রহমান ২০ রানে ফেরার পর নতুন ডাক পাওয়া ফজলে রাব্বি করেন মাত্র ১৩ রান।

কিন্তু দলে ডাক না পাওয়া সৌম্যই বিপর্যয়ের হাত থেকে দলকে টেনে তোলেন। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে নিয়ে তিনি একাই প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। গড়ে তুলেন ১১২ রানের পার্টনারশিপ। মোসাদ্দেক ব্যক্তিগত ৩৩ রানে স্বেচ্ছায় অবসরে গেলে আরিফুলকে নিয়ে ১৩ চার ও ১টি ছক্কায় সেঞ্চুরি তুলে নেন সৌম্য। তার ইনিংসের উপর ভর করে মাত্র ৩৯ ওভারে আট উইকেটের জয় তুলে নেয় বিসিবি একাদশ।

বাঁহাতি সৌম্যর ১১৪ বলে ১০২ রানের হার না মানা ইনিংসটি শুধু টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের নয় বরং সমালোচকদেরও কড়া জবাব দিয়ে দিল। আরো একবার তিনি প্রমাণ করলেন সৌম্য হারিয়ে যাননি। পাশি এবাদতের দারুণ বোলিং বাংলাদেশের জন্য দারুণ বার্তাই বটে।

(ঢাকাটাইমস/১৯ অক্টোবর/এইচএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত