তফসিলের আগে আলোচনা চেয়ে চিঠি দিচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০১৮, ২৩:০৩ | প্রকাশিত : ২১ অক্টোবর ২০১৮, ২২:১৮

তফসিল ঘোষণার আগে আলোচনায় বসতে সরকার, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এবং নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিতে যাচ্ছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ঠ। এই চিঠিতে ফ্রন্টের ঘোষিত সাত দফা মেনে নেয়ার আহ্বানও জানানো হবে।

রবিবার রাত আটটায় গণফোরামের মতিঝিলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ফ্রন্টের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান জোটের শরিক জেএসডি নেতা আ স ম আবদুর রব। আাগামী দিনের কর্মপন্থা ঠিক করতে এই বৈঠক করেন তারা।  

রব বলেন, ‘সরকারকে আমরা দাবি জানাব, তফসিল ঘোষণার পূর্বে বৈঠক করার জন্য, আমরা যারা অংশী, আমরা যারা শরিক, আমরা যারা নির্বাচন করতে চাই তাদের সাথে আলাপ-আলোচনা না করে যেন তফসিল ঘোষণা না করা হয়। সেজন্য আমরা সাত দফা দাবি সরকার ও সরকারি দলকে চিঠি দিয়ে জানাব। একইভাবে আমাদের দাবি নিয়ে নির্বাচন কমিশনেও আমাদের একটি প্রতিনিধি দল যাবে।’

নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে তফসিল ঘোষণার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। আর তফসিল নিয়ে আলোচনা করতে ১ নভেম্বর বঙ্গভবনে যাচ্ছেন কমিশনাররা।

রব বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা ও ১১ লক্ষ্য লিখিতভাবে নির্বাচন কমিশনকে কাছে দেওয়া হবে। তবে কবে দেয়া হবে তা পরে জানানো হবে।

বৈঠকের একটি সূত্র জানায়, ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফা দেওয়া হবে।

কবে সরকার ও ক্ষমতাসীন দলকে চিঠি দেবেন- এমন প্রশ্নে রব বলেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্যাডে লিখিতভাবে সাত দফা দাবি উপস্থাপন করে আমাদের প্রতিনিধির মাধ্যমে চিঠি যাবে। তবে কবে দেওয়া হবে তা এখনও নির্ধারণ হয়নি। যতটুকু সিদ্ধান্ত হয়েছে তা আমি আপনাদেরকে বলেছি।’

বৈঠকের সূত্র জানায়, ড. কামাল হোসেন সম্মতি দিলে জোটের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে এই চিঠি দেয়ার সময় ঠিক হবে। আর কামাল হোসেনের সঙ্গে কথা বলে তারিখ নির্ধারণ করার জন্য গণফোরামের মহাসচিব মোস্তফা মহসীন মন্টুকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

গত ১৩ অক্টোবর কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া, বিএনপি, নাগরিক ঐক্য এবং জেএসডি মিলে গঠন করা হয় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। আর সেদিনই বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচকালীন নির্দলীয় সরকার, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনসহ সাত দফা দাবি এবং ক্ষমতায় গেলে কী করা হবে সে বিষয়ে ১১ দফা লক্ষ্যের কথা জানানো হয়।

তবে সরকার এবং সরকারি দলের পক্ষ থেকে এই সাত দফাকে অগ্রহণযোগ্য বলা হচ্ছে। আর দাবি মেনে নেয়া হবে, এমন কোনো আভাসও নেই।

সিলেটের জনসভায় যাবেন ড. কামাল

ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর আগামী ২৪ অক্টোবর সিলেটে প্রথম জনসভায় যাচ্ছেন নেতারা। আজকের বৈঠকে এ নিয়েও কথা হয়।

রব জানান, ২৪ অক্টোবরের সিলেট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে ড. কামাল হোসেন আর প্রধান বক্তা হিসেবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বক্তব্য রাখবেন। এতে সভাপতিত্ব করবেন সিলেট বিএনপির নেতা ও সিটি মেয়র মেয়র আরিফুল হক।

বিএনপি নেতা আমীর খসরুকে মাহমুদ চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর সমালোচনা করে সিলেটের জনসভার আগেই তার মুক্তি দাবি করেন রব।

৩০ অক্টোবর রাজশাহী‌তে সমা‌বেশের তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে জানিয়ে জেএসডি নেতা জানান, এই সমাবেশ হবে ২ নভেম্বর।

গণফোরামের মোস্তফা মহসিন মন্টুর সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, বরকতউল্লাহ বুলু, মো. শাজাহান, মনিরুল হক চৌধুরী, হাবিবুর রহমান হাবিব, জেএসডির আসম আবদুর রব, আবদুল মালেক রতন, শহীদউদ্দিন মাহমুদ স্বপন, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফ্রিক, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মনসুর আহমেদ গণস্বাস্থ্য সংস্থার ট্রাস্ট্রি জাফরুল্লাহ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/২১অক্টোবর/জিএম/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত